প্রথম পাতা কালো কালিতে ঢেকে প্রতিবাদ

সংবাদমাধ্যমে সরকারি হস্তক্ষেপের বিরুদ্ধে সব পত্রিকা একজোট

  যুগান্তর ডেস্ক ২২ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সংবাদমাধ্যমের ওপর সরকারের হস্তক্ষেপের বিরুদ্ধে এবার সরব হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার প্রধান প্রধান সংবাদপত্রগুলো। সোমবার দেশটির শীর্ষস্থানীয় সবক’টি পত্রিকার প্রথম পৃষ্ঠা ছিল কালো কালিতে ঢাকা। ওপর ডান পাশে লাল রঙের একটি সিল মেরে দেয়া হয়েছে। ওই সিলের মধ্যে সাদা হরফে লেখা রয়েছে ‘সিক্রেট’ বা ‘গোপনীয়’। সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতাকে সীমিত করে সাম্প্রতিক এক আইনের প্রতিবাদে অভিনব এ প্রতিবাদের উদ্যোগ নিয়েছে দেশটির শীর্ষস্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো। বিশ্বজুড়ে সংবাদমাধ্যমের ইতিহাসে একই দিনে সব পত্রিকায় এমন প্রতিবাদ বিরল। বিবিসি, দ্য গার্ডিয়ান, রয়টার্স।

সাংবাদিকরা বলছে, এ আইনের মাধ্যমে সংবাদপত্রের টুঁটি চেপে ধরার পাশাপাশি অস্ট্রেলিয়ায় ‘গোপনীয়তার সংস্কৃতি’ চালু করা হয়েছে। সরকার বলছে, তারা গণমাধ্যমের স্বাধীনতার পক্ষে, তবে ‘কেউই আইনের ঊর্ধ্বে নয়’। প্রতিবাদ শুধু পত্রিকার পাতার মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকেনি। রেডিও-টেলিভিশন, অনলাইন সংবাদমাধ্যমগুলোও সমর্থন দিয়েছে সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা রক্ষার অভিনব এ কর্মসূচিতে। বাদ যায়নি অস্ট্রেলিয়ান ফিন্যান্সিয়াল রিভিউ, সরকারি অর্থে পরিচালিত ওয়েবসাইট অস্ট্রেলিয়ান ব্রডকাস্টিং কর্পোরেশনের (এবিসি) মতো সংবাদমাধ্যমগুলোও। অনুষ্ঠানের ফাঁকে ফাঁকে তারাও এ সংক্রান্ত বার্তা প্রচার করছে। তাদের সম্মিলিত এ প্রচারণার নাম দেয়া হয়েছে ‘রাইট টু নো কোয়ালিশন’ বা জানার অধিকারবিষয়ক জোট।

প্রতিষ্ঠানগুলো চাইছে, এ ধরনের প্রতিবাদের মধ্য দিয়ে সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা ক্ষুণ্ণ হয় এমন আইন বাতিলে সরকারের ওপর যেন চাপ তৈরি করা যায়। জনগণের পক্ষ থেকেই যেন এ চাপ অনুভব করতে পারে কর্তৃপক্ষ। গুরুত্বপূর্ণ সরকারি তথ্যপ্রাপ্তির ক্ষেত্রে বিদ্যমান প্রতিবন্ধকতা দূরীকরণের পাশাপাশি স্বাধীন সাংবাদিকতার উপযোগী পরিবেশ যেন নিশ্চিত করা হয়। মানহানি মামলার ক্ষেত্রে যেন একটি নির্দিষ্ট মানদণ্ড থাকে।

এক বিবৃতিতে এ কর্মসূচি নিয়ে কথা বলেছেন নাইন এন্টারটেইনমেন্টের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) হাগ মার্কস। তিনি বলেন, ‘সরকার জনগণের নামে যেসব গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিচ্ছে, তা সম্পর্কে জনগণের জানার অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্যই এ পদক্ষেপ।’ বাকস্বাধীনতার সাংবিধানিক সুরক্ষাকবচ না থাকায় অস্ট্রেলিয়ায় সাংবাদিকদের তথ্য বা প্রতিবেদন প্রকাশে এমনিতেই নানা প্রতিবন্ধকতার মধ্য দিয়ে যেতে হয়। যথাযথ সংবাদ প্রকাশ করেও রাষ্ট্রযন্ত্রের হয়রানির মুখে পড়তে হয় সাংবাদিকদের। বিশেষ করে সংবাদের সোর্স বা সূত্র নিয়ে বিপাকে পড়তে হয় তাদের। পড়তে হয় আইনি জটিলতার মুখে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×