চুক্তিহীন ব্রেক্সিট ছাড়া পথ নেই: বরিস

  যুগান্তর ডেস্ক ০২ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

চুক্তিহীন ব্রেক্সিট ছাড়া আর কোনো বিকল্প নেই বলে জানিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) সঙ্গে একটি চুক্তিতে পৌঁছাতে আইরিশ সীমান্ত ইস্যুটি (ব্যাকস্টপ) এড়িয়ে যাওয়ার অনুরোধ জানান তিনি।
ছবি: সংগৃহীত

চুক্তিহীন ব্রেক্সিট ছাড়া আর কোনো বিকল্প নেই বলে জানিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) সঙ্গে একটি চুক্তিতে পৌঁছাতে আইরিশ সীমান্ত ইস্যুটি (ব্যাকস্টপ) এড়িয়ে যাওয়ার অনুরোধ জানান তিনি।

কিন্তু তাৎক্ষণিক সেই অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করেছে ইইউ। মঙ্গলবার বিবিসি টিভির বিবিসি ব্রেকফাস্ট প্রোগ্রামে বরিস বলেন, ‘ইইউ’র সঙ্গে চুক্তিতে পৌঁছাতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছেন তিনি। কিন্তু তারা কোনো ছাড় দেয়নি। এখন যুক্তরাজ্যের সামনে ৩১ অক্টোবর চুক্তি ছাড়াই বিচ্ছেদ ছাড়া কোনো বিকল্প পথ নেই।’

ব্রিটেনকে জোটে রাখার কোনো ধরনের চেষ্টা করলে ইইউ চরম ভুল করবে বলেও হুশিয়ারি দেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী। আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই ইইউকে চূড়ান্ত প্রস্তাব পাঠাবেন বলেও জানিয়েছেন তিনি।

‘ব্যাকস্টপ’ হল, বিচ্ছেদের পর ইইউ সদস্যভুক্ত স্বাধীন আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে যুক্তরাজ্যের অংশ নর্দান আয়ারল্যান্ডের সীমান্ত উন্মুক্ত রাখার নিশ্চয়তা। এর ফলে নর্দান আয়ারল্যান্ডকে ইইউ আইনের অধীনে থাকতে হবে।

এ ধারার বিরোধীরা বলছেন, এতে আইনগতভাবে নর্দান আয়ারল্যান্ড যুক্তরাজ্যের বাকি অংশ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে। ইইউ ব্যাকস্টপের ক্ষেত্রে কোনো ছাড় দিতে চাইছে না।

আইরিশ সীমান্ত নিয়ে তিনি বলেন, বিচ্ছেদ কার্যকরের পর আয়ারল্যান্ড সীমান্তে কাস্টমস চেক প্রয়োজন হবে। তবে ৫ থেকে ১০ মাইল দূরে দূরে সীমান্ত চেক বসানোর মতো কড়াকাড়ি করার বিষয়টি অস্বীকার করেছেন তিনি।

বরিস বলেন, ‘একটি সার্বভৌম দেশের অবশ্যই একক কাস্টমস অঞ্চল থাকতে হবে।’ এর বিস্তারিত না বলে বরিস জানান, খুব শিগগিরই আমরা আমাদের প্রস্তাব আলোচনার টেবিলে তুলতে যাচ্ছি।

আগামী ১৭ ও ১৮ অক্টোবর ব্রাসেলসে ইইউ সম্মেলন শুরু হচ্ছে। এখানে ব্রেক্সিট চুক্তি পাস করানোর জোর চেষ্টা করবেন বরিস। চুক্তির পক্ষে ইইউ’র সমর্থন না মিললে পরের দিন চুক্তিহীন বিচ্ছেদ এড়াতে চাইলে ব্রেক্সিটের সময়সীমা বাড়ানোর অনুরোধ করতে হবে প্রধানমন্ত্রীকে।

যদিও চুক্তি হোক বা না হোক আগামী ৩১ অক্টোবরই বিচ্ছেদ বাস্তবায়নের জোর ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

ইইউকেও হুশিয়ারি দিয়ে এদিন বরিস বলেন, ব্রেক্সিট কার্যকরের ক্ষেত্রে আরও সময়সীমা বাড়াতে যুক্তরাজ্যকে বাধ্য করা হলে চরম ভুল করবে ইইউ। আর এতে ব্রিটেনকে ভোগান্তি পোহাতে হবে।

সম্প্রতি আদালতে বড়সড় ধাক্কা খেয়েছেন বরিস। পাঁচ সপ্তাহের জন্য পার্লামেন্ট স্থগিত করার নির্দেশ বেআইনি বলে ঘোষণা করেছেন দেশটির সুপ্রিমকোর্ট। ফলে নৈতিকভাবে জনসনের পদত্যাগের দাবি জানিয়েছেন বিরোধীরা। ব্রেক্সিট জট ছুটাতেও হিমশিম খাচ্ছেন।

এরইমধ্যে জনসনের বিরুদ্ধে অতীতে কয়েকজন নারীর সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে অভিযোগ উঠেছে। এতে তদন্তের মুখে পড়েছেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে নতুন অভিযোগ ব্রিটিশ শাসকদলের জন্য পরিস্থিতি আরও জটিল করে তুলবে বলে মনে করা হচ্ছে।

ঘটনাপ্রবাহ : ব্রেক্সিট ইস্যু

আরও
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×