মাংসপ্রিয় ট্রাম্পের নিরামিষে অরুচি
jugantor
মাংসপ্রিয় ট্রাম্পের নিরামিষে অরুচি
রুচির কথা মাথায় রেখেই ছিল ‘রান আলিশান’, রাষ্ট্রপতি ভবনের ৩২ জন শেফ দায়িত্ব পান এ আয়োজনের

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

তেলে-ঝোলে কাবাব, টিক্কা, বিরিয়ানি খেতেই বেশি পছন্দ করেন ট্রাম্প। নিরামিষে তার বেশ অরুচি। এ কথা মাথায় রেখেই মঙ্গলবার প্রেসিডেন্ট ভবনের নৈশভোজে মার্কিন প্রেসিডেন্টের জন্য ছিল এলাহি আয়োজন।

তেলে-ঝোলে কাবাব, টিক্কা, বিরিয়ানি খেতেই বেশি পছন্দ করেন ট্রাম্প। নিরামিষে তার বেশ অরুচি। এ কথা মাথায় রেখেই মঙ্গলবার প্রেসিডেন্ট ভবনের নৈশভোজে মার্কিন প্রেসিডেন্টের জন্য ছিল এলাহি আয়োজন।

গুজরাটি নিরামিষ খানার পর এবার পাক্কা মোগলাই ঘরানায় আপ্যায়ন করা হয় ট্রাম্প দম্পতিকে। ট্রাম্প ও তার পরিবারকে খুশি করতে প্লেট সাজানো হয়েছিল বাহারি আমিষ পদে। আমেরিকান কুইসিনের সঙ্গে ভারতীয় মোগলাই পদের মিলমিশ ছিল রাষ্ট্রপতি ভবন রাইসিনা হিলের নৈশভোজে।

স্যালমন টিক্কা থেকে বিরিয়ানি, পোলাও, মাটন কষা-কমতি নেই কিছুরই। ছিল রাষ্ট্রপতি ভবনের বিশেষ পদ ডাল-রাইসিনা।

ইন্ডিয়া টুডে জানায়, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ভারত সফরের দ্বিতীয় ও শেষ দিন মঙ্গলবার সকালে রাষ্ট্রপতি ভবনে সস্ত্রীক ট্রাম্পকে অভ্যর্থনা জানান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। সেখান থেকে ট্রাম্পের গড়িবহর পৌঁছায় রাজঘাটে।

মহাত্মা গান্ধীর স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করে রাজঘাটে বৃক্ষরোপণও করেন ট্রাম্প দম্পতি। সেখান থেকে পৌঁছান হায়াবাদ হাউসে। এখানেই বৈঠকে বসেন ট্রাম্প ও মোদি। সন্ধ্যায় সপরিবারে রাষ্ট্রপতি ভবনের ব্যাঙ্কোয়েট হলে আয়োজন করা হয় বিশেষ ডিনারের।

নিরামিষ দিয়ে শুরু হলেও মেন্যুতে ছিল নানা রকম আমিষ পদ। নিরামিষের মধ্যে ছিল আলু টিক্কা, পালক চাট, স্যুপ, লেমন টার্ট। রেড মিট বিশেষ পছন্দ মার্কিন প্রেসিডেন্টের। তার রুচির কথা মাথায় রেখেই ছিল রান আলিশান। সঙ্গে বিরিয়ানি।

এছাড়া ছিল পোলাও, গুচ্চি, স্যালমন টিক্কা। রাষ্ট্রপতি ভবনের ৩২ জন সেফ দায়িত্ব পান এ আয়োজনের। ডিনারের বিশেষ আকর্ষণ ছিল ডাল রাইসিনা। রাষ্ট্রপতি ভবনের এই বিশেষ ডিশের আবিষ্কারক সাবেক পাঁচক মচিন্দ্রা কাস্তোরে।

তাকে নিয়োগ করেছিলেন সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রতিভা পাতিল। ২০০৭ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত রাইসিনা হিলের রান্নার দায়িত্ব সামলেছেন মচিন্দ্রা। মূলত অড়হর ডাল দিয়েই এ বিশেষ পদটি তৈরি হয়। সঙ্গে থাকে কয়েক পদের মশলা। তবে রেসিপি গোপন।

মিষ্টিমুখেও ভারতীয় ও আমেরিকান প্ল্যাটারের মিলমিশ। মালপোয়া, রাবড়র সঙ্গে পাতে পড়ে অ্যাপেল পাই ও ভ্যানিলা আইসক্রিম। চা, কফি, মিষ্টি পান তো ছিলই। ট্রাম্পের ভারত সফরের প্রথম দিনটা শুরু হয়েছিল গুজরাটের সবরমতী আশ্রম থেকে।

সেখানে গান্ধীজির ছবিতে মাল্যদান, স্ত্রীকে পাশে নিয়ে চরকা কাটা এবং শেষে গোটা আশ্রম ঘুরে দেখেন ট্রাম্প। কিছুক্ষণ সময় কাটিয়ে চলে যান মোতেরা স্টেডিয়ামে ‘নমস্তে ট্রাম্প’র মঞ্চে। ওই মঞ্চ থেকেই প্রশংসায় ভরিয়ে দেন মোদিকে। তুলে ধরেন ভারত-আমেরিকার মজবুত সম্পর্কের কথা।

সন্ত্রাসবাদ থেকে প্রতিরক্ষা সবেতেই দু’দেশের পারস্পরিক সহযোগিতার কথা উঠে আসে ট্রাম্পের বক্তব্যে।

তিন মাস আগেই ভারতে মার্কিন সিক্রেট সার্ভিস : দুই দিনের সফরে সোমবারই সপরিবারে ভারত পৌঁছান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সফর উপলক্ষে নি-িদ্র নিরাপত্তার আবরণে ঢেকে ফেলা হয়েছে তার নির্দিষ্ট গন্তব্যগুলো। নিরাপত্তা রক্ষার অন্যতম দায়িত্বে আছে যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে চৌকস গোয়েন্দা সংস্থা সিক্রেট সার্ভিস।

অন্তত তিন মাস আগেই ভারতে এসেছেন এর প্রতিনিধিরা। সস্ত্রীক ট্রাম্পের ভারত সফরের আগেই সিক্রেট সার্ভিসের প্রতিনিধিরা আহমেদাবাদ, আগ্রা ও নয়াদিল্লির বিভিন্ন জায়গা পরিদর্শন করেন। খতিয়ে দেখেন নিরাপত্তার বিভিন্ন দিক।

ভারত সফরে ট্রাম্প এবং তার পরিবারকে ঘিরে রয়েছে ত্রিস্তরীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা। প্রথম স্তরেই রয়েছে এই সিক্রেট সার্ভিস।

মাংসপ্রিয় ট্রাম্পের নিরামিষে অরুচি

রুচির কথা মাথায় রেখেই ছিল ‘রান আলিশান’, রাষ্ট্রপতি ভবনের ৩২ জন শেফ দায়িত্ব পান এ আয়োজনের
 যুগান্তর ডেস্ক 
২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
তেলে-ঝোলে কাবাব, টিক্কা, বিরিয়ানি খেতেই বেশি পছন্দ করেন ট্রাম্প। নিরামিষে তার বেশ অরুচি। এ কথা মাথায় রেখেই মঙ্গলবার প্রেসিডেন্ট ভবনের নৈশভোজে মার্কিন প্রেসিডেন্টের জন্য ছিল এলাহি আয়োজন।
ছবি: এএফপি

তেলে-ঝোলে কাবাব, টিক্কা, বিরিয়ানি খেতেই বেশি পছন্দ করেন ট্রাম্প। নিরামিষে তার বেশ অরুচি। এ কথা মাথায় রেখেই মঙ্গলবার প্রেসিডেন্ট ভবনের নৈশভোজে মার্কিন প্রেসিডেন্টের জন্য ছিল এলাহি আয়োজন।

গুজরাটি নিরামিষ খানার পর এবার পাক্কা মোগলাই ঘরানায় আপ্যায়ন করা হয় ট্রাম্প দম্পতিকে। ট্রাম্প ও তার পরিবারকে খুশি করতে প্লেট সাজানো হয়েছিল বাহারি আমিষ পদে। আমেরিকান কুইসিনের সঙ্গে ভারতীয় মোগলাই পদের মিলমিশ ছিল রাষ্ট্রপতি ভবন রাইসিনা হিলের নৈশভোজে।

স্যালমন টিক্কা থেকে বিরিয়ানি, পোলাও, মাটন কষা-কমতি নেই কিছুরই। ছিল রাষ্ট্রপতি ভবনের বিশেষ পদ ডাল-রাইসিনা।

ইন্ডিয়া টুডে জানায়, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ভারত সফরের দ্বিতীয় ও শেষ দিন মঙ্গলবার সকালে রাষ্ট্রপতি ভবনে সস্ত্রীক ট্রাম্পকে অভ্যর্থনা জানান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। সেখান থেকে ট্রাম্পের গড়িবহর পৌঁছায় রাজঘাটে।

মহাত্মা গান্ধীর স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করে রাজঘাটে বৃক্ষরোপণও করেন ট্রাম্প দম্পতি। সেখান থেকে পৌঁছান হায়াবাদ হাউসে। এখানেই বৈঠকে বসেন ট্রাম্প ও মোদি। সন্ধ্যায় সপরিবারে রাষ্ট্রপতি ভবনের ব্যাঙ্কোয়েট হলে আয়োজন করা হয় বিশেষ ডিনারের।

নিরামিষ দিয়ে শুরু হলেও মেন্যুতে ছিল নানা রকম আমিষ পদ। নিরামিষের মধ্যে ছিল আলু টিক্কা, পালক চাট, স্যুপ, লেমন টার্ট। রেড মিট বিশেষ পছন্দ মার্কিন প্রেসিডেন্টের। তার রুচির কথা মাথায় রেখেই ছিল রান আলিশান। সঙ্গে বিরিয়ানি।

এছাড়া ছিল পোলাও, গুচ্চি, স্যালমন টিক্কা। রাষ্ট্রপতি ভবনের ৩২ জন সেফ দায়িত্ব পান এ আয়োজনের। ডিনারের বিশেষ আকর্ষণ ছিল ডাল রাইসিনা। রাষ্ট্রপতি ভবনের এই বিশেষ ডিশের আবিষ্কারক সাবেক পাঁচক মচিন্দ্রা কাস্তোরে।

তাকে নিয়োগ করেছিলেন সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রতিভা পাতিল। ২০০৭ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত রাইসিনা হিলের রান্নার দায়িত্ব সামলেছেন মচিন্দ্রা। মূলত অড়হর ডাল দিয়েই এ বিশেষ পদটি তৈরি হয়। সঙ্গে থাকে কয়েক পদের মশলা। তবে রেসিপি গোপন।

মিষ্টিমুখেও ভারতীয় ও আমেরিকান প্ল্যাটারের মিলমিশ। মালপোয়া, রাবড়র সঙ্গে পাতে পড়ে অ্যাপেল পাই ও ভ্যানিলা আইসক্রিম। চা, কফি, মিষ্টি পান তো ছিলই। ট্রাম্পের ভারত সফরের প্রথম দিনটা শুরু হয়েছিল গুজরাটের সবরমতী আশ্রম থেকে।

সেখানে গান্ধীজির ছবিতে মাল্যদান, স্ত্রীকে পাশে নিয়ে চরকা কাটা এবং শেষে গোটা আশ্রম ঘুরে দেখেন ট্রাম্প। কিছুক্ষণ সময় কাটিয়ে চলে যান মোতেরা স্টেডিয়ামে ‘নমস্তে ট্রাম্প’র মঞ্চে। ওই মঞ্চ থেকেই প্রশংসায় ভরিয়ে দেন মোদিকে। তুলে ধরেন ভারত-আমেরিকার মজবুত সম্পর্কের কথা।

সন্ত্রাসবাদ থেকে প্রতিরক্ষা সবেতেই দু’দেশের পারস্পরিক সহযোগিতার কথা উঠে আসে ট্রাম্পের বক্তব্যে।

তিন মাস আগেই ভারতে মার্কিন সিক্রেট সার্ভিস : দুই দিনের সফরে সোমবারই সপরিবারে ভারত পৌঁছান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সফর উপলক্ষে নি-িদ্র নিরাপত্তার আবরণে ঢেকে ফেলা হয়েছে তার নির্দিষ্ট গন্তব্যগুলো। নিরাপত্তা রক্ষার অন্যতম দায়িত্বে আছে যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে চৌকস গোয়েন্দা সংস্থা সিক্রেট সার্ভিস।

অন্তত তিন মাস আগেই ভারতে এসেছেন এর প্রতিনিধিরা। সস্ত্রীক ট্রাম্পের ভারত সফরের আগেই সিক্রেট সার্ভিসের প্রতিনিধিরা আহমেদাবাদ, আগ্রা ও নয়াদিল্লির বিভিন্ন জায়গা পরিদর্শন করেন। খতিয়ে দেখেন নিরাপত্তার বিভিন্ন দিক।

ভারত সফরে ট্রাম্প এবং তার পরিবারকে ঘিরে রয়েছে ত্রিস্তরীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা। প্রথম স্তরেই রয়েছে এই সিক্রেট সার্ভিস।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ট্রাম্পের ভারত সফর