গ্রিসে করোনা ঠেকাতে মুসলিম শহর লকডাউন
jugantor
গ্রিসে করোনা ঠেকাতে মুসলিম শহর লকডাউন

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৭ মার্চ ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

করোনাভাইরাস ঠেকাতে সমগ্র গ্রিস লকডাউন করে ফেলা হয়েছে। অবরোধ করা হয়েছে দেশটির উত্তর-পূর্বাঞ্চলের বেশ কয়েকটি মুসলিমপ্রধান শহরও।

করোনাভাইরাস ঠেকাতে সমগ্র গ্রিস লকডাউন করে ফেলা হয়েছে। অবরোধ করা হয়েছে দেশটির উত্তর-পূর্বাঞ্চলের বেশ কয়েকটি মুসলিমপ্রধান শহরও।

গত কয়েকদিনে এই অঞ্চলে বেশ কয়েকজন আক্রান্ত ও অন্তত একজনের মৃত্যুর পর বুধবার জনবহুল সানথি নগরীতে তালাবন্দি করা হয়।

পুরো দেশ এক ভুতুড়ে অঞ্চলে পরিণত হয়েছে। রাস্তায় নেই কোনো জনমানব। অফিস-আদালত, দোকানপাট, রাস্তাঘাট সব বন্ধ করে দেয়া হয়েছে দুই সপ্তাহ আগেই।

জনমানবশূন্য এমন নগরী দীর্ঘ ইতিহাসে যেন গ্রিকবাসী ভয়াবহ এই পরিস্থিতি কখনও কল্পনা করেনি। সবাই চাপা উৎকণ্ঠায় নিজ গৃহে আবদ্ধ। খবর এএফপির।

১৫ দিনের জন্য সব স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, অফিস-আদালত বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। সোমবার স্থানীয় সময় ভোর ছয়টা থেকে ১৫ এপ্রিল বেলা ৩টা পর্যন্ত গ্রিসে সবকিছু লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে।

নাগরিক সুরক্ষা বিষয়ক উপমন্ত্রী নিকোস হারদালিয়াস বুধবার এক বিবৃতিতে বলেন, ‘সব বাসিন্দাকে অস্থায়ীভাবে ঘরবন্দি করা হয়েছে। ভাইরাসের উপকেন্দ্রে পরিণত হয়েছে সানথির এথিনোস শহর। অন্তত ২৫০০ মানুষের বাস এখানে।

গ্রিসের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ৭১ জন নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়াসহ ৬৯৫ জন রোগী শনাক্ত হয়েছে।

সোমবার পর্যন্ত করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছে ১৫ জন। মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৭। এর মধ্যে সানথিতে আক্রান্ত হয়েছে ৯ জন।

এর আগে সোমবার গ্রিসের প্রধানমন্ত্রী ক্রিয়াকো মিসোতাকিস জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে গ্রিকবাসীকে ধৈর্য ধারণ করে পরিস্থিতি মোকাবেলা করার জন্য আহ্বান জানান। বর্তমান কঠিন সময়ে গ্রিক সরকার জনগণের জন্য সব ধরনের সহযোগিতা করবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন।

গ্রিসে করোনা ঠেকাতে মুসলিম শহর লকডাউন

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৭ মার্চ ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
করোনাভাইরাস ঠেকাতে সমগ্র গ্রিস লকডাউন করে ফেলা হয়েছে। অবরোধ করা হয়েছে দেশটির উত্তর-পূর্বাঞ্চলের বেশ কয়েকটি মুসলিমপ্রধান শহরও।
ছবি: সংগৃহীত

করোনাভাইরাস ঠেকাতে সমগ্র গ্রিস লকডাউন করে ফেলা হয়েছে। অবরোধ করা হয়েছে দেশটির উত্তর-পূর্বাঞ্চলের বেশ কয়েকটি মুসলিমপ্রধান শহরও।

গত কয়েকদিনে এই অঞ্চলে বেশ কয়েকজন আক্রান্ত ও অন্তত একজনের মৃত্যুর পর বুধবার জনবহুল সানথি নগরীতে তালাবন্দি করা হয়।

পুরো দেশ এক ভুতুড়ে অঞ্চলে পরিণত হয়েছে। রাস্তায় নেই কোনো জনমানব। অফিস-আদালত, দোকানপাট, রাস্তাঘাট সব বন্ধ করে দেয়া হয়েছে দুই সপ্তাহ আগেই।

জনমানবশূন্য এমন নগরী দীর্ঘ ইতিহাসে যেন গ্রিকবাসী ভয়াবহ এই পরিস্থিতি কখনও কল্পনা করেনি। সবাই চাপা উৎকণ্ঠায় নিজ গৃহে আবদ্ধ। খবর এএফপির।

১৫ দিনের জন্য সব স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, অফিস-আদালত বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। সোমবার স্থানীয় সময় ভোর ছয়টা থেকে ১৫ এপ্রিল বেলা ৩টা পর্যন্ত গ্রিসে সবকিছু লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে।

নাগরিক সুরক্ষা বিষয়ক উপমন্ত্রী নিকোস হারদালিয়াস বুধবার এক বিবৃতিতে বলেন, ‘সব বাসিন্দাকে অস্থায়ীভাবে ঘরবন্দি করা হয়েছে। ভাইরাসের উপকেন্দ্রে পরিণত হয়েছে সানথির এথিনোস শহর। অন্তত ২৫০০ মানুষের বাস এখানে।

গ্রিসের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ৭১ জন নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়াসহ ৬৯৫ জন রোগী শনাক্ত হয়েছে।

সোমবার পর্যন্ত করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছে ১৫ জন। মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৭। এর মধ্যে সানথিতে আক্রান্ত হয়েছে ৯ জন।

এর আগে সোমবার গ্রিসের প্রধানমন্ত্রী ক্রিয়াকো মিসোতাকিস জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে গ্রিকবাসীকে ধৈর্য ধারণ করে পরিস্থিতি মোকাবেলা করার জন্য আহ্বান জানান। বর্তমান কঠিন সময়ে গ্রিক সরকার জনগণের জন্য সব ধরনের সহযোগিতা করবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস