নতুন প্রেসিডেন্টের শপথ

নিরাপত্তার আশ্বাস গোতাবায়ার আতঙ্কে লংকান সংখ্যালঘুরা

  যুগান্তর ডেস্ক ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

শ্রীলংকার নতুন প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসে শপথগ্রহণ করেছেন। তাকে শপথবাক্য পাঠ করান প্রধান বিচারপতি জয়ন্ত জয়সুরিয়া। সোমবার অনুরাধাপুরা শহরের একটি প্রাচীন বৌদ্ধমন্দিরে এ শপথ নিয়েই সর্বাগ্রে জাতীয় নিরাপত্তা রক্ষার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন গোতাবায়া। তার বিরুদ্ধে ভোট দেয়া তামিল সংখ্যালঘু এবং মুসলিমদেরও তাকে সমর্থন জানানোর আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। তবে লংকান সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের বহু মানুষ গোতাবায়ার এ বিজয়ে আতঙ্কের মধ্যে রয়েছেন বলে জানিয়েছেন বিবিসির সাংবাদিক জিল ম্যাকগিভারিং।

শপথ অনুষ্ঠানে গোতাবায়া বলেন, ‘সংখ্যাগরিষ্ঠ সিংহলি জনগোষ্ঠী তার জয়ে বড় ভূমিকা রেখেছে। তার পরও দেশের ভবিষ্যৎ উন্নয়নের জন্য নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে তিনি তামিল এবং মুসলিমদেরও সমর্থন আশা করেন।’ এ বছর ইস্টারে শ্রীলংকায় জঙ্গি হামলার পর রাজাপাকসে তার নির্বাচনী প্রচারে মানুষকে নিরাপত্তার আশ্বাস দিয়েছিলেন। তাই শপথ অনুষ্ঠানেও টিভিতে প্রচারিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘দেশের জাতীয় নিরাপত্তা নিশ্চিত করাটাকেই আমি আমার সরকারের প্রথম ও প্রধান দায়িত্ব বলে মনে করি। তাই দেশকে সন্ত্রাস, সংঘটিত অপরাধ কর্মকাণ্ড, ডাকাতি এবং চাঁদাবাজি থেকে বাঁচাতে আমরা রাষ্ট্রের নিরাপত্তা যন্ত্রকে নতুন করে গড়ে তুলব।’

একই সঙ্গে রাজাপাকসে সিংহলি সংস্কৃতি, ঐতিহ্য রক্ষারও প্রতিশ্রুতি দেন। অন্যদিকে, বৈদেশিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে নিরপেক্ষ অবস্থান বজায় রাখা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা বিশ্বশক্তিগুলোর মধ্যকার সংঘাত থেকে দূরে থাকতে চাই। আমি সব দেশকে আমাদের দেশের একতা এবং সার্বভৌমত্বের প্রতি সম্মান রেখে কাজ করার অনুরোধ করছি।

৭০ বছর বয়সী গোতাবায়া শ্রীলংকার গৃহযুদ্ধকালীন প্রতিরক্ষামন্ত্রী এবং সাবেক প্রেসিডেন্ট মাহিন্দা রাজাপাকসের ভাই। তামিল গেরিলাদের পরাস্থ করে তিনি দীর্ঘ বিচ্ছিন্নতাবাদী যুদ্ধের অবসান ঘটিয়ে ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছিলেন। ‘টার্মিনেটর’ নামে পরিচিতি পান তিনি। তার পরিবার তাকে এ উপাধি দিয়েছে। কিন্তু ওই যুদ্ধের পর থেকেই গোতাবায়ার বিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগের কারণে সংখ্যালঘুরা তাকে নিয়ে শঙ্কিত। তামিলদের বিরুদ্ধে অভিযানে ৪০ হাজার তামিল নাগরিককে হত্যার অভিযোগ আছে তার বিরুদ্ধে। এ নিয়ে তিনি প্রশ্নেরও সম্মুখীন হয়েছেন। সংখ্যাগরিষ্ঠ বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের স্বার্থ রক্ষা করে চলেন রাজাপাকসে- এমন দাবি করে এক নারী বলেন, ‘সামনের দিনগুলোতে ব্যাপক সহিংসতা ও সাম্প্রদায়িকতার মুখোমুখি পড়ার শঙ্কায় রয়েছি আমরা।’

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×