বাবরি মসজিদ রায় মানছে না মুসলমানরা
jugantor
ছোট খবর
বাবরি মসজিদ রায় মানছে না মুসলমানরা

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৮ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বাবরি মসজিদ রায় মানছে না মুসলমানরা
ছবি: সংগৃহীত

অযোধ্যা মামলার রায় নিয়ে সন্তুষ্ট নয় সর্বভারতীয় মুসলিম ল’ বোর্ড। এক মাসের মধ্যে সুপ্রিমকোর্টে দাখিল করা হবে রিভিউ পিটিশন। রোববার বৈঠকে বসেছিল মুসলিম ল’ বোর্ড।

বৈঠকের পর মুসলিম নেতারা স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, অযোধ্যার বিতর্কিত ২.৭৭ একর জমিতে মন্দির হবে আর মসজিদের জন্য পৃথক পাঁচ একর জায়গা দেয়ার যে রায় দেয়া হয়েছে, তা তারা মানতে পারছেন না। তাই রিভিউ পিটিশন দাখিল করা হবে এবং তা এক মাসের মধ্যেই। টাইমস অব ইন্ডিয়া।

বৈঠক শেষে জামিয়াত উলেমা হিন্দের নেতা মওলানা আরশাদ মাদানি সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, ‘আমরা জানি যে পিটিশন দাখিল করলেই তা খারিজ করে দেয়া হবে। কিন্তু তাও আমরা পিটিশন করব। এটা আমাদের অধিকার।’

৮ নভেম্বর ঐতিহাসিক অযোধ্যা মামলার রায় দিয়েছিলেন সুপ্রিমকোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বাধীন পাঁচ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ।

রায় ঘোষণার পর মামলার অন্যতম পক্ষ সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড স্পষ্ট করে জানিয়েছিল, তারা রিভিউ পিটিশনের পথে হাঁটবে না। অযোধ্যা ইস্যুকে ‘ক্লোজড চ্যাপটার’ বলে উল্লেখ করেছিলেন ওয়াকফ বোর্ডের নেতারা।

কিন্তু এদিন মুসলিম ল’ বোর্ড জানিয়েছে, এমন অনেকে আছেন যারা হয়তো মামলার অংশীদার ছিলেন না; কিন্তু তারা নানাভাবে সাহায্য করেছেন।

তারা চাইছেন রিভিউ পিটিশন দাখিল করা হোক। জামিয়াত উলেমা হিন্দ তাদের মধ্যে অন্যতম

ছোট খবর

বাবরি মসজিদ রায় মানছে না মুসলমানরা

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৮ নভেম্বর ২০১৯, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
বাবরি মসজিদ রায় মানছে না মুসলমানরা
ছবি: সংগৃহীত

অযোধ্যা মামলার রায় নিয়ে সন্তুষ্ট নয় সর্বভারতীয় মুসলিম ল’ বোর্ড। এক মাসের মধ্যে সুপ্রিমকোর্টে দাখিল করা হবে রিভিউ পিটিশন। রোববার বৈঠকে বসেছিল মুসলিম ল’ বোর্ড।

বৈঠকের পর মুসলিম নেতারা স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, অযোধ্যার বিতর্কিত ২.৭৭ একর জমিতে মন্দির হবে আর মসজিদের জন্য পৃথক পাঁচ একর জায়গা দেয়ার যে রায় দেয়া হয়েছে, তা তারা মানতে পারছেন না। তাই রিভিউ পিটিশন দাখিল করা হবে এবং তা এক মাসের মধ্যেই। টাইমস অব ইন্ডিয়া।

বৈঠক শেষে জামিয়াত উলেমা হিন্দের নেতা মওলানা আরশাদ মাদানি সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, ‘আমরা জানি যে পিটিশন দাখিল করলেই তা খারিজ করে দেয়া হবে। কিন্তু তাও আমরা পিটিশন করব। এটা আমাদের অধিকার।’

৮ নভেম্বর ঐতিহাসিক অযোধ্যা মামলার রায় দিয়েছিলেন সুপ্রিমকোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বাধীন পাঁচ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ।

রায় ঘোষণার পর মামলার অন্যতম পক্ষ সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড স্পষ্ট করে জানিয়েছিল, তারা রিভিউ পিটিশনের পথে হাঁটবে না। অযোধ্যা ইস্যুকে ‘ক্লোজড চ্যাপটার’ বলে উল্লেখ করেছিলেন ওয়াকফ বোর্ডের নেতারা।

কিন্তু এদিন মুসলিম ল’ বোর্ড জানিয়েছে, এমন অনেকে আছেন যারা হয়তো মামলার অংশীদার ছিলেন না; কিন্তু তারা নানাভাবে সাহায্য করেছেন।

তারা চাইছেন রিভিউ পিটিশন দাখিল করা হোক। জামিয়াত উলেমা হিন্দ তাদের মধ্যে অন্যতম

 

ঘটনাপ্রবাহ : বাবরি মসজিদ মামলার রায়