কাশ্মীর ক্ষতে ৫০ হাজার চাকরির ‘মলম’ দিল্লির

উপত্যকায় উন্নয়নের নকশা তৈরিতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা কমিটি গঠন * এবার খুলল হাইস্কুলগুলো শিক্ষার্থী নেই * অভ্যন্তরীণ বিষয়ে সহিংসতা উসকে দিচ্ছে পাকিস্তান : রাহুল * ইয়েচুরিকে প্রবেশে অনুমতি সুপ্রিমকোর্টের

  যুগান্তর ডেস্ক ২৯ অগাস্ট ২০১৯, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ছবি: এএফপি

জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করে সৃষ্ট ক্ষতে এবার মলম মালিশ করার পরিকল্পনা আটছে নরেন্দ্র মোদি সরকার। কাশ্মীরি তরুণদের জন্য ৫০ হাজার চাকরির টোপ ফেলতে যাচ্ছে ক্ষমতাসীন বিজেপি। অর্থনীতি বিষয়ক মন্ত্রিসভার কমিটি বুধবার সন্ধ্যায় এ বিষয়ে আলোচনার জন্য বৈঠকে বসে।

২ থেকে ৩ মাসের মধ্যেই এ চাকরি দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন রাজ্য গভর্নর সত্য পাল মালিক। এদিকে, জম্মু ও কাশ্মীরের উন্নয়নের নীলনকশা প্রকাশের জন্য মোদি সরকার একটি মন্ত্রিসভা কমিটি গঠন করেছে। তারা ওই রাজ্যের জন্য একটি বিশেষ অর্থনৈতিক প্যাকেজ তৈরি করবে।

এনডিটিভি জানায়, কাশ্মীরের জন্য কেন্দ্রীয় পরিকল্পনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ইতিমধ্যে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারা উপত্যকায় গেছেন।

কয়েকটি সূত্র বলছে, সরকারের আরোপিত সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে কোটি রুপি প্রকল্পের কয়েকটি অবকাঠামো উন্নয়নের পরিকল্পনাও নেয়া হচ্ছে। রাজ্য গভর্নর জানান, ৫০ হাজার কর্মসংস্থানের পাশাপাশি বাণিজ্যিক বিনিয়োগ বাড়ানোর দিকেও নজর দিচ্ছে ভারত সরকার।

সেনাবাহিনী এবং আধা সামরিক বাহিনীতেও কাশ্মীরি তরুণদের যোগ দিতে বলা হয়েছে। এদিকে, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদকে সভাপতি করে জম্মু ও কাশ্মীর সম্পর্কিত কমিটি গঠন করেছে সরকার।

এ কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন, থাওয়ার চন্দ্র গেহলট, জিতেন্দ্র সিং, ধর্মেন্দ্র প্রধান এবং নরেন্দ্র তোমার। জম্মু-কাশ্মীর এবং লাদাখ এ দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে কার্যকর হওয়ার এক দিন আগে ৩০ অক্টোবরের মধ্যে মন্ত্রীদের এ বিষয়ে প্রতিবেদন জমা দিতে হবে।

কাশ্মীরের পরিবেশ স্বাভাবিক করতে এবার উচ্চবিদ্যালয়গুলোও খুলে দেয়া হয়েছে। তিন সপ্তাহের বেশি সময় বন্ধ থাকার পর বুধবার সেগুলো খুলেছে। তবে শিক্ষার্থী উপস্থিতি ছিল একেবারেই নগণ্য। শিক্ষক, কর্মকতারাও ছিলেন হাতেগোনা।

এদিন কাশ্মীর ইস্যুতে সুপ্রিমকোর্টের এক রায়ে সিপিএম নেতা সীতারাম ইয়েচুরিকে কাশ্মীর সফরে যাওয়ার অনুমতি দেয়া উচিত বলে জানানো হয়েছে। একই সঙ্গে যে আইন পড়ুয়া তার পিতামাতার সঙ্গে দেখা করতে কাশ্মীরে যাওয়ার অনুমতি চেয়েছিল তাকেও উপত্যকায় প্রবেশের অনুমতি দিয়েছেন সর্বোচ্চ আদালত।

বুধবার ৩৭০ ধারা বাতিলের বিরুদ্ধে শুনানি শেষে সুপ্রিমকোর্ট জানান, ‘আবেদনকারী শিক্ষার্থী মোহাম্মদ আলেম সাইদকে অনন্তনাগে গিয়ে বাবা-মায়ের সঙ্গে দেখা করতে দিতে হবে এবং ফিরে আসার পরে একটি হলফনামা দাখিল করতে হবে।

দলীয় সহকর্মী মোহাম্মদ ইউসুফ তারিগামীর সঙ্গে সাক্ষাতের অনুমতির চান ইয়েচুরি। এ বিষয়ে প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ বলেন, আমরা আপনাকে এ অনুমতি দেব। আপনি শুধু আপনার বন্ধুর সঙ্গেই দেখা করতে যাচ্ছেন তো? এ দেশের এক নাগরিক তার বন্ধুর সঙ্গে দেখা করতে চান। এতে অসুবিধা কোথায়?

কাশ্মীর ইস্যুতে ভারত সরকারের পক্ষ নিয়ে পাকিস্তানের সমালোচনা করেছে কংগ্রেসের সাবেক সভাপতি রাহুল গান্ধী। তিনি এক টুইট বার্তায় জোর দিয়ে জানিয়েছেন, কাশ্মীর ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় এবং জম্মু-কাশ্মীরে হিংসা উসকে দিয়েছে পাকিস্তান।

রাহুল বলেন, অনেক বিষয়েই সরকারের সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করেছেন তিনি। তবে তিনি একেবারে পরিষ্কার জানাতে চান, এ হিংসার পেছনে লাগাতার উসকানি দিয়ে চলেছে প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তান। শনিবার রাহুলকে কাশ্মীরে প্রবেশে বাধা দেয়া হয় এবং শ্রীনগর বিমানবন্দর থেকেই তাকে ফিরিয়ে দেয়া হয়।

রাহুলের এমন মন্তব্যের জবাবে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভরেকড় বলেন, কাশ্মীর নিয়ে মন্তব্য করে দেশকে অপমান করেছেন রাহুল গান্ধী। আজ রাহুল বলেছেন, কাশ্মীর একটি অভ্যন্তরীণ বিষয় এবং অশান্তিতে পাকিস্তানের যোগ রয়েছে, পুরোপুরি ভোল বদল, কেন?’

ঘটনাপ্রবাহ : কাশ্মীর সংকট

আরও

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত