যুক্তরাষ্ট্রে পুলিশের নৃশংসতার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, নিহত ২
jugantor
যুক্তরাষ্ট্রে পুলিশের নৃশংসতার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, নিহত ২

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৭ আগস্ট ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পুলিশের গুলিতে মার্কিন এক কৃষ্ণাঙ্গ আহত হওয়ার জেরে তৃতীয় রাতের মতো যুক্তরাষ্ট্রের উইসকনসিন রাজ্যের কেনোশা শহরে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

মঙ্গলবার রাতের এ সংঘর্ষে দু’জন নিহত ও একজন আহত হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, তিনজন গুলিবিদ্ধ হয়েছে। এ হামলার সঙ্গে কে বা কারা সংশ্লিষ্ট সে বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জানানো হয়নি বলে বুধবার জানিয়েছে বিবিসি।

রোববার বিকালে পুলিশের গুলিতে জ্যাকব ব্লেক নামে এক কৃষ্ণাঙ্গকে তার শিশুসন্তানের সামনে গুলি করে। প্রাথমিকভাবে তিনি মারা গেছেন বলে স্থানীয় গণমাধ্যমে জানানো হয়।

পরে হাসপাতালে নিলে ওই কৃষ্ণাঙ্গ প্রাণে বেঁচে গেলেও পঙ্গু হয়ে গেছেন বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। গাড়িতে থাকা ব্লেকের ছেলের পাকস্থলীতেও গুলিবিদ্ধ হয়েছে।

ওই রাতেই শহরটিতে পুলিশের নৃশংসতার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। কর্তৃপক্ষের ডাকা কারফিউ উপেক্ষা করেই সোম ও মঙ্গলবার রাতে রাস্তায় নামেন বিক্ষোভকারীরা। নিউইয়র্ক টাইমসকে জানিয়েছে, মঙ্গলবার রাতে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে একদল সশস্ত্র ব্যক্তির সঙ্গে সংঘর্ষ হয়েছে।

এর আগে কয়েকশ’ বিক্ষোভকারী শহরে মিছিল করে। তাদের একটি দল পুলিশকে লক্ষ্য করে আতশবাজি ও পানির বোতল ছুঁড়ে মারে। জবাবে পুলিশ রাবার বুলেট ও টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করে। পোর্টল্যান্ড, অরিগন ও মিনিপোলিস শহরেও বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে।

অনলাইনে ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, রাইফেল হাতে থাকা এক ব্যক্তিকে তাড়া করছে কিছু মানুষ।

একপর্যায়ে ওই ব্যক্তি পড়ে যায় এবং জমায়েত হওয়া লোকদের লক্ষ্য করে একাধিক গুলি ছুঁড়ে। আরও আরেকটি ভিডিওতে আরও দেখা গেছে, গুলির শব্দ শুনে মানুষ ছোটাছুটি করছে এবং আহত ব্যক্তি পড়ে আছে।

পরিস্থিতি সামাল দিতে উইসকনসিনের গভর্নর শহরে ন্যাশনাল গার্ডের আরও সদস্যকে পাঠিয়েছেন। গত ২৫ মে মিনেসোটা রাজ্যের বৃহত্তম শহর মিনিয়াপলিসে পুলিশের হাতে জর্জ ফ্লয়েড নামের এক কৃষ্ণাঙ্গ নিহত হওয়ার পর তুমুল বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভ শুরু হয়।

যুক্তরাষ্ট্রে পুলিশের নৃশংসতার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, নিহত ২

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৭ আগস্ট ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পুলিশের গুলিতে মার্কিন এক কৃষ্ণাঙ্গ আহত হওয়ার জেরে তৃতীয় রাতের মতো যুক্তরাষ্ট্রের উইসকনসিন রাজ্যের কেনোশা শহরে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

মঙ্গলবার রাতের এ সংঘর্ষে দু’জন নিহত ও একজন আহত হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, তিনজন গুলিবিদ্ধ হয়েছে। এ হামলার সঙ্গে কে বা কারা সংশ্লিষ্ট সে বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জানানো হয়নি বলে বুধবার জানিয়েছে বিবিসি।

রোববার বিকালে পুলিশের গুলিতে জ্যাকব ব্লেক নামে এক কৃষ্ণাঙ্গকে তার শিশুসন্তানের সামনে গুলি করে। প্রাথমিকভাবে তিনি মারা গেছেন বলে স্থানীয় গণমাধ্যমে জানানো হয়।

পরে হাসপাতালে নিলে ওই কৃষ্ণাঙ্গ প্রাণে বেঁচে গেলেও পঙ্গু হয়ে গেছেন বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। গাড়িতে থাকা ব্লেকের ছেলের পাকস্থলীতেও গুলিবিদ্ধ হয়েছে।

ওই রাতেই শহরটিতে পুলিশের নৃশংসতার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। কর্তৃপক্ষের ডাকা কারফিউ উপেক্ষা করেই সোম ও মঙ্গলবার রাতে রাস্তায় নামেন বিক্ষোভকারীরা। নিউইয়র্ক টাইমসকে জানিয়েছে, মঙ্গলবার রাতে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে একদল সশস্ত্র ব্যক্তির সঙ্গে সংঘর্ষ হয়েছে।

এর আগে কয়েকশ’ বিক্ষোভকারী শহরে মিছিল করে। তাদের একটি দল পুলিশকে লক্ষ্য করে আতশবাজি ও পানির বোতল ছুঁড়ে মারে। জবাবে পুলিশ রাবার বুলেট ও টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করে। পোর্টল্যান্ড, অরিগন ও মিনিপোলিস শহরেও বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে।

অনলাইনে ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, রাইফেল হাতে থাকা এক ব্যক্তিকে তাড়া করছে কিছু মানুষ।

একপর্যায়ে ওই ব্যক্তি পড়ে যায় এবং জমায়েত হওয়া লোকদের লক্ষ্য করে একাধিক গুলি ছুঁড়ে। আরও আরেকটি ভিডিওতে আরও দেখা গেছে, গুলির শব্দ শুনে মানুষ ছোটাছুটি করছে এবং আহত ব্যক্তি পড়ে আছে।

পরিস্থিতি সামাল দিতে উইসকনসিনের গভর্নর শহরে ন্যাশনাল গার্ডের আরও সদস্যকে পাঠিয়েছেন। গত ২৫ মে মিনেসোটা রাজ্যের বৃহত্তম শহর মিনিয়াপলিসে পুলিশের হাতে জর্জ ফ্লয়েড নামের এক কৃষ্ণাঙ্গ নিহত হওয়ার পর তুমুল বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভ শুরু হয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : কৃষ্ণাঙ্গ হত্যায় অগ্নিগর্ভ যুক্তরাষ্ট্র