সেনা পাঠাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র, সম্মত সৌদি আরব

  যুগান্তর ডেস্ক ২১ জুলাই ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সৌদি আরবে যুক্তরাষ্ট্রের সেনা মোতায়েনের প্রস্তাব অনুমোদন করেছেন সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল-সৌদ। পরমাণু ইস্যুতে ওয়াশিংটন-তেহরান উত্তেজনার মধ্যে শুক্রবার দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় টুইটারে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা বলছেন, আঞ্চলিক নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা জোরালো করতে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগও এক বিবৃতিতে সৌদি আরবে সেনা মোতায়েনের খবর নিশ্চিত করেছে। বলেছে, শিগগিরই ৫০০ সেনা মোতায়েন করা হবে সৌদিতে। সৌদি রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা এসপিএ’র বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে এএফপি।

২০১৩ সালে ইরাক আগ্রাসনের সময় সৌদি থেকে মার্কিন সেনাদের সরিয়ে ইরাকে মোতায়েন করা হয়। ১৯৯১ সালে ইরাক কুয়েত আক্রমণ করলে ‘অপারেশন ডেজার্ট স্টর্ম’ অভিযানের সময় প্রথম সৌদি ভূখণ্ডে সেনা পাঠায় ওয়াশিংটন। এরপর ইরাক যুদ্ধের আগ পর্যন্ত একটানা প্রায় ১২ বছর সেখানে মার্কিন সেনার জোর উপস্থিতি ছিল। তবে রিয়াদের প্রিন্স সুলতান বিমান ঘাঁটিতে এখনও প্রায় দুই শতাধিক মার্কিন যুদ্ধবিমান মোতায়েন রয়েছে। জুনে মার্কিন প্রতিরক্ষা সদর দফতর পেন্টাগন জানিয়েছিল, মধ্যপ্রাচ্যে এক হাজার সেনা মোতায়েন করবে যুক্তরাষ্ট্র। তবে তাদের ঠিক কোথায় মোতায়েন করা হবে তা তখন জানানো হয়নি। সম্প্রতি মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের দুই কর্মকর্তাকে উদ্ধৃত করে সিএনএন আভাস দিয়েছিল, ইরানের সঙ্গে চলমান উত্তেজনার মধ্যেই সৌদি আরবের সঙ্গে সামরিক সম্পর্ক আরও জোরালো করতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। এর অংশ হিসেবে দেশটিতে নতুন করে ৫০০ মার্কিন সেনা পাঠানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে ওয়াশিংটন। সৌদি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় টুইটার পোস্টে জানায়, ‘আঞ্চলিক হুমকির মুখে সৌদি আরব ও যুক্তরাষ্ট্র দীর্ঘদিনের অংশীদারিত্বকে জোরালো করছে।’ বাদশাহ সালমান যুক্তরাষ্ট্রকে সৌদি আরবে সেনা মোতায়েনের অনুমতি দিয়েছেন বলেও জানানো হয়। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক মার্কিন কর্মকর্তা রয়টার্সকে বলেছেন, সৌদি আরবে প্রায় ৫০০ সেনা সদস্যকে মোতায়েন করা হতে পারে।

মার্কিন যুদ্ধজাহাজের ওপর ড্রোনের নজরদারির ভিডিও প্রকাশ ইরানের : পারস্য উপসাগরে হরমুজ প্রণালীতে ইরানি ড্রোন ভূপাতিত করার মার্কিন দাবি আগেই নাকচ করে দিয়েছে ইরান। এবার নিজেদের দাবির স্বপক্ষে যুক্তি ও মার্কিন দাবিকে মিথ্যা প্রমাণ করতে ওই যুদ্ধজাহাজের ওপর ড্রোনের নজরদারির ভিডিও প্রকাশ করেছে। শুক্রবার ইসলামী রেভ্যুলুশনারি গার্ড কর্পসের (আইআরজিসি) প্রকাশ করা ভিডিওতে বলা হয়েছে, ড্রোনের এই ভিডিও ফুটেজ ওয়াশিংটনের মিথ্যাচারিতার উচিত জবাব।

বৃহস্পতিবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দাবি করেন, ‘আমেরিকার নৌবাহিনী ইরানের একটি ড্রোন ভূপাতিত করেছে। হরমুজ প্রণালীতে নিরাপত্তা ঝুঁকি তৈরি করার কারণে ইরানের ওই ড্রোনটি ভূপাতিত করে ইউএসএ-বক্সার।’ তিনি আরও বলেন, শত্রুপক্ষের হামলা মোকাবেলা করার জন্য উপসাগরে টহলরত ইউএসএ-বক্সার প্রতিরক্ষামূলক পদক্ষেপের অংশ হিসেবে ইরানের একটি আকাশযান ধ্বংস করেছে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×