সুপ্রিমকোর্টে শুনানি

ব্রেক্সিটে এমপিদের থামাতে পার্লামেন্ট স্থগিত করেন বরিস

  যুগান্তর ডেস্ক ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ব্রেক্সিটে এমপিদের থামাতে পার্লামেন্ট স্থগিত করেন বরিস

ব্রেক্সিট (ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেনের বিচ্ছেদ) সম্পাদনে নিজের পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্যই পার্লামেন্ট স্থগিত করেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।

এমপিরা যাতে তার ব্রেক্সিট পরিকল্পনায় বাধা দিতে না পারেন সেজন্যই এই কৌশলের আশ্রয় নেন তিনি। পার্লামেন্ট স্থগিত প্রশ্নে মঙ্গলবার সুপ্রিমকোর্টের এক শুনানিতে বিচারকদের এসব কথা বলেছেন এমপিদের পক্ষের আইনজীবীরা।

তারা আরও বলেন, এমপিদের বাধা হিসেবে দেখেছেন প্রধানমন্ত্রী। আর এজন্য শুরুতেই তাদের থামিয়ে দিতে চেয়েছেন তিনি। তবে এক সরকারি আইনজীবী বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী বরিসকে পার্লামেন্ট ভেঙে দিতে বলা হয়েছে। এটা আদালতের দেখার বিষয় নয়। খবর বিবিসির।

চুক্তি হোক বা না হোক আগামী ৩১ অক্টোবরের মধ্যেই ব্রেক্সিট কার্যকরে অটল বরিস। এ কারণে ৫ সপ্তাহের জন্য পার্লামেন্ট ভেঙে দেন তিনি। বরিসের এই সিদ্ধান্তকে গত সপ্তাহে বেআইনি বলে রায় দিয়েছেন স্কটল্যান্ডের সর্বোচ্চ আদালত।

এর আগে লন্ডনের হাইকোর্ট জনসনের পার্লামেন্ট স্থগিতকে বৈধ বলে রায় দেন। মঙ্গলবার এ দুই রায়ের বিরুদ্ধেই আপিলের শুনানি প্রক্রিয়া শুরু করে সুপ্রিমকোর্ট। সরকারের আবেদন ছিল স্কটিশ আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে। আর লন্ডন হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে আবেদন ছিল এক ব্যবসায়ী নারী ও প্রচারকর্মী গিনা মিলারের।

বিচারকরা বৃহস্পতিবার পর্যন্ত তিন দিন দুই আপিলে উভয়পক্ষের বক্তব্য শুনবেন। এরপর শুক্রবার রায় ঘোষণা করা হতে পারে। পর্যবেক্ষকরা বলছেন, কয়েক শতাব্দীর মধ্যে এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুর নিষ্পত্তি হতে চলেছে সুপ্রিমকোর্টে।

এর পরিণতি হতে পারে খুবই গুরুতর। কোর্ট জনসনের বিপক্ষে রায় দিলে পার্লামেন্ট অধিবেশন ফের শুরু হতে পারে। বরিস জনসন তার সিদ্ধান্ত সঠিক- এ যুক্তিতেই অটল আছেন।

আদালতের শুনানিতে বলা হয়েছে, জনসন তার ব্রেক্সিট পরিকল্পনায় এমপিদের ‘বিরোধিতা’ এবং ‘নস্যাৎ করার’ ঝুঁকি এড়াতেই পার্লামেন্ট স্থগিত ঘোষণা করেছেন।

অন্যদিকে অভিযোগকারী এমপিদের বক্তব্য, প্রধানমন্ত্রী এমপিদের তার পরিকল্পনার পথে ‘বাধা হিসেবেই দেখেন’ এবং তিনি তাদের ‘চুপ করিয়ে রাখতে চান’। গত ১০ সেপ্টেম্বর যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্ট পরবর্তী পাঁচ সপ্তাহের জন্য মুলতবি ঘোষণা করা হয়।

ওই দিনই প্রতিনিধি পরিষদে এমপিরা অভিনব কায়দায় এর প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন। পার্লামেন্ট স্থগিতাদেশের বিরুদ্ধে সুপ্রিমকোর্টের দ্বারস্থ হওয়ার ঘোষণাও ওই দিনই এসেছিল।

ঘটনাপ্রবাহ : ব্রেক্সিট ইস্যু

আরও
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×