পর্যটকদের জন্য খুলল কাশ্মীর

৬৪ দিনে বন্দি থাকা তিন কাশ্মীরি নেতাকে মুক্তি * বাস্তুচ্যুত ৫,৩০০ কাশ্মীরি পরিবারকে সাড়ে ৫ লাখ রুপি ক্ষতিপূরণ ঘোষণা

  যুগান্তর ডেস্ক ১১ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

দুই মাসেরও বেশি সময় পর পর্যটকদের জন্য খুলে দেয়া হল জম্মু-কাশ্মীর। গত ৫ আগস্ট জম্মু-কাশ্মীরের ওপর থেকে ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের পর পর্যটক এবং তীর্থযাত্রীদের কাশ্মীর ছেড়ে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছিল প্রশাসন। তারপর থেকেই পর্যটকদের জন্য কাশ্মীরে প্রবেশ নিষিদ্ধ ছিল।
ছবি: সংগৃহীত

দুই মাসেরও বেশি সময় পর পর্যটকদের জন্য খুলে দেয়া হল জম্মু-কাশ্মীর। গত ৫ আগস্ট জম্মু-কাশ্মীরের ওপর থেকে ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের পর পর্যটক এবং তীর্থযাত্রীদের কাশ্মীর ছেড়ে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছিল প্রশাসন। তারপর থেকেই পর্যটকদের জন্য কাশ্মীরে প্রবেশ নিষিদ্ধ ছিল।

মঙ্গলবার গভর্নর সত্যপাল মানিকের নির্দেশনা অনুযায়ী বৃহস্পতিবার থেকে ভূস্বর্গখ্যাত কাশ্মীরের দরজা খুলে গেছে বলে জানিয়েছে এনডিটিভি। এদিকে দীর্ঘ ৬৪ দিন বন্দি থাকা তিন কাশ্মীরি নেতাকে এদিন মুক্তি দিয়েছে জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসন।

সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কায় আগস্টের শুরুতে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার সতর্কতা জারি করলে হাজার হাজার পর্যটক, শ্রমিক, শিক্ষার্থী ও তীর্থযাত্রী এলাকাটি ছেড়ে যান। সে সময় উপত্যকাটিতে ২০ থেকে ২৫ হাজার পর্যটক ছিলেন বলে ভারতের পর্যটন বিভাগের কর্মকর্তারা বলেছিলেন।

কেবল ৩ আগস্টই কাশ্মীর থেকে ফিরে যায় ৬ হাজারেরও বেশি পর্যটক। সহিংসতার আশঙ্কায় বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকে গৃহবন্দি করার পাশাপাশি পাঠানো হয় বাড়তি সেনা। ইন্টারনেট ও টেলিফোন সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়ার পর ৫ আগস্ট নরেন্দ্র মোদির সরকার সংবিধানে কাশ্মীরকে দেয়া বিশেষ মর্যাদা বাতিল করে সেটিকে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করে দেয়।

অবরুদ্ধ কাশ্মীরের বাসিন্দাদের ওপর আরোপ করা হয় নানান বিধিনিষেধ। সেই থেকে ভূস্বর্গখ্যাত উপত্যকাটি ছিল পর্যটকশূন্য। সম্প্রতি সরকার কাশ্মীরের ওপর থেকে বেশকিছু বিধিনিষেধ প্রত্যাহার করে নিলেও বেশির ভাগ এলাকার ইন্টারনেট ও টেলিফোন যোগাযোগব্যবস্থা এখনও সচল হয়নি।

পর্যটন বিভাগ জানিয়েছে, চলতি বছরের জুনেই কাশ্মীর ঘুরে গেছেন প্রায় পৌনে দুই লাখ পর্যটক। জুলাইয়ে এ সংখ্যা কিছুটা কমে ছিল দেড় লাখ। এছাড়া জুলাইয়ে ভ্রমণ করেছেন ১ লাখ ৫২ হাজার পর্যটক, যার মধ্যে তিন হাজার ৪০৩ জন বিদেশি পর্যটক। রমরমা সেই অবস্থার বিপরীত চিত্র এখন উপত্যকাটির বিভিন্ন পর্যটন কেন্দ্র, হোটেল ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে।

বৃহস্পতিবার থেকে দ্বার খুললেও ব্যাপক সেনা অধ্যুষিত অঞ্চলটি আগের মতো পর্যটক পাবে কিনা, তা নিয়েও শঙ্কা অনেকের। কর্তৃপক্ষ অবশ্য পর্যটকদের সব ধরনের সহযোগিতা দেয়ার আশ্বাস দিয়েছে।

এদিন কাশ্মীরের তিন নেতা পিপলস ডেমোক্রেটিক পার্টির (পিডিপি) ইয়াওয়ার মীর, ন্যাশনাল কনফারেন্সের নুর মোহাম্মদ ও কংগ্রেসের শোয়াইব লোনকে মুক্তি দিয়েছে কাশ্মীর প্রশাসন।

উপত্যকায় শান্তি বজায় রাখবেন এবং ভালো আচরণ করবেন- এই শর্তে মুচলেকায় স্বাক্ষর করেছেন নুর মোহাম্মদ। এদিকে পাক-অধিকৃত কাশ্মীর থেকে বাস্তুচ্যুত ৫,৩০০ পরিবারকে সাড়ে ৫ লাখ রুপি ক্ষতিপূরণ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিল কেন্দ্রীয় সরকার।

বুধবার এই সংক্রান্ত প্রস্তাব অনুমোদন করেছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা। বৃহস্পতিবার তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়কের সাংবাদিক বৈঠকে মন্ত্রিসভার এ সিদ্ধান্তের কথা জানান। ১৯৪৭ সালে পাকিস্তানি বাহিনীর আগ্রাসনের সময় এসব পরিবার প্রাথমিকভাবে জম্মু-কাশ্মীর ছেড়ে দেশের অন্যান্য অঞ্চলে চলে আসতে বাধ্য হয়েছিল।

ঘটনাপ্রবাহ : কাশ্মীর সংকট

আরও
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×