রাজনীতিতে ফিরছেন নওয়াজ
jugantor
রাজনীতিতে ফিরছেন নওয়াজ

  যুগান্তর ডেস্ক  

২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

‘ইমরান খান নয়, তাকে যারা ক্ষমতায় এনেছে তাদের বিরুদ্ধে আমাদের লড়াই। আমাদের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার হচ্ছে এই সিলেক্টেড সরকারকে উচ্ছেদ করা, এই পদ্ধতি ধ্বংস করা।’

‘ইমরান খান নয়, তাকে যারা ক্ষমতায় এনেছে তাদের বিরুদ্ধে আমাদের লড়াই। আমাদের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার হচ্ছে এই সিলেক্টেড সরকারকে উচ্ছেদ করা, এই পদ্ধতি ধ্বংস করা।’

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ লন্ডন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে পাকিস্তান পিপলস পার্টি- পিপিপি কর্তৃক ইসলামাবাদে আয়োজিত বহুদলীয় এক আলোচনায় এসব কথা বলেন।

দেশটির গণমাধ্যমগুলো বলছে এটি বর্তমানে লন্ডনে চিকিৎসাধীন ক্ষমতাচ্যুত প্রধানমন্ত্রী নওয়াজের রাজনীতিতে ফেরার ইঙ্গিত। ডন।

গত বছরের নভেম্বর থেকে চিকিৎসার জন্য ব্রিটেনে অবস্থান করছেন নওয়াজ শরিফ। এতদিন তিনি রাজনীতিসংক্রান্ত কোনো বক্তব্য দেননি।

কিন্তু ‘নিড ফর এ প্লান অব অ্যাকশন’ নামক আলোচনায় ইমরান খানের নেতৃত্বাধীন তেহরিক-ই ইনসাফ পার্টি- পিটিআই জোট সরকারের বিরোধিতার পাশাপাশি খোদ দেশের শক্তিশালী সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে ইঙ্গিত করে বক্তব্য দেন নওয়াজ।

ইমরান খান ক্ষমতায় আসার পর থেকে তাকে সেনা সিলকশনের মাধ্যমে ক্ষমতায় বসানো হয়ে বলে বিভিন্ন মহল থেকে অভিযোগ করা হচ্ছে।

ওই আলোচনায় নওয়াজের পাশাপাশি তার ভাই শাহবাজ শরিফ, পিপিপির আসিফ আলী জারদারি ও বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারিও বক্তব্য দেন।

অবশ্য এ আয়োজনের লক্ষ্য-উদ্দেশ্য সম্পর্কে কোনো কিছু স্পষ্ট করে বলেনি আয়োজকরা।

নিজের বক্তব্যে বর্তমান সরকারের বিভিন্ন ব্যর্থতার কথা তুলে ধরার পাশাপাশি দেশের অর্থনীতির বাজে পরিস্থিতির কথাও বলেন নওয়াজ। এছাড়া দেশের বৈদেশিক সম্পর্ক ক্ষতিগ্রস্ত করা, গণতন্ত্র হুমকির মধ্যে থাকা ও দুর্নীতির কথা তুলে ধরে তিনি প্রশ্ন তোলেন- এখনই যদি এগুলোর বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়া না হয় তবে কখন নেয়া হবে?

পাকিস্তানের রাজনীতিতে সামরিক বাহিনী বড় ধরনের এক ফ্যাক্টর। যখনই যারা হেরে যায় তারা বিজয়ীদের সামরিক বাহিনীর ক্ষমতায় বসিয়েছে ও তাদের হারিয়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ তোলে।

বর্তমান ইমরান খান সরকার ক্ষমতায় আসার আগে নওয়াজকে উচ্ছেদ করা হয় ক্ষমতা থেকে। তিনি একাধিকবার ক্ষমতায় এসে একবারও মেয়াদ পূর্ণ করতে পারেননি।

রাজনীতিতে ফিরছেন নওয়াজ

 যুগান্তর ডেস্ক 
২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
‘ইমরান খান নয়, তাকে যারা ক্ষমতায় এনেছে তাদের বিরুদ্ধে আমাদের লড়াই। আমাদের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার হচ্ছে এই সিলেক্টেড সরকারকে উচ্ছেদ করা, এই পদ্ধতি ধ্বংস করা।’
ফাইল ছবি

‘ইমরান খান নয়, তাকে যারা ক্ষমতায় এনেছে তাদের বিরুদ্ধে আমাদের লড়াই। আমাদের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার হচ্ছে এই সিলেক্টেড সরকারকে উচ্ছেদ করা, এই পদ্ধতি ধ্বংস করা।’

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ লন্ডন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে পাকিস্তান পিপলস পার্টি- পিপিপি কর্তৃক ইসলামাবাদে আয়োজিত বহুদলীয় এক আলোচনায় এসব কথা বলেন।

দেশটির গণমাধ্যমগুলো বলছে এটি বর্তমানে লন্ডনে চিকিৎসাধীন ক্ষমতাচ্যুত প্রধানমন্ত্রী নওয়াজের রাজনীতিতে ফেরার ইঙ্গিত। ডন।

গত বছরের নভেম্বর থেকে চিকিৎসার জন্য ব্রিটেনে অবস্থান করছেন নওয়াজ শরিফ। এতদিন তিনি রাজনীতিসংক্রান্ত কোনো বক্তব্য দেননি।

কিন্তু ‘নিড ফর এ প্লান অব অ্যাকশন’ নামক আলোচনায় ইমরান খানের নেতৃত্বাধীন তেহরিক-ই ইনসাফ পার্টি- পিটিআই জোট সরকারের বিরোধিতার পাশাপাশি খোদ দেশের শক্তিশালী সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে ইঙ্গিত করে বক্তব্য দেন নওয়াজ।

ইমরান খান ক্ষমতায় আসার পর থেকে তাকে সেনা সিলকশনের মাধ্যমে ক্ষমতায় বসানো হয়ে বলে বিভিন্ন মহল থেকে অভিযোগ করা হচ্ছে।

ওই আলোচনায় নওয়াজের পাশাপাশি তার ভাই শাহবাজ শরিফ, পিপিপির আসিফ আলী জারদারি ও বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারিও বক্তব্য দেন।

অবশ্য এ আয়োজনের লক্ষ্য-উদ্দেশ্য সম্পর্কে কোনো কিছু স্পষ্ট করে বলেনি আয়োজকরা।

নিজের বক্তব্যে বর্তমান সরকারের বিভিন্ন ব্যর্থতার কথা তুলে ধরার পাশাপাশি দেশের অর্থনীতির বাজে পরিস্থিতির কথাও বলেন নওয়াজ। এছাড়া দেশের বৈদেশিক সম্পর্ক ক্ষতিগ্রস্ত করা, গণতন্ত্র হুমকির মধ্যে থাকা ও দুর্নীতির কথা তুলে ধরে তিনি প্রশ্ন তোলেন- এখনই যদি এগুলোর বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়া না হয় তবে কখন নেয়া হবে?

পাকিস্তানের রাজনীতিতে সামরিক বাহিনী বড় ধরনের এক ফ্যাক্টর। যখনই যারা হেরে যায় তারা বিজয়ীদের সামরিক বাহিনীর ক্ষমতায় বসিয়েছে ও তাদের হারিয়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ তোলে।

বর্তমান ইমরান খান সরকার ক্ষমতায় আসার আগে নওয়াজকে উচ্ছেদ করা হয় ক্ষমতা থেকে। তিনি একাধিকবার ক্ষমতায় এসে একবারও মেয়াদ পূর্ণ করতে পারেননি।