দুবাইয়ে পার্ক হোটেল খুললেও বন্ধ মসজিদ

গ্রীষ্মকালীন ভ্রমণ পরিকল্পনা প্রকাশ ইউরোপের

  যুগান্তর ডেস্ক ১৪ মে ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

করোনাভাইরাসে বিধ্বস্ত পর্যটন খাত ধীরে ধীরে আবার চালুর উদ্যোগ নিয়েছে ইউরোপ। করোনা সংকট সত্ত্বেও নির্দিষ্ট নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে ইউরোপের মধ্যে ভ্রমণসংক্রান্ত কিছু প্রস্তাব উপস্থাপন করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। বুধবার ইইউ কমিশন কিছু নির্দিষ্ট প্রস্তাব পেশ করেছে। আসন্ন গ্রীষ্মকালীন ছুটির সময় পর্যটন ক্ষেত্র যাতে কিছুটা হলেও স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরতে পারে- সেই লক্ষ্যে সদস্য দেশগুলোকে পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছে ইইউ। খবর এএফপির।

পরিস্থিতির উন্নতির সঙ্গে সঙ্গে ধীরে ধীরে অভ্যন্তরীণ সীমান্ত খুলে পর্যটকদের প্রবেশের পথে বাধা দূর করার প্রস্তাবও দিয়েছে ইইউ। ইতালি, স্পেন ও ফ্রান্সের দেখাদেখি ব্রিটেন লকডাউন শিথিল করছে। জুনের মাঝামাঝি অস্ট্রিয়া তাদের জার্মানির সঙ্গে সীমান্ত খুলে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে। বাল্টিক এলাকার তিনটি দেশ ইস্তোনিয়া, লাটভিয়া ও ইথিওপিয়া ১৫ মে থেকে নিজেদের নাগরিকদের জন্য সীমান্ত খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যেসব দেশে করোনা সংকট মোটামুটি নিয়ন্ত্রণে এসেছে, সেগুলোর মধ্যে এক ধরনের ‘পর্যটন করিডোর’ সৃষ্টি করে গ্রীষ্মের ছুটির সময় পর্যটনে উৎসাহ দেয়ার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। ইইউ কমিশনের সূত্র অনুযায়ী, করোনা সংকটের আগে ইউরোপের পর্যটন ক্ষেত্রে প্রায় এক কোটি ২০ লাখ মানুষ কর্মরত ছিলেন। তার মধ্যে ৬৪ লাখ মানুষ কাজ হারাতে পারেন। নিজস্ব সূত্র অনুযায়ী, চলতি বছরের প্রথম তিন মাসেই এ ক্ষেত্র ৮০ থেকে ৯০ শতাংশ লোকসানের মুখ দেখেছে। ইইউ’র অর্থনীতির প্রায় ১০ শতাংশই পর্যটন ক্ষেত্র থেকে আসে। এদিকে সংযুক্ত আরব আমিরাতের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্যকেন্দ্র ও পর্যটন নগরী দুবাইয়ের সব সরকারি পার্ক ও হোটেল জনসাধারণের জন্য খুলে দেয়া হয়েছে। করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে এতদিন সেগুলো বন্ধ ছিল। তবে শহরটিতে মসজিদ, নাইট ক্লাব ও সরকারি সমুদ্রসৈকত এখনও বন্ধ। আল জাজিরা। বুধবার আমিরাতের রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থার বরাতে এএফপি জানিয়েছে, লকডাউন শিথিলের অংশ হিসেবে এখন থেকে দুবাইয়ের সব হোটেল ও সরকারি পার্ক জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। তবে পার্কে এক জায়গায় পাঁচজনের বেশি জড়ো হওয়া যাবে না। এছাড়া হোটেলের অতিথিদের জন্য বেসরকারি সৈকতও খুলে দেয়া হয়েছে।

 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত