করোনা সৈনিক : কাজের চাপে পা খোয়ালেন নার্স
jugantor
করোনা সৈনিক : কাজের চাপে পা খোয়ালেন নার্স

  যুগান্তর ডেস্ক  

১২ আগস্ট ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

করোনা সৈনিক : কাজের চাপে পা খোয়ালেন নার্স
ছবি: সংগৃহীত

কাজের চাপে নিজের পায়ের ব্যথাকে পাত্তা দেননি। পা কেটে ফেলে দিয়ে তার মাশুল দিলেন করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সম্মুখযোদ্ধা ব্রিটিশ এক নার্স।

২৬ বছর বয়সী এ নার্সের নাম সিত্তে বুয়েনাভেনতুরা। যুক্তরাজ্যের স্যালফোর্ড রয়্যাল হাসপাতালের নার্স তিনি।

করোনাকালে হাসপাতালে ৮ ঘণ্টার বেশি সময় সেবা দিচ্ছিলেন। তিনি ডান পায়ে ব্যথা অনুভব করলেও পাত্তা দেননি। গত এপ্রিলে পায়ের স্ক্যান করালে টিউমার ধরা পড়ে।

এরই মধ্যে বেশ দেরি হয়ে গেছে। টিউমারটি ক্যান্সারের মতো কোষ বৃদ্ধির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছিল। ফলে কেটে ফেলে দিতে হয় হাঁটুর ওপর

থেকে। বুয়েনাভেনতুরা বলেন, ‘আমি নিজের ব্যথা ভুলে গিয়েছিলাম। কারণ আমি অন্য মানুষের সেবায় নিয়োজিত ছিলাম ... অবশেষে এর মূল্য দিতে হল। আমি সেই সব মানুষের সেবায় সময় দিয়েছি, যাদের আমাদের খুবই প্রয়োজন ছিল। আমি আমার প্রতিশ্রুতি পূরণের অপরূপ স্বাদ পেয়েছি।’

অপারেশন করে তার পা থেকে একটি গলফ বলের সমান টিউমার বের করা হয়েছে। তার পায়ে লাগানো হয়েছে কৃত্রিম পা।

আগামী নভেম্বরের মধ্যে আবারও কাজে ফিরতে পারবেন বলে আশা করছেন বুয়েনাভেনতুরা। তিনি বলেন, ‘সব মানুষের উচিত আমার অভিজ্ঞতা থেকে শিক্ষা নেয়া। শরীরের কোনো অঙ্গের ব্যথাকে উপেক্ষা না করা।’ বিবিসি

করোনা সৈনিক : কাজের চাপে পা খোয়ালেন নার্স

 যুগান্তর ডেস্ক 
১২ আগস্ট ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
করোনা সৈনিক : কাজের চাপে পা খোয়ালেন নার্স
ছবি: সংগৃহীত

কাজের চাপে নিজের পায়ের ব্যথাকে পাত্তা দেননি। পা কেটে ফেলে দিয়ে তার মাশুল দিলেন করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সম্মুখযোদ্ধা ব্রিটিশ এক নার্স।

২৬ বছর বয়সী এ নার্সের নাম সিত্তে বুয়েনাভেনতুরা। যুক্তরাজ্যের স্যালফোর্ড রয়্যাল হাসপাতালের নার্স তিনি।

করোনাকালে হাসপাতালে ৮ ঘণ্টার বেশি সময় সেবা দিচ্ছিলেন। তিনি ডান পায়ে ব্যথা অনুভব করলেও পাত্তা দেননি। গত এপ্রিলে পায়ের স্ক্যান করালে টিউমার ধরা পড়ে।

এরই মধ্যে বেশ দেরি হয়ে গেছে। টিউমারটি ক্যান্সারের মতো কোষ বৃদ্ধির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছিল। ফলে কেটে ফেলে দিতে হয় হাঁটুর ওপর

থেকে। বুয়েনাভেনতুরা বলেন, ‘আমি নিজের ব্যথা ভুলে গিয়েছিলাম। কারণ আমি অন্য মানুষের সেবায় নিয়োজিত ছিলাম ... অবশেষে এর মূল্য দিতে হল। আমি সেই সব মানুষের সেবায় সময় দিয়েছি, যাদের আমাদের খুবই প্রয়োজন ছিল। আমি আমার প্রতিশ্রুতি পূরণের অপরূপ স্বাদ পেয়েছি।’

অপারেশন করে তার পা থেকে একটি গলফ বলের সমান টিউমার বের করা হয়েছে। তার পায়ে লাগানো হয়েছে কৃত্রিম পা।

আগামী নভেম্বরের মধ্যে আবারও কাজে ফিরতে পারবেন বলে আশা করছেন বুয়েনাভেনতুরা। তিনি বলেন, ‘সব মানুষের উচিত আমার অভিজ্ঞতা থেকে শিক্ষা নেয়া। শরীরের কোনো অঙ্গের ব্যথাকে উপেক্ষা না করা।’ বিবিসি

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস