জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে লড়াই: ৮৫০৩৮ কোটি টাকা দেয়ার প্রতিশ্রুতি বোজেসের
jugantor
জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে লড়াই: ৮৫০৩৮ কোটি টাকা দেয়ার প্রতিশ্রুতি বোজেসের

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় ১০ বিলিয়ন ডলার (১০০০ কোটি ডলার বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৮৫০৩৮ কোটি ৪০ লাখ টাকা) অর্থ সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন আমাজানের প্রধান নির্বাহী জেফ বোজেস।
ছবি: সংগৃহীত

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় ১০ বিলিয়ন ডলার (১০০০ কোটি ডলার বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৮৫০৩৮ কোটি ৪০ লাখ টাকা) অর্থ সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন আমাজানের প্রধান নির্বাহী জেফ বোজেস।

সোমবার নিজের ইনস্ট্রগ্রামে তার প্রতিশ্রুতির অর্থ সামনের গ্রীষ্মে বণ্টন শুরু হবে বলে জানান। বিবিসি, এপি।

বিশ্বের এ শীর্ষ ধনী বলেন, এই অর্থ জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় দায়িত্বরত বিজ্ঞানী, সক্রিয় কর্মী এবং অন্য গ্রুপগুলোকে সহায়তার জন্য ব্যয় করা হবে।

তিনি বলেন, ‘জলবায়ু পরিবর্তনের মারাত্মক ক্ষতি মোকাবেলায় আমি অন্যদের পাশাপাশি থেকে কাজ করতে চাই। এই যুদ্ধে জয়ী হওয়ার জন্য নতুন পথ আবিষ্কার করতে হবে।’

আরও বলেন, ‘আজ আমি পৃথিবীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বোজেস আর্থ ফান্ড ঘোষণা করতে পেরে আনন্দিত। জলবায়ু পরিবর্তন পৃথিবীর জন্য বড় রকমের হুমকি। তাই আমি অন্যদের সঙ্গে মিলে এই লড়াইয়ে থাকতে চাই এবং নতুন পথ আবিষ্কার করতে চাই। আমাদের পৃথিবীকে বাঁচাতে হবে। তার জন্য সম্মিলিত প্রয়াস প্রয়োজন।’

জেফ বেজোসের এখন নিট অর্থের পরিমাণ ১৩০০০ কোটি ডলারেরও বেশি। সেখান থেকে তিনি শতকরা ৮ ভাগ জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে তার প্রতি এর আগে প্রতিষ্ঠানের অনেক কর্মী আরও কিছু করার জন্য আহ্বান জানিয়ে আসছিলেন।

তারা এ জন্য প্রকাশ্যে ওয়াকআউট করেছেন। কেউ কেউ প্রকাশ্যে কথা বলেছেন। তবে শেষ পর্যন্ত তিনি বড় অংকের অর্থ দেয়ার ঘোষণা দিলেন। এখানে উল্লেখ্য, মহাকাশ বিষয়ক কর্মসূচি ব্লু অরিজিন-এ অর্থায়ন করছেন জেফ বেজোস। এ জন্য তাকে ব্যাপক সমালোচনা শুনতে হয়েছে।

অন্য ধনীদের তুলনায় বোজেস সীমিত মানবসেবা করছিলেন এতদিন। সোমবার তার এ অর্থ সহায়তা ঘোষণার পূর্বে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ সালে তার সর্বোচ্চ সহযোগিতার পরিমাণ ছিল ২ বিলিয়ন ডলার, যা তিনি গৃহহীন পরিবার এবং স্কুলগুলোকে সহায়তার জন্য ঘোষণা করেন।

এছাড়াও বেজোস জলবায়ু পরর্বিতনরে বৈশ্বিক প্রভাব মোকাবেলায় পৃথিবীর ছোট-বড় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, দেশ এবং ব্যক্তি র্পযায় থেকে সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। এর আগে, ২০৪০ সালের মধ্যে তার প্রতিষ্ঠান অ্যামাজনকে শতভাগ র্কাবন নউিট্রাল করার ঘোষণা দিয়েছিলেন বেজোস।

প্রসঙ্গত, জলবায়ু আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণায় যুক্তরাষ্ট্রের বিলিয়নিয়াররা এগিয়ে আছনে। তাদের মধ্যে বিল গেটস, মাইক ব্লুমবার্গ, টম স্টেয়ার ইতোমধ্যেই জলবায়ু পরিবর্তনের বৈশ্বিক প্রভাব মোকাবেলায় সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন।

জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে লড়াই: ৮৫০৩৮ কোটি টাকা দেয়ার প্রতিশ্রুতি বোজেসের

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় ১০ বিলিয়ন ডলার (১০০০ কোটি ডলার বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৮৫০৩৮ কোটি ৪০ লাখ টাকা) অর্থ সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন আমাজানের প্রধান নির্বাহী জেফ বোজেস।
ছবি: সংগৃহীত

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় ১০ বিলিয়ন ডলার (১০০০ কোটি ডলার বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৮৫০৩৮ কোটি ৪০ লাখ টাকা) অর্থ সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন আমাজানের প্রধান নির্বাহী জেফ বোজেস।

সোমবার নিজের ইনস্ট্রগ্রামে তার প্রতিশ্রুতির অর্থ সামনের গ্রীষ্মে বণ্টন শুরু হবে বলে জানান। বিবিসি, এপি।

বিশ্বের এ শীর্ষ ধনী বলেন, এই অর্থ জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় দায়িত্বরত বিজ্ঞানী, সক্রিয় কর্মী এবং অন্য গ্রুপগুলোকে সহায়তার জন্য ব্যয় করা হবে।

তিনি বলেন, ‘জলবায়ু পরিবর্তনের মারাত্মক ক্ষতি মোকাবেলায় আমি অন্যদের পাশাপাশি থেকে কাজ করতে চাই। এই যুদ্ধে জয়ী হওয়ার জন্য নতুন পথ আবিষ্কার করতে হবে।’

আরও বলেন, ‘আজ আমি পৃথিবীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বোজেস আর্থ ফান্ড ঘোষণা করতে পেরে আনন্দিত। জলবায়ু পরিবর্তন পৃথিবীর জন্য বড় রকমের হুমকি। তাই আমি অন্যদের সঙ্গে মিলে এই লড়াইয়ে থাকতে চাই এবং নতুন পথ আবিষ্কার করতে চাই। আমাদের পৃথিবীকে বাঁচাতে হবে। তার জন্য সম্মিলিত প্রয়াস প্রয়োজন।’

জেফ বেজোসের এখন নিট অর্থের পরিমাণ ১৩০০০ কোটি ডলারেরও বেশি। সেখান থেকে তিনি শতকরা ৮ ভাগ জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে তার প্রতি এর আগে প্রতিষ্ঠানের অনেক কর্মী আরও কিছু করার জন্য আহ্বান জানিয়ে আসছিলেন।

তারা এ জন্য প্রকাশ্যে ওয়াকআউট করেছেন। কেউ কেউ প্রকাশ্যে কথা বলেছেন। তবে শেষ পর্যন্ত তিনি বড় অংকের অর্থ দেয়ার ঘোষণা দিলেন। এখানে উল্লেখ্য, মহাকাশ বিষয়ক কর্মসূচি ব্লু অরিজিন-এ অর্থায়ন করছেন জেফ বেজোস। এ জন্য তাকে ব্যাপক সমালোচনা শুনতে হয়েছে।

অন্য ধনীদের তুলনায় বোজেস সীমিত মানবসেবা করছিলেন এতদিন। সোমবার তার এ অর্থ সহায়তা ঘোষণার পূর্বে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ সালে তার সর্বোচ্চ সহযোগিতার পরিমাণ ছিল ২ বিলিয়ন ডলার, যা তিনি গৃহহীন পরিবার এবং স্কুলগুলোকে সহায়তার জন্য ঘোষণা করেন।

এছাড়াও বেজোস জলবায়ু পরর্বিতনরে বৈশ্বিক প্রভাব মোকাবেলায় পৃথিবীর ছোট-বড় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, দেশ এবং ব্যক্তি র্পযায় থেকে সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। এর আগে, ২০৪০ সালের মধ্যে তার প্রতিষ্ঠান অ্যামাজনকে শতভাগ র্কাবন নউিট্রাল করার ঘোষণা দিয়েছিলেন বেজোস।

প্রসঙ্গত, জলবায়ু আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণায় যুক্তরাষ্ট্রের বিলিয়নিয়াররা এগিয়ে আছনে। তাদের মধ্যে বিল গেটস, মাইক ব্লুমবার্গ, টম স্টেয়ার ইতোমধ্যেই জলবায়ু পরিবর্তনের বৈশ্বিক প্রভাব মোকাবেলায় সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন।