অভিশংসন শুনানি: ঘুষ দেয়ার কথা স্বীকার ট্রাম্পের

  যুগান্তর ডেস্ক ১৬ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

অভিশংসন শুনানি: ঘুষ দেয়ার কথা স্বীকার ট্রাম্পের

যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি বলেছেন, ইউক্রেনকে ঘুষ দিয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ওই কেলেঙ্কারিতে এরই মধ্যে তিনিই স্বীকার করে নিয়েছেন।

যুক্তি দেখিয়ে পেলোসি বলেন, ট্রাম্প দাবি করছেন, ইউক্রেনকে সামরিক সহযোগিতা আটকে তিনি কোনো ‘ভুল কিছু’ করেননি। ‘এর মানে সামরিক সহযোগিতার অর্থ ছাড় করা বা না করার মাধ্যমে তিনি আসলে নির্বাচনে তার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ প্রতিদ্বন্দ্বী জো বাইডেনের বিরুদ্ধে একটা ভুয়া তদন্ত শুরু করতে বাধ্য করতে চাইছিলেন। এটা স্পষ্টতই ঘুষ এবং এর জন্য তিনি অভিশংসনযোগ্য।’ ট্রাম্পের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে অভিশংসন তদন্তের শুনানির মধ্যে বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন ডেমোক্রেটিক নেত্রী পেলোসি। খবর আলজাজিরার।

আগামী বছর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। ওই নির্বাচনে ট্রাম্প তার সম্ভাব্য প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ডেমোক্রেট নেতা জো বাইডেন ও তার ছেলের বিরুদ্ধে দুর্নীতির তদন্ত করতে ইউক্রেইনের প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির জেলেনোস্কিকে টেলিফোনে চাপ দিয়েছেন বলে অভিযোগ আছে।

যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকটি গোয়েন্দা সংস্থা ওই ফোনালাপের তথ্য হাতে পেয়েছে বলে দাবি করেছে। যার ভিত্তিতে সংবিধান লঙ্ঘনের অভিযোগ তুলে ডেমোক্রেট নিয়ন্ত্রিত প্রতিনিধি পরিষদ সেপ্টেম্বরে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিশংসন তদন্তের ঘোষণা দেয়।

গত কয়েক সপ্তাহের রুদ্ধদ্বার শুনানি প্রক্রিয়া চলার পর বুধবার স্থানীয় সময় বেলা ১১টার দিকে প্রতিনিধি পরিষদের গোয়েন্দা কমিটির সামনে অভিশংসন তদন্তের প্রকাশ্য শুনানি শুরু হয়। পেলোসি বলেন, ‘এখন পর্যন্ত প্রেসিডেন্ট কী কী স্বীকার করেছে দেখুন এবং বলেছেন, তিনি সঠিক কাজই করেছেন। আমি বলব, সেগুলো সম্পূর্ণরূপে অন্যায়। ওটা ঘুষ দেয়ার প্রস্তাব ছিল।’

যুক্তরাষ্ট্র ইউক্রেইনকে প্রায় ৩৯ কোটি ১০ লাখ মার্কিন ডলার সামরিক সহায়তা দেয়। দেশের পূর্বাঞ্চলে রাশিয়াপন্থী বিদ্রোহীদের দমনে ব্যবহারের জন্য মিত্র দেশ ইউক্রেইনকে ওই অর্থ দেয়ার অনুমতি দিয়েছে মার্কিন কংগ্রেস। ওই সহায়তা ব্যবহার করে ট্রাম্প নিজের রাজনৈতিক সুবিধার জন্য ইউক্রেইনকে চাপ দিতে চেষ্টা করেছিলেন কিনা এখন সেটাই তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। ইউক্রেইনের প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির জেলেনোস্কির কথোপকথনে সামরিক সহায়তায় বিষয়টি এসেছিল জানিয়ে ট্রাম্প এ বিষয়ে অন্যায় কিছু না করার দাবি করেছেন।

বরং তিনি বলেছেন, সামরিক সাহায্য প্রত্যাহারের কথা বলে আমি শুধু ইউরোপের দেশগুলো থেকে সহায়তার হার বাড়ানোর চেষ্টা করেছিলাম।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×