যুক্তরাষ্ট্রকে ভয়াবহ পরিস্থিতির মুখে ফেলেছেন ট্রাম্প

ডেমোক্র্যাটিক বিতর্ক যুদ্ধে জো বাইডেন

  যুগান্তর ডেস্ক ২৯ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

নানা বিতর্কিত নীতির মাধ্যমে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রকে ভয়াবহ পরিস্থিতির মুখে ঠেলে দিয়েছেন। আসন্ন মার্কিন নির্বাচনে ডেমোক্রেটিক দল থেকে মনোনয়নপ্রার্থী জো বাইডেন এ মন্তব্য করেছেন।
ছবি: সংগৃহীত

নানা বিতর্কিত নীতির মাধ্যমে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রকে ভয়াবহ পরিস্থিতির মুখে ঠেলে দিয়েছেন। আসন্ন মার্কিন নির্বাচনে ডেমোক্রেটিক দল থেকে মনোনয়নপ্রার্থী জো বাইডেন এ মন্তব্য করেছেন।

তিনি বলেছেন, অভিবাসী বিতাড়ন, ধনীদের রেকর্ড পরিমাণ কর কমানো, সীমান্তে অভিবাসীদের ওপর কড়াকড়ির মতো ভয়াবহ নীতি নিয়েছেন ট্রাম্প। ২০২০ সালের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান ট্রাম্পের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী কে হবেন- সে প্রশ্নে বৃহস্পতিবার ফ্লোরিডার মিয়ামিতে দ্বিতীয় দিনের বিতর্কে অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সময়ের ভাইস প্রেসিডেন্ট বাইডেন।

বিতর্কে ট্রাম্পকে সরাসরি ‘ভুয়া প্রেসিডেন্ট’ অভিহিত করেন খ্যাতনামা সিনেটর বার্নি স্যান্ডার্স। তাকে ‘বিকারগ্রস্ত মিথ্যাবাদী ও বর্ণবাদী’ও আখ্যা দেন তিনি।

বুধবার মায়ামিতে ডেমোক্র্যাটিক পার্টির মোট ১০ জন সম্ভাব্য প্রার্থী নিজেদের মধ্যে দুই ঘণ্টা স্থায়ী এক টিভি বিতর্কে অংশ নেন।

অংশ নেন ম্যাসাচুসেটস সিনেটর এলিজাবেথ ওয়ারেন, নিউ জার্সি সিনেটর কোরি বুকার, টেক্সাসের সাবেক কংগ্রেসম্যান বেটো ওরুরকে, নিউইয়র্ক সিটি নেত্র বিল ডে ব্লাসিও, টিম রায়ান, হুলিয়ান ক্যাস্ত্রো, অ্যামি ক্লোবুচার ও তুলসি গ্যাবার্ড। বৃহস্পতিবার একই বিতর্কে অংশ নেন জো বাইডেন, বার্নি স্যান্ডার্স ও কমলা হ্যারিসসহ মোট ১০ জন। বাইরে রয়েছেন আরও চারজন প্রার্থী।

তারা বিতর্কে অংশগ্রহণের যোগ্যতা অর্জন করতে পারেননি। স্বাস্থ্য বীমা ও অভিবাসনের প্রশ্ন ছিল বিতর্কের প্রধান দুই বিষয়। তিন দিন আগে এল সালভাদরের অস্কার মার্টিনেস ও তার বছর দু-একের কন্যা ভ্যালেরিয়া মেক্সিকো সীমান্ত অতিক্রম করে যুক্তরাষ্ট্রে আসার চেষ্টা করে খরস্রোতা রিও গ্রান্দে নদীতে ডুবে নিহত হন।

তাদের মৃতদেহের ছবি দেশের সব পত্রিকায় ফলাও করে প্রকাশিত হলে অনেকে এই মৃত্যু ২০১৫ সালে সিরিয়ার গৃহযুদ্ধ থেকে পালানোর চেষ্টায় সমুদ্রে ডুবে নিহত কুর্দি বালক আয়লানের ঘটনার সঙ্গে তুলনা করছেন। অভিবাসননীতির কারণে এই মৃত্যু, সে কথা স্বীকারের বদলে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প সব দোষ চাপান বিরোধী ডেমোক্র্যাটদের ওপর। তাদের কারণেই অভিবাসন প্রশ্নে কোনো সংস্কার প্রস্তাব গ্রহণ সম্ভব হচ্ছে না, তিনি অভিযোগ করেন।

বিতর্কে অংশগ্রহণকারী ডেমোক্র্যাটিক প্রার্থীরা অস্কার ও ভ্যালেরিয়ার মৃত্যুর জন্য প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ও বহিরাগত প্রশ্নে তার ‘জিরো টলারেন্স’ নীতিকে দায়ী করে অভিবাসন প্রশ্নে দ্রুত সংস্কারের পক্ষে মত দেন। দক্ষিণ আমেরিকা থেকে আগত আশ্রয়প্রার্থী বহিরাগত ব্যক্তিদের যুক্তরাষ্ট্রে আসতে অনুমতি দেয়ার বদলে তাদের মেক্সিকোতে রাখার যে ব্যবস্থা চালু হয়েছে, এই মৃত্যুর সেটাই কারণ।

বারাক ওবামা আমলের সাবেক গৃহায়ণমন্ত্রী হুলিয়ান ক্যাস্ত্রো বলেন, তিনি প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলে প্রথম দিনই এক নির্বাহী আদেশে এই নিয়মের পরিবর্তন করবেন।

ঘটনাপ্রবাহ : মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন-২০২০

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

 
×