যুক্তরাষ্ট্রকে সাহায্যের প্রস্তাব চীনের
jugantor
যুক্তরাষ্ট্রকে সাহায্যের প্রস্তাব চীনের

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৮ মার্চ ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

যুক্তরাষ্ট্রের বিপদের দিনে পাশে দাঁড়াতে চায় চীন। করোনাভাইরাসের মোকাবেলায় সহায়তার প্রস্তাব দিয়েছে দেশটির প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার রাতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেন তিনি। ট্রাম্প তিনি বলেন, করোনার মহামারী রুখতে যুক্তরাষ্ট্র ও চীনকে একসঙ্গে কাজ করা উচিত। করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যায় এরই মধ্যে বিশ্বে সবাইকে ছাড়িয়ে মহামারীর কেন্দ্রস্থল হয়ে উঠেছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে মোট আক্রান্ত হয়েছে ৮৪ হাজার ৯৪৬ জন এবং মারা গেছে ১ হাজার ২৫৬ জন। নিউইয়র্ক এবং নিউ অরলিন্সের হাসপাতালগুলো রোগীর ভিড় সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে। খবর এএফপির। করোনাভাইরাস ছড়ানো নিয়ে গত কয়েক সপ্তাহ যাবৎ একে অপরের বিরুদ্ধে পাল্টাপাল্টি দোষারোপ করে আসছে বেইজিং-ওয়াশিংটন। ভাইরাসটি প্রথম চীনের উহানে ছড়িয়ে পড়ায় এটাকে ‘চীনা ভাইরাস’ অভিহিত করে বক্তব্য দিচ্ছেন ট্রাম্প ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। ফলে দুই দেশের মধ্যকার সম্পর্কে নতুন করে টানাপোড়েন সৃষ্টি হয়েছে। এর মধ্যেই সাহায্যের হাত বাড়ানোর ওই প্রস্তাব দিলেন শি জিনপিং। টেলিফোনালাপে চীন-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ক উন্নয়নের আহ্বানও জানিয়েছেন তিনি। শি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র-চীন সম্পর্ক এখন এক ‘গুরুত্বপূর্ণ সন্ধিক্ষণে’ পৌঁছেছে। তিনি আরও বলেন, ‘এই সময়ে দুপক্ষ লড়াই করতে থাকলে ক্ষতিই হবে বরং একসঙ্গে কাজ করতে পারলেই উপকার হবে। সহযোগিতাই এখন একমাত্র পথ। যুক্তরাষ্ট্র সংঘাত এবং সংঘর্ষকে দূরে সরিয়ে রেখে চীনের সঙ্গে সম্পর্কোন্নয়নে পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ এবং সহযোগিতার ভিত্তিতে বাস্তবসম্মত পদক্ষেপ নেবে বলেই আশা করছি।’

যুক্তরাষ্ট্রে যেসব চীনা নাগরিক আছেন তাদের সুরক্ষায় যুক্তরাষ্ট্র কার্যকরী পদক্ষেপ নেবে বলেও শি আশা প্রকাশ করেন। ভাইরাসটিকে ‘মানবতার শত্রু’ আখ্যা দিয়ে তিনি বলেন, ‘ঐক্যবদ্ধ থাকার মধ্য দিয়েই কেবল আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় একে পরাজিত করতে পারবে।’ ফোনালাপের পর ট্রাম্প বলেন, ‘জিনপিংয়ের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা খুবই ভালো হয়েছে।’ এক টুইটার বার্তায় তিনি বলেন, ‘ভাইরাসটি নিয়ে চীনের খুব ভালো বোঝাপড়া আছে। তারা যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কাজ করছে।’ ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে এর উৎস নিয়ে চীন-যুক্তরাষ্ট্র বাগযুদ্ধ চলছে। যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্ট গত সপ্তাহে চীনা রাষ্ট্রদূত কুই তিয়ানকিকে সমন জারি করে। দাবি, বেইজিংয়ের পক্ষ থেকে বিভিন্ন ষড়যন্ত্র তত্ত্ব প্রচার করা হচ্ছে, যা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ব্যাপক ছড়িয়ে পড়ছে। এর জবাবে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান টুইট করে বলেন, উহানে নয়, করোনাভাইরাস মহামারির সূত্রপাত যুক্তরাষ্ট্র থেকে।

যুক্তরাষ্ট্রকে সাহায্যের প্রস্তাব চীনের

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৮ মার্চ ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

যুক্তরাষ্ট্রের বিপদের দিনে পাশে দাঁড়াতে চায় চীন। করোনাভাইরাসের মোকাবেলায় সহায়তার প্রস্তাব দিয়েছে দেশটির প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার রাতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেন তিনি। ট্রাম্প তিনি বলেন, করোনার মহামারী রুখতে যুক্তরাষ্ট্র ও চীনকে একসঙ্গে কাজ করা উচিত। করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যায় এরই মধ্যে বিশ্বে সবাইকে ছাড়িয়ে মহামারীর কেন্দ্রস্থল হয়ে উঠেছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে মোট আক্রান্ত হয়েছে ৮৪ হাজার ৯৪৬ জন এবং মারা গেছে ১ হাজার ২৫৬ জন। নিউইয়র্ক এবং নিউ অরলিন্সের হাসপাতালগুলো রোগীর ভিড় সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে। খবর এএফপির। করোনাভাইরাস ছড়ানো নিয়ে গত কয়েক সপ্তাহ যাবৎ একে অপরের বিরুদ্ধে পাল্টাপাল্টি দোষারোপ করে আসছে বেইজিং-ওয়াশিংটন। ভাইরাসটি প্রথম চীনের উহানে ছড়িয়ে পড়ায় এটাকে ‘চীনা ভাইরাস’ অভিহিত করে বক্তব্য দিচ্ছেন ট্রাম্প ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। ফলে দুই দেশের মধ্যকার সম্পর্কে নতুন করে টানাপোড়েন সৃষ্টি হয়েছে। এর মধ্যেই সাহায্যের হাত বাড়ানোর ওই প্রস্তাব দিলেন শি জিনপিং। টেলিফোনালাপে চীন-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ক উন্নয়নের আহ্বানও জানিয়েছেন তিনি। শি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র-চীন সম্পর্ক এখন এক ‘গুরুত্বপূর্ণ সন্ধিক্ষণে’ পৌঁছেছে। তিনি আরও বলেন, ‘এই সময়ে দুপক্ষ লড়াই করতে থাকলে ক্ষতিই হবে বরং একসঙ্গে কাজ করতে পারলেই উপকার হবে। সহযোগিতাই এখন একমাত্র পথ। যুক্তরাষ্ট্র সংঘাত এবং সংঘর্ষকে দূরে সরিয়ে রেখে চীনের সঙ্গে সম্পর্কোন্নয়নে পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ এবং সহযোগিতার ভিত্তিতে বাস্তবসম্মত পদক্ষেপ নেবে বলেই আশা করছি।’

যুক্তরাষ্ট্রে যেসব চীনা নাগরিক আছেন তাদের সুরক্ষায় যুক্তরাষ্ট্র কার্যকরী পদক্ষেপ নেবে বলেও শি আশা প্রকাশ করেন। ভাইরাসটিকে ‘মানবতার শত্রু’ আখ্যা দিয়ে তিনি বলেন, ‘ঐক্যবদ্ধ থাকার মধ্য দিয়েই কেবল আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় একে পরাজিত করতে পারবে।’ ফোনালাপের পর ট্রাম্প বলেন, ‘জিনপিংয়ের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা খুবই ভালো হয়েছে।’ এক টুইটার বার্তায় তিনি বলেন, ‘ভাইরাসটি নিয়ে চীনের খুব ভালো বোঝাপড়া আছে। তারা যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কাজ করছে।’ ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে এর উৎস নিয়ে চীন-যুক্তরাষ্ট্র বাগযুদ্ধ চলছে। যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্ট গত সপ্তাহে চীনা রাষ্ট্রদূত কুই তিয়ানকিকে সমন জারি করে। দাবি, বেইজিংয়ের পক্ষ থেকে বিভিন্ন ষড়যন্ত্র তত্ত্ব প্রচার করা হচ্ছে, যা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ব্যাপক ছড়িয়ে পড়ছে। এর জবাবে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান টুইট করে বলেন, উহানে নয়, করোনাভাইরাস মহামারির সূত্রপাত যুক্তরাষ্ট্র থেকে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন