নারীরা অধিকারসম্পন্ন জন্তু
jugantor
নারীরা অধিকারসম্পন্ন জন্তু
নেতানিয়াহুর মন্তব্যে বিতর্ক-সমালোচনা

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৮ নভেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

অনুষ্ঠানটা ছিল নারীদের বিরুদ্ধে সহিংসতার প্রতিবাদ জানানো। তাদের অধিকারের দাবিতে সোচ্চার হওয়ার। কিন্তু তা করতে যেয়ে উল্টো নারীদের জন্তু-জানোয়ারের সঙ্গে তুলনা করে বসলেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু। এতে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছেন তিনি। প্রতিবাদ জানাচ্ছেন নারী-পুরুষ নির্বিশেষে প্রত্যেকেই। হারেৎজ ও টাইমস অব ইসরাইল।

বুধবার ২৫ নভেম্বর ছিল ‘নারীদের বিরুদ্ধে সহিংসা দূরীকরণ’ (ইন্টারন্যাশনাল ডে ফর দ্য এলিমিনেশন অব ভায়োলেন্স এগেইনস্ট উইমেন) বিষয়ক আন্তর্জাতিক দিবস। সেই উপলক্ষেই ইসরাইলের আইনসভা নেসেটে বক্তব্য রাখেন নেতানিয়াহু। স্ত্রী সারা এবং নারী সংগঠনের প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে বলেন, ‘নারীরা আপনার আমার সম্পদ নয়। কোনো পশু নয় যে তাদের ওপর অত্যাচার করা যাবে।’ এই বক্তব্যে তার উদ্দেশ্য ভালোই ছিল। তিনি আসলে নারীর বিরুদ্ধে সহিংসতার অবসানের কথাই বলেছেন। কিন্তু সেটা বলতে গিয়ে তিনি অনেকটা মুখ ফসকেই নারীদের জন্তু-জানোয়ারের তুলনা টেনেছেন।

নেতানিয়াহুর ভাষায়, ‘নারীরা কোনো জানোয়ার নয় যে তাকে আপনি পেটাতে পারেন। ইদানীং আমরা বলে থাকি, জানোয়ারদেরও আঘাত করোনা। আমরা জানি যে, পশুদেরও বোধবুদ্ধি, চেতনা, অনুভূতি রয়েছে। সুতরাং পশুদের প্রতি যদি আমাদের সমবেদনা থাকে- সব নারীই পশু, সব শিশুও পশু, তবে তাদের প্রত্যেকেরই অধিকার রয়েছে।’

নেতানিয়াহুর এই মন্তব্য নিয়ে শুধু দেশেই নয়, আন্তর্জাতিক স্তরেও সমালোচনার ঝড় উঠেছে। তিনি জন্তু-জানোয়ারের সঙ্গে কীভাবে নারীদের তুলনা করলেন, সেই প্রশ্ন তুলে নেতানিয়াহুকে তুলোধোনাও করছেন অনেকে। বিতর্ক বাড়াতেই ড্যামেজ কন্ট্রোলে নামে প্রধানমন্ত্রীর দফতর। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রীর অফিস এক বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, ‘নারী সুরক্ষা ও নারীদের অধিকার নিয়ে মন খুলে কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। নারীদের বিরুদ্ধে সহিংসতার প্রতিবাদেও সরব হয়েছেন। তার বক্তৃতার একটা ছোট অংশে হেনস্তার উদাহরণ দিতে গিয়ে পশুর প্রসঙ্গ টেনে এনেছেন। কিন্তু তিনি কোনোভাবেই জন্তু-জানোয়ারের সঙ্গে নারীদের তুলনা করেননি।’

সম্প্রতি ইসরাইলে নারীদের বিরুদ্ধে হিংসার ঘটনা অনেকটাই বেড়েছে। করোনাকালে লকডাউনের সময়ে পারিবারিক হিংসা বিশেষ করে বৃদ্ধি পেয়েছে। সেদেশের সরকারি হিসাব অনুযায়ী, চলতি বছর মার্চের পর থেকে পারিবারিক হিংসা সংক্রান্ত অভিযোগ তিনগুণ বেড়ে গেছে। এই পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রীর দফতরের সাফাইয়ের পরেও নেতানিয়াহুর মন্তব্য নিয়ে বিতর্ক থামছে না।

নারীরা অধিকারসম্পন্ন জন্তু

নেতানিয়াহুর মন্তব্যে বিতর্ক-সমালোচনা
 যুগান্তর ডেস্ক 
২৮ নভেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

অনুষ্ঠানটা ছিল নারীদের বিরুদ্ধে সহিংসতার প্রতিবাদ জানানো। তাদের অধিকারের দাবিতে সোচ্চার হওয়ার। কিন্তু তা করতে যেয়ে উল্টো নারীদের জন্তু-জানোয়ারের সঙ্গে তুলনা করে বসলেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু। এতে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছেন তিনি। প্রতিবাদ জানাচ্ছেন নারী-পুরুষ নির্বিশেষে প্রত্যেকেই। হারেৎজ ও টাইমস অব ইসরাইল।

বুধবার ২৫ নভেম্বর ছিল ‘নারীদের বিরুদ্ধে সহিংসা দূরীকরণ’ (ইন্টারন্যাশনাল ডে ফর দ্য এলিমিনেশন অব ভায়োলেন্স এগেইনস্ট উইমেন) বিষয়ক আন্তর্জাতিক দিবস। সেই উপলক্ষেই ইসরাইলের আইনসভা নেসেটে বক্তব্য রাখেন নেতানিয়াহু। স্ত্রী সারা এবং নারী সংগঠনের প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে বলেন, ‘নারীরা আপনার আমার সম্পদ নয়। কোনো পশু নয় যে তাদের ওপর অত্যাচার করা যাবে।’ এই বক্তব্যে তার উদ্দেশ্য ভালোই ছিল। তিনি আসলে নারীর বিরুদ্ধে সহিংসতার অবসানের কথাই বলেছেন। কিন্তু সেটা বলতে গিয়ে তিনি অনেকটা মুখ ফসকেই নারীদের জন্তু-জানোয়ারের তুলনা টেনেছেন।

নেতানিয়াহুর ভাষায়, ‘নারীরা কোনো জানোয়ার নয় যে তাকে আপনি পেটাতে পারেন। ইদানীং আমরা বলে থাকি, জানোয়ারদেরও আঘাত করোনা। আমরা জানি যে, পশুদেরও বোধবুদ্ধি, চেতনা, অনুভূতি রয়েছে। সুতরাং পশুদের প্রতি যদি আমাদের সমবেদনা থাকে- সব নারীই পশু, সব শিশুও পশু, তবে তাদের প্রত্যেকেরই অধিকার রয়েছে।’

নেতানিয়াহুর এই মন্তব্য নিয়ে শুধু দেশেই নয়, আন্তর্জাতিক স্তরেও সমালোচনার ঝড় উঠেছে। তিনি জন্তু-জানোয়ারের সঙ্গে কীভাবে নারীদের তুলনা করলেন, সেই প্রশ্ন তুলে নেতানিয়াহুকে তুলোধোনাও করছেন অনেকে। বিতর্ক বাড়াতেই ড্যামেজ কন্ট্রোলে নামে প্রধানমন্ত্রীর দফতর। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রীর অফিস এক বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, ‘নারী সুরক্ষা ও নারীদের অধিকার নিয়ে মন খুলে কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। নারীদের বিরুদ্ধে সহিংসতার প্রতিবাদেও সরব হয়েছেন। তার বক্তৃতার একটা ছোট অংশে হেনস্তার উদাহরণ দিতে গিয়ে পশুর প্রসঙ্গ টেনে এনেছেন। কিন্তু তিনি কোনোভাবেই জন্তু-জানোয়ারের সঙ্গে নারীদের তুলনা করেননি।’

সম্প্রতি ইসরাইলে নারীদের বিরুদ্ধে হিংসার ঘটনা অনেকটাই বেড়েছে। করোনাকালে লকডাউনের সময়ে পারিবারিক হিংসা বিশেষ করে বৃদ্ধি পেয়েছে। সেদেশের সরকারি হিসাব অনুযায়ী, চলতি বছর মার্চের পর থেকে পারিবারিক হিংসা সংক্রান্ত অভিযোগ তিনগুণ বেড়ে গেছে। এই পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রীর দফতরের সাফাইয়ের পরেও নেতানিয়াহুর মন্তব্য নিয়ে বিতর্ক থামছে না।