স্পেনে ঝুলন্ত পার্লামেন্ট

নির্বাচনে ক্ষমতাসীনরা জয়ী হলেও একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি কট্টর ডানপন্থীদের উত্থান

  যুগান্তর ডেস্ক ১২ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

স্পেনের সাধারণ নির্বাচনে ক্ষমতাসীন সোশ্যালিস্ট ওয়ার্কার্স পার্টি (পিএসওই) সবচেয়ে বেশি আসনে জয় পেলেও একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি। কট্টর ডানপন্থী ভক্সের আসন সংখ্যা দ্বিগুণ হয়ে দলটি তৃতীয় রাজনৈতিক শক্তি হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে। রোববারের নির্বাচনের ফলাফলে রক্ষণশীল পপুলার পার্টি (পিপি) দ্বিতীয় অবস্থানে আছে। কোনো দল একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পাওয়ায় ঝুলন্ত পার্লামেন্ট তৈরি হল দেশটিতে। এছাড়া সমঝোতার সরকার গঠনে দেখা দিয়েছে চরম জটিলতা। খবর রয়টার্স ও বিবিসির।

চার বছরের মধ্যে এটি স্পেনের চতুর্থ সাধারণ নির্বাচন। ২০১৫ সাল থেকেই স্পেন একটি স্থিতিশীল সরকারের অপেক্ষায় আছে। চলতি বছরের এপ্রিলে সর্বশেষ নির্বাচনেও পরিষ্কার সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি কোনো দল। সবচেয়ে বেশি আসন পাওয়া ভারপ্রাপ্ত প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সানচেজের সোশ্যালিস্টরা সরকার গঠনে ব্যর্থ হয়। এ কারণেই আরেকটি নির্বাচন অনিবার্য হয়ে পড়ে।

এবারের নির্বাচনে পার্লামেন্টের ৩৫০টি আসনের মধ্যে সোশ্যালিস্টরা ১২০টি আসন পেয়েছে, যা এপ্রিলের নির্বাচনে পাওয়া আসন থেকে তিনটি কম। আগের নির্বাচনে পিপি ৬৬ আসন পেলেও এবার ৮৮টি আসন পেয়েছে। আর আগের নির্বাচনের মাত্র ২৪টি আসন পাওয়া ভক্স এবার ৫২টি আসনে জয় পেয়ে প্রধান দলগুলোর একটি হয়ে দাঁড়িয়েছে। কাতালান সংকট ভক্সকে নির্বাচনে অভূতপূর্ব ফল করতে সাহায্য করেছে বলে ধারণা বিশ্লেষকদের। কারণ স্পেনের অন্যান্য অঞ্চলের বাসিন্দাদের মধ্যে কট্টর বিচ্ছিন্নতাবাদবিরোধী মনোভাব আছে। তারাই কাতালোনিয়ার স্বাধীনতার কট্টরবিরোধী ভক্সকে সমর্থন জুগিয়েছে বলে ধারণা বিশ্লেষকদের। কর্মসূচির দিক থেকে সোশ্যালিস্ট পার্টির স্বাভাবিক রাজনৈতিক মিত্র বামপন্থী পোদেমোস ৩৫টি আসন পেয়েছে। এ দুই দলের সম্মিলিত আসনও সরকার গঠনের জন্য কাক্সিক্ষত ১৭৬ আসন থেকে অনেক দূরে আছে। অন্যদিকে মধ্য ডানপন্থী ফিউদাদানোস বা নাগরিক দল এ নির্বাচনে ভরাডুবির শিকার হয়েছে। এপ্রিলের নির্বাচনে ৫৭টি আসন পাওয়া দলটি এবার মাত্র ১০টি আসন পেয়েছে।

এবারের নির্বাচনের সার্বিক ফলে সোশ্যালিস্ট নেতা সানচেজ জয় পেলেও পরিস্থিতি তার অনুকূলে নেই। ডানপন্থীদেরও সরকার গঠন করার মতো অবস্থান নেই। এ পরিস্থিতিতে আচলাবস্থা ভাঙতে সানচেজ পিপির সমর্থন নিয়ে সরকার গঠন করতে রাজি হলে আর পিপি তাতে সমর্থন দিলে পরিস্থিতি অন্য দিকে মোড় নিতে পারে। অন্যথায় দেশটিতে চলতি বছরে তৃতীয়বারের মতো নির্বাচন অনুষ্ঠানের পরিস্থিতিও তৈরি হতে পারে। ৬৫ বছর বয়সী ইসাবেল রোমিরো বলেন, এখন নেতাদের সমঝোতায় আসতেই হবে। জনগণ তৃতীয় নির্বাচন চায় না।

এবারের নির্বাচনের প্রচারেও কাতালোনিয়ার সংকটই সবচেয়ে বেশি প্রাধান্য পেয়েছে। ডানপন্থী ভক্স, পিপির পাশাপাশি ফিউদাদানোসও কাতালোনিয়ার বিচ্ছিন্ন হওয়ার চেষ্টার বিরুদ্ধে কট্টর অবস্থান নিয়েছিল। এপ্রিলের নির্বাচনেই মোট ভোটের ১০ শতাংশেরও বেশি পেয়ে নিজেদের উত্থান জানান দিয়েছিল ভক্স। ওই একই নির্বাচনে আরেক ডানপন্থী দল পিপির ভরাডুবি হয়েছিল। নিজেদের নির্বাচনী ইতিহাসে সবচেয়ে বাজে ফল করেছিল তারা।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×