জাতিসংঘ তদন্ত কর্মকর্তা

মিয়ানমারকেই রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব দিতে হবে

  যুগান্তর ডেস্ক ২৮ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মিয়ানমারকেই রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব দিতে হবে

মিয়ানমারকে অবশ্যই রাষ্ট্রহীন করে রাখা রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব দিতে হবে বলে জানিয়েছেন জাতিসংঘের ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং মিশনের তদন্ত কর্মকর্তা রাধিকা কুমারাস্বামী।

একই সঙ্গে মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চিকে গণতান্ত্রিক হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। রয়টার্স জানায়, রাখাইনে ২০১৭ সালের আগস্টে সেনাবাহিনীর নৃশংসতার তদন্ত করে জাতিসংঘ।

জাতিসংঘের ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং মিশন ওই তদন্ত শেষে জানায়, সেখানে রোহিঙ্গাদের ওপর গণহত্যা চালানো হয়েছে। ওই মিশনের অন্যতম সদস্য রাধিকা। বুধবার দ্য হেগে রাষ্ট্রহীন বিষয়ক এক বৈশ্বিক সম্মেলনে রাধিকা বলেন, রাষ্ট্রহীন রোহিঙ্গাদের শিকড় রয়েছে মিয়ানমারে। তাদের অবশ্যই নাগরিকত্ব দিতে হবে মিয়ানমারকে।

প্রজন্মের পর প্রজন্ম ধরে মিয়ানমারে বসবাস করলেও বৌদ্ধ সংখ্যাগরিষ্ঠ মিয়ানমার মুসলিম রোহিঙ্গাদেরকে নাগরিক হিসেবে স্বীকার করে না। কুমারাস্বামী বলেছেন, ক্যারিয়ারে বিভিন্ন স্থানে বহু নৃশংসতা দেখেছি আমি। কিন্তু রোহিঙ্গাদের ধর্ষণ ও তাদেরকে জোর করে উৎখাতের ঘটনা আমার অন্তরাত্মাকে নাড়িয়ে দিয়েছে। রাষ্ট্রহীনতাই হল ভয়াবহ রোহিঙ্গা সংকটের মূল কারণ। ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং মিশন রোহিঙ্গা গণহত্যার জন্য মিয়ানমারের শীর্ষ সেনা কর্মকর্তাদের বিচার করার আহ্বান জানিয়েছে।

জাতিসংঘের রিপোর্ট প্রত্যাখ্যান করেছে মিয়ানমার। বিশ্বে প্রায় এক থেকে দেড় কোটি রাষ্ট্রহীন মানুষ আছে। রোহিঙ্গারা হল বিশ্বে সবচেয়ে বেশি রাষ্ট্রহীন মানুষ। প্রায় দশ লাখ আশ্রয় নিয়েছে বাংলাদেশে। এখনও মিয়ানমারে রয়েছে কয়েক হাজার। এ ছাড়া এশিয়ার বিভিন্ন স্থানে বাকিরা ছড়িয়ে-ছিটিয়ে আছে। কুমারাস্বামী বলেন, একজন বয়স্ক শরণার্থীকে দেখে তিনি মর্মাহত হয়েছিলেন। ওই শরণার্থী তাকে দেখিয়েছিলেন প্লাস্টিকের ময়লা একটি ব্যাগে কিছু কাগজপত্র। এর মধ্যে ছিল তার পূর্বপুরুষদের নাগরিকত্ববিষয়ক ডকুমেন্ট। ওই বৃদ্ধাকে ১৯৮২ সালের নাগরিকত্ব আইনের অধীনে তার নাগরিকত্ব প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে। সেই ব্যাগে আছে এ সংক্রান্ত একটি কাগজ, একটি কার্ড। তাকে এটা দেয়া হয়েছে। তাতে ইংরেজিতে লেখা রয়েছে শুধু ‘বাঙালি মুসলিম’। রাধিকা বলেন, ওই নারী ব্যাগটিকে এমনভাবে তার কাছে রেখেছেন যেন এটাই তার জীবন। তিনি যখন পালিয়ে আসেন তখন তার স্বর্ণালঙ্কারসহ সবকিছু ফেলে এসেছেন। কিন্তু সঙ্গে এনেছেন ব্যাগটি।

রাখাইনে মানবাধিকার নিশ্চিতের আগে বিনিয়োগ না করার আহ্বান জাপান টাইমসের : মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গাদের মানবাধিকার নিশ্চিত ও প্রত্যাবাসনের আগে বিনিয়োগ না করতে আহ্বান জানিয়েছে জাপান টাইমস।

দেশটির প্রখ্যাত এই দৈনিক বৃহস্পতিবার তাদের সম্পাদকীয়তে লিখেছে, শুধু অর্থনৈতিক দিক বিবেচনায় রোহিঙ্গা সংকটকে পাশ কাটিয়ে রাখাইনে জাপানের বিনিয়োগ করা উচিত হবে না। তাদের অবশ্যই রোহিঙ্গা সংকটের সমাধানে দায়িত্ব পালন করতে হবে।

ঘটনাপ্রবাহ : রোহিঙ্গা বর্বরতা

আরও

'কোভিড-১৯' সর্বশেষ আপডেট

# আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ৩৩০ ৩৩ ২১
বিশ্ব ১৬,০৪,৫৩৫ ৩,৫৬,৬৬০ ৯৫,৭৩৪
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত