ইস্তাম্বুলে ফের হারল এরদোগানের দল

  যুগান্তর ডেস্ক ২৫ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

তুরস্কের বৃহত্তম শহর ইস্তাম্বুলে নতুন করে অনুষ্ঠিত মেয়র নির্বাচনে পরাজিত হয়েছে প্রেসিডেন্ট এরদোগানের ক্ষমতাসীন একে পার্টি। প্রধান বিরোধী দল রিপাবলিকান পিপলস পার্টির (সিএইচপি) প্রার্থী ইকরাম ইমামোগলু ৫৪ শতাংশ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। বিরোধীদের এ জয়ে তুরস্কে নতুন শক্তির উত্থান দেখছেন বিশ্লেষকরা। পরাজয় মেনে ইমামোগলুকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন এরদোগান। সোমবার সন্ধ্যায় এক টুইটার বার্তায় তিনি বলেন, ‘প্রাথমিক ফলাফলের ভিত্তিতে জয়ী ইমামোগলুকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছি।’

তুরস্কজুড়ে এখনও জনপ্রিয় এরদোগানের একে পার্টি। মার্চের নির্বাচনে দেশের বেশিরভাগ অঞ্চলেই দলটি জয়ী হলেও হেরে যায় ইস্তাম্বুলে। ইস্তাম্বুলের মেয়র নির্বাচনেও জয় পেয়েছিলেন ইমামোগলু। কিন্তু ক্ষমতাসীন দল ও এরদোগান নিজেই ভোটে কারচুপি ও অনিয়মের অভিযোগ আনার পর ওই নির্বাচন বাতিল করে নতুন নির্বাচন দেয় তুরস্কের নির্বাচন কমিশন। সে সময় প্রেসিডেন্টের ওই দাবি উড়িয়ে দিয়ে ইমামোগলু বলেন, ইস্তাম্বুলের নিয়ন্ত্রণ ছাড়তে চান না বলেই ভোটে কারচুপির অভিযোগ এনেছেন প্রেসিডেন্ট। বিদেশি গণমাধ্যমকে এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘এখানে সে ফ গণতন্ত্র ও গণতন্ত্রের বাস্তবায়নের জন্য লড়াই করছি।’

প্রায় চার মাসের নিরলস প্রচার-প্রচারণার পর রোববার ফের ভোট অনুষ্ঠিত হয়। ভোটে সাত লাখ ৭৫ হাজার ভোট পেয়ে এগিয়ে থাকা ইমামোগলুর সমর্থন এবার আরও বৃদ্ধি পেয়েছে। এর আগে মার্চের নির্বাচনে মাত্র ১৩ হাজার ভোটের ব্যবধানে জয় পেয়েছিলেন তিনি। নির্বাচনে জয়ের পর দেয়া ভাষণে ইমামোগলু বলেছেন, ‘ইস্তাম্বুল ও তুরস্কের জন্য এক নবসূচনা হল। ইস্তাম্বুলে আমরা এক নতুন অধ্যায় শুরু করেছি। এ অধ্যায় হবে ন্যায়বিচার, সমতা আর ভালোবাসায় পরিপূর্ণ।’ তিনি প্রেসিডেন্ট এরদোগানের সঙ্গে কাজ করতে প্রস্তুত বলেও জানিয়েছেন।

ইমামোগলুর প্রতিদ্বন্দ্বী একে দলের প্রার্থী তুরস্কের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইলদিরিম পরাজয় স্বীকার করে নিয়েছেন। ইমামোগলুকে অভিনন্দন জানালেও ইস্তাম্বুলের মেয়র নির্বাচনের এ ফলাফলকে এরদোগানের জন্য বড় ধরনের বিপর্যয় হিসেবে দেখা হচ্ছে। তিনি এক সময় বলেছিলেন, ‘যে ইস্তাম্বুল জয় করে, সে তুরস্ক জয় করে।’ কিন্তু সারা দেশে দলের ব্যাপক জনপ্রিয়তা সত্ত্বেও ইস্তাম্বুলে কেন হারল ক্ষমতাসীনরা। বিশ্লেষকরা বলছেন, তুরস্কের অর্থনীতির পাওয়ার হাউস ইস্তাম্বুল; কিন্তু বেকারত্ব ও মুদ্রাস্ফীতিসহ সাম্প্রতিক অর্থনৈতিক স্থবিরতার কারণে ক্ষমতাসীনদের থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন শহরবাসী।

ইস্তাম্বুলে এরদোগানের পরাজয়ের আরেকটি কারণ রয়েছে। ভোটে ইমামোগলুর প্রতি সমর্থন দিয়েছেন কুর্দি ভোটাররা। শুধু ইস্তাম্বুলেই তাদের সংখ্যা ১০ লাখের বেশি। কুর্দিদের দল এইচডিপি ইমামোগলুকেই সমর্থনের ঘোষণা দেয়। রোববারের জয়ে তাই কুর্দিরাও বিজয়োৎসব করছেন। বিরোধীদের এই জয়ে এখন নিশ্চিতভাবেই একে পার্টির ওপর প্রভাব ফেলবে। সেই সঙ্গে সবার চোখ এখন দলটির অন্যতম অংশীদার ন্যাশনালিস্ট মুভমেন্ট পার্টির (এমএইচপি) ওপর।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×