মার্কেলের অফিস গেটে গাড়ির ধাক্কা
jugantor
মার্কেলের অফিস গেটে গাড়ির ধাক্কা

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৭ নভেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মার্কেলের সরকারি অফিসের গেটে গাড়ি দিয়ে ধাক্কা দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। দুটি স্লোগান লেখা একটি প্রাইভেট কার বুধবার আকস্মিক নিরাপত্তা বাহিনীর ঘেরাও ভেদ করে বার্লিনে মার্কেলের অফিসের গেটে আঘাত করে।

একটি স্লোগানে লেখা ছিল ‘বিশ্বায়নের রাজনীতি বন্ধ কর’, অন্যটিতে লেখা ছিল ‘শিশু ও বৃদ্ধ মানুষের হত্যাকারীদের প্রতি ঘৃণা’। গাড়ির আঘাতে অফিসের গেট ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

ঘটনার পরপর গাড়িচালককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। হামলাকারীর উদ্দেশ্য কী, তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। আলজাজিরা, রয়টার্স।

সরকারের মুখপাত্র স্টেফেন সেইবার্ট জানিয়েছেন, চ্যান্সেলর মার্কেল, সরকারি সদস্য এবং চ্যান্সেলারি অফিসে কর্মরতরা কখনও বিপদের মুখে ছিলেন না। অবশ্য হামলার সময় মার্কেল অফিসে ছিলেন কি না, তা স্পষ্ট করা হয়নি। ঘটনার পর আটক ৫১ বছর বয়সী চালককে হুইলচেয়ারে করে সরিয়ে নেয় পুলিশ।

তারা ঘটনাস্থলে অবস্থান করছে। একটি গাড়ি বিল্ডিংয়ের ফটকের সামনে রয়েছে এবং প্রমাণের চেষ্টা করা হচ্ছে চালক ইচ্ছাকৃতভাবে গেটে হামলা করেছে কিনা। তাকে পুলিশি হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

এদিকে বার্লিন পুলিশের মুখপাত্র জানিয়েছে, এ ঘটনাকে তারা কোনো ধরনের উগ্রপন্থী হামলা বলে সন্দেহ করছে না। এবং কোনো ধরনের অনুমানের ভিত্তিতেও কাজ করছে না। দমকলকর্মীরা গাড়িটি সরিয়ে নিয়েছে, গাড়ির লাইসেন্স প্লেট বলছে সেটি লিপ্পের উত্তর-পশ্চিমের কাউন্টির।

একই ধরনের লাইসেন্স প্লেটবাহী গাড়ি ২০১৪ সালেও এমন ঘটনা ঘটিয়েছিল বলে জানা গেছে। তবে এবারের আঘাতে চারপাশের বেষ্টনীর এবং গাড়ির সামান্য ক্ষতি হয়েছে।

বার্লিন মূলত বামপন্থী এবং বিশ্বায়নবিরোধী কর্মীদের আঁতুড়ঘর বলেই পরিচিত। এরা বৈশ্বিক বড় কোম্পানিগুলোর উন্নয়ন পরিকল্পনাগুলো বন্ধ করতে চেয়েছিল এবং খালি বাসাগুলো দখল করতে চেয়েছিল। আর এ কারণেই এটি পরিকল্পিত হামলা হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

পাশাপাশি বার্লিন শহরটি জার্মানির করোনাভাইরাস সম্পর্কিত বিধিনিষেধের বিপক্ষে আন্দোলনের কেন্দ্রবিন্দু।

মার্কেলের অফিস গেটে গাড়ির ধাক্কা

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৭ নভেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মার্কেলের সরকারি অফিসের গেটে গাড়ি দিয়ে ধাক্কা দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। দুটি স্লোগান লেখা একটি প্রাইভেট কার বুধবার আকস্মিক নিরাপত্তা বাহিনীর ঘেরাও ভেদ করে বার্লিনে মার্কেলের অফিসের গেটে আঘাত করে।

একটি স্লোগানে লেখা ছিল ‘বিশ্বায়নের রাজনীতি বন্ধ কর’, অন্যটিতে লেখা ছিল ‘শিশু ও বৃদ্ধ মানুষের হত্যাকারীদের প্রতি ঘৃণা’। গাড়ির আঘাতে অফিসের গেট ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

ঘটনার পরপর গাড়িচালককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। হামলাকারীর উদ্দেশ্য কী, তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। আলজাজিরা, রয়টার্স।

সরকারের মুখপাত্র স্টেফেন সেইবার্ট জানিয়েছেন, চ্যান্সেলর মার্কেল, সরকারি সদস্য এবং চ্যান্সেলারি অফিসে কর্মরতরা কখনও বিপদের মুখে ছিলেন না। অবশ্য হামলার সময় মার্কেল অফিসে ছিলেন কি না, তা স্পষ্ট করা হয়নি। ঘটনার পর আটক ৫১ বছর বয়সী চালককে হুইলচেয়ারে করে সরিয়ে নেয় পুলিশ।

তারা ঘটনাস্থলে অবস্থান করছে। একটি গাড়ি বিল্ডিংয়ের ফটকের সামনে রয়েছে এবং প্রমাণের চেষ্টা করা হচ্ছে চালক ইচ্ছাকৃতভাবে গেটে হামলা করেছে কিনা। তাকে পুলিশি হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

এদিকে বার্লিন পুলিশের মুখপাত্র জানিয়েছে, এ ঘটনাকে তারা কোনো ধরনের উগ্রপন্থী হামলা বলে সন্দেহ করছে না। এবং কোনো ধরনের অনুমানের ভিত্তিতেও কাজ করছে না। দমকলকর্মীরা গাড়িটি সরিয়ে নিয়েছে, গাড়ির লাইসেন্স প্লেট বলছে সেটি লিপ্পের উত্তর-পশ্চিমের কাউন্টির।

একই ধরনের লাইসেন্স প্লেটবাহী গাড়ি ২০১৪ সালেও এমন ঘটনা ঘটিয়েছিল বলে জানা গেছে। তবে এবারের আঘাতে চারপাশের বেষ্টনীর এবং গাড়ির সামান্য ক্ষতি হয়েছে।

বার্লিন মূলত বামপন্থী এবং বিশ্বায়নবিরোধী কর্মীদের আঁতুড়ঘর বলেই পরিচিত। এরা বৈশ্বিক বড় কোম্পানিগুলোর উন্নয়ন পরিকল্পনাগুলো বন্ধ করতে চেয়েছিল এবং খালি বাসাগুলো দখল করতে চেয়েছিল। আর এ কারণেই এটি পরিকল্পিত হামলা হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

পাশাপাশি বার্লিন শহরটি জার্মানির করোনাভাইরাস সম্পর্কিত বিধিনিষেধের বিপক্ষে আন্দোলনের কেন্দ্রবিন্দু।