ক্ষমতায় থাকতে বরিস এখন বিচ্ছেদ চাচ্ছেন

মুখ খুললেন ক্যামেরন

  যুগান্তর ডেস্ক ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

শুরুর দিকে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেনের বিচ্ছেদ (ব্রেক্সিট) চাননি ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। কিন্তু এখন ব্রেক্সিটের জন্য মরিয়া তিনি। চুক্তি হোক বা না হোক যে কোনো পরিস্থিতিতে ইইউ থেকে বেরিয়ে আসতে চাচ্ছেন। এটা তিনি করছেন স্রেফ নিজের রাজনীতি ও ক্ষমতায় টিকে থাকার স্বার্থে।
ছবি: এএফপি

শুরুর দিকে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেনের বিচ্ছেদ (ব্রেক্সিট) চাননি ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। কিন্তু এখন ব্রেক্সিটের জন্য মরিয়া তিনি। চুক্তি হোক বা না হোক যে কোনো পরিস্থিতিতে ইইউ থেকে বেরিয়ে আসতে চাচ্ছেন। এটা তিনি করছেন স্রেফ নিজের রাজনীতি ও ক্ষমতায় টিকে থাকার স্বার্থে।

নিজের লেখা স্মৃতিচারণামূলক বইয়ে ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির নেতা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী বরিসকে এভাবেই সমালোচনার তীরে বিঁধেছেন সাবেক ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন। খবর এএফপির।

২০১৬ সালে ব্রেক্সিট গণভোটের আগে ব্রেক্সিটের বিপক্ষে ছিলেন ক্যামেরন। ইইউতে থাকার পক্ষে প্রচারণা চালান তিনি। কিন্তু সেই সময় ক্যামেরনের বিরোধিতা করে ব্রেক্সিটের বিপক্ষে ছিলেন বরিস। সে সময়কার রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট নিয়ে স্মতিকথা ‘ফর দ্য রেকর্ড’ লিখেছেন ক্যামেরন। রোববার সানডে টাইমস পত্রিকায় স্মৃতিকথাটির সারমর্ম তুলে ধরা হয়েছে।

সেখানে ক্যামেরন বলেছেন, ২০১৬ সালে বিচ্ছেদের পক্ষে প্রচারণা চালান বরিস। এ জন্য ব্রিটিশ জনগণের কাছে অনেক মিথ্যাও বলেছেন তখন। কিন্তু এখন দলের ‘প্রিয়পাত্র’ সাজতে ব্রেক্সিট চাচ্ছেন তিনি।

বরিসের সঙ্গে আরেক নেতা ও মন্ত্রী মাইকেল গভকে মিথ্যা ও ছলনার আশ্রয় নেয়ার জন্য অভিযুক্ত করেছেন ক্যামেরন। বলেছেন, তার একটাই গুণ। আমার প্রতি অনানুগত্য। পরে বরিসের প্রতিও। ব্রেক্সিট ইস্যুতে ব্রিটেনের রাজনৈতিক সংকট নিয়ে প্রথমবারের মতো মুখ খুললেন ক্যামেরন।

তিনি বলেছেন, ব্রেক্সিট ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রী বরিসের কৌশলের সঙ্গে আমি একমত নই। আমি এখনও বিশ্বাস করি, ব্রেক্সিট ইস্যুতে দ্বিতীয় গণভোটের আয়োজন করা এখন সম্ভব। শুক্রবার টাইমসকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, আমি ব্রেক্সিট নিয়ে কোনো পদক্ষেপ সমর্থন করি না।

‘নো ব্রেক্সিট ডিল’ কোনো ভালো ধারণা নয়। তিনি বলেন, ব্রেক্সিটের গণভোট আয়োজন করায় কিছু মানুষ আমাকে কখনোই ক্ষমা করবে না। কারণ সবার সমর্থন ছিল না। তিনি আরও বলেন, গণভোটের প্রচারণা থেকেই বরিস জনসন ও মাইকেল গোভের আচরণ আতঙ্কজনক।

ক্যামরন আরও জানিয়েছেন, বরিসকে ব্রেক্সিট প্রচারণা থেকে ফেরাতে চেষ্টা করেছিলেন তিনি। এমনকি বিনিময়ে তাকে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বও দিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তারপরও নিজের সিদ্ধান্তেই অটল ছিলেন বরিস।

ক্যামরন বলেন, এক সময় তিনি যা নিজেই বিশ্বাস করেননি এখন সেটাই করতে মরিয়া হয়ে চেষ্টা করছেন। তিনি আরও জানান, মনে মনে দ্বিতীয় গণভোটও চাইতেন বরিস। কিন্তু এখন প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর জনগণের গণভোটের দাবিতে এড়িয়ে যাচ্ছেন তিনি।

ঘটনাপ্রবাহ : ব্রেক্সিট ইস্যু

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×