আরও বেশি সেনা মারার হুমকি

তালেবান-মার্কিন শান্তি আলোচনা বাতিল

  যুগান্তর ডেস্ক ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের শান্তি আলোচনা বাতিলের সিদ্ধান্তে আরও বেশি মার্কিনির প্রাণ যাবে বলে হুশিয়ারি দিয়েছে তালেবান। রোববার যুক্তরাষ্ট্র যখন আফগানিস্তানে জঙ্গিদের ওপর সামরিক চাপ অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছিল, তখন তালেবানের কাছ থেকে এ প্রতিক্রিয়া আসে বলে জানিয়েছে রয়টার্স।
ছবি: এএফপি

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের শান্তি আলোচনা বাতিলের সিদ্ধান্তে আরও বেশি মার্কিনির প্রাণ যাবে বলে হুশিয়ারি দিয়েছে তালেবান। রোববার যুক্তরাষ্ট্র যখন আফগানিস্তানে জঙ্গিদের ওপর সামরিক চাপ অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছিল, তখন তালেবানের কাছ থেকে এ প্রতিক্রিয়া আসে বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

প্রায় ২০ বছর ধরে চলা আফগান যুদ্ধ অবসানে কয়েক সপ্তাহ ধরে কাতারের দোহায় তালেবান ও মার্কিন প্রতিনিধিদের মধ্যে আলোচনা চলছিল। দুই পক্ষের মধ্যে চূড়ান্ত চুক্তির ঠিক আগে শনিবার হঠাৎ এক সিদ্ধান্তে শান্তি আলোচনা বাতিল করেন ট্রাম্প।

এদিন এক টুইটে ট্রাম্প বলেন, ৮ সেপ্টেম্বর ক্যাম্প ডেভিডে তালেবান নেতাদের সঙ্গে এক গোপন বৈঠকের ব্যবস্থা করা হয়েছিল। আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানির সঙ্গেও বৈঠকের পরিকল্পনা করেন ট্রাম্প।

কিন্তু গত বৃহস্পতিবার কাবুলে তালেবানের আত্মঘাতী বোমা হামলায় মার্কিন সৈন্যসহ ১২ জন নিহত হওয়ায় ওই বৈঠক বাতিল করেন তিনি। তালেবান মুখপাত্র জাবিহউল্লাহ মুজাহিদ শান্তি আলোচনা বাতিল করার সিদ্ধান্তের সমালোচনা করে জানিয়েছেন, ওই সময়ই মার্কিন বাহিনীগুলো আফগানিস্তানে ব্যাপক হামলা শুরু করেছে।

তিনি বলেন, এতে যুক্তরাষ্ট্রের আরও ক্ষতি হবে। তাদের বিশ্বাসযোগ্যতা ক্ষুণœ হবে। তাদের শান্তিবিরোধী অবস্থান বিশ্বের কাছে প্রকাশ পাবে। জীবন ও সম্পদহানি বৃদ্ধি পাবে। ওয়াশিংটনে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও জানান, আফগান শান্তি আলোচনা স্থগিত আছে।

তালেবান উল্লেখযোগ্য প্রতিশ্রুতিগুলো মেনে চলছে- এটি নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত ওয়াশিংটন আফগান সৈন্যদের দেয়া মার্কিন সামরিক সমর্থন হ্রাস করবে না। রোববার এক টেলিভিশন অনুষ্ঠানে পম্পেও আরও জানিয়েছেন, সামনে এগিয়ে যাওয়ার রূপরেখা প্রণয়নের জন্য যুক্তরাষ্ট্র আফগানিস্তান বিষয়ক তাদের বিশেষ দূত জালমে খলিলজাদকে ডেকে পাঠিয়েছে। প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী থাকার সময় থেকেই আফগানিস্তানের যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের ভূমিকায় ইতি টানতে চাইছিলেন ট্রাম্প।

সম্প্রতি তালেবানের কাছ থেকে নিরাপত্তা প্রতিশ্রুতির বিনিময়ে আফগানিস্তান থেকে কয়েক হাজার সৈন্য প্রত্যাহারের পরিকল্পনা করেছিল যুক্তরাষ্ট্র। এ লক্ষ্যে তালেবানদের সঙ্গে কয়েক মাস ধরে আলোচনা চালিয়ে আসছিলেন মার্কিন কূটনীতিকরা। দুই পক্ষ খসড়া চুক্তির বিষয়েও সমঝোতায় পৌঁছেছিল।

ক্যাম্প ডেভিডে ট্রাম্পের সঙ্গে তালেবান নেতাদের বৈঠকে চুক্তিটি চূড়ান্ত হওয়ার কথা ছিল।

তালেবান নেতাদের ক্যাম্প ডেভিডে আমন্ত্রণ জানানোর যে সিদ্ধান্ত ট্রাম্প নিয়েছিলেন, তা নিয়ে সব মহলেই তীব্র সমালোচনা হচ্ছে। রিপাবলিকান কংগ্রেস সদস্য ও সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট ডিক চেনির মেয়ে লিজ চেনি বলেছেন, ক্যাম্প ডেভিড হল সেই স্থান, যেখানে মার্কিন নেতারা গুরুত্বপূর্ণ জাতীয়-আন্তর্জাতিক বিষয়ে আলাপ-আলোচনার জন্য ব্যবহার করেন। সেখানে তালেবানদের ডেকে আনার প্রশ্নই ওঠে না।

রিপাবলিকান কংগ্রেস সদস্য অ্যাডাম কিনজিঙ্গার বলেছেন, যারা আল কায়েদার মতো সন্ত্রাসী দলকে আশ্রয় ও মদদ দিয়েছে, সেই তালেবানদের যুক্তরাষ্ট্রে পা ফেলার অনুমতি দেয়া কখনই উচিত নয়।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×