রোহিঙ্গাদের পিটিয়ে দেশছাড়া করছে ভারত

  যুগান্তর ডেস্ক ০৭ জুলাই ২০১৯, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

রোহিঙ্গা শরণার্থীদের পিটিয়ে দেশছাড়া করছে ভারত। আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন ফর্টিফাই রাইটসের এক ভিডিওতে এ দৃশ্য ফুটে উঠেছে।

সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে ভারত সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে দক্ষিণ এশিয়াভিত্তিক এ গোষ্ঠীটি। মোবাইলে ধারণ করা তাদের একটি ভিডিওতে দেখা গেছে- বাঁশের তৈরি একটি ঘর থেকে একজন রোহিঙ্গাকে টেনেহিঁচড়ে নিয়ে যাচ্ছে ভারতীয় নারী নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা।

সঙ্গে তার শিশু সন্তানও রয়েছে। চলতি সপ্তাহেই জোরপূর্বক মিয়ানমারে ফেরত পাঠানো হয়েছে শতাধিক রোহিঙ্গাকে।

একইসঙ্গে মিজোরাম রাজ্যে রোহিঙ্গাদের বাড়ি ভেঙে ফেলার ছবি ও ভিডিও প্রমাণ পেয়েছে ফর্টিফাই রাইটস। রাজ্যের লংটালাই জেলার এক ভারতীয় কর্মকর্তা বলেন, গত ৩ জুলাই রোহিঙ্গা শরণার্থীদের এসব ঘর ভেঙে ফেলা হয়।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, রোহিঙ্গাদের ঘর ভেঙে দিয়ে তাদেরকে টেনেহিঁচড়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। তাদের পেছনে ছোট বাচ্চারাও কাঁদতে কাঁদতে ছুটছে। ফর্টিফাই রাইটসের প্রধান নির্বাহী ম্যাথিউ স্মিথ বলেন, ‘শরণার্থীদের সুরক্ষা নিশ্চিত করা ভারতের আইনি বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

রোহিঙ্গাদের যুদ্ধাপরাধ ও কঠোর নির্যাতনের দিকে ঠেলে দিচ্ছে ভারত।’ জাতিসংঘ কনভেনশন এগেইনস্ট টর্চার অ্যান্ড আদার ক্রয়েল, ইনহিউম্যান অর ডিগ্রেডিং ট্রিটমেন্ট অর পানিশমেন্ট-এর ৩নং ধারা অনুসারে, ‘যে ব্যক্তি তার নিজ দেশে নির্যাতনের শিকার হতে পারেন তাকে কোনো সদস্য রাষ্ট্র বহিষ্কার বা জোরপূর্বক তাড়িয়ে দিতে পারবেন না।’

গত বছরের জুলাই মাসেও একটি ভিডিও প্রকাশ করেছিল ফর্টিফাই রাইটস। আট মিনিট ৪০ সেকেন্ডের ওই ভিডিওতে পেটাতে পেটাতে রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে পালিয়ে যেতে হুমকি দেয়া হয়েছে।

দ. রাখাইনেও ‘ক্লিয়ারেন্স অপারেশন’ চালাচ্ছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী : দক্ষিণ রাখাইনের কিয়াউকপাইয়ু বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে ক্লিয়ারেন্স অপারেশন চালাচ্ছে ময়ানমার সেনাবাহিন। আঞ্চলিক নৌ কমান্ড ঘাঁটির নিরাপত্তার জন্য আশপাশের ১০ গ্রামের লোকদের ধান চাষ বন্ধের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

ঘটনাপ্রবাহ : রোহিঙ্গা বর্বরতা

আরও
 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত