মার্কিনিদের উৎসাহ দিতে প্রকাশ্যে টিকা নেবেন তিন সাবেক প্রেসিডেন্ট
jugantor
মার্কিনিদের উৎসাহ দিতে প্রকাশ্যে টিকা নেবেন তিন সাবেক প্রেসিডেন্ট

  যুগান্তর ডেস্ক  

০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন নিতে মার্কিনিরা কতটুকু আগ্রহী হবে, তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। ফলে মানুষ যাতে নিরাপদ মনে করে নিশ্চিন্তে ভ্যাকসিন নেয় তাতে উৎসাহ দিতে সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা, জর্জ ডব্লিউ বুশ ও বিল ক্লিনটন প্রকাশ্যে টিকা নেবেন। করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত দেশ যুক্তরাষ্ট্র। মৃত্যু ও আক্রান্ত- উভয় ক্ষেত্রে শীর্ষে রয়েছে দেশটি। একইসঙ্গে করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি গুজব ছড়ানোও হয়েছে দেশটিতে। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে এসেও আক্রান্ত ও মৃত্যুতে উপরের দিকে যুক্তরাষ্ট্রের নাম। এ কারণে নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন, দেশটিতে করোনায় আরও আড়াই লাখ মানুষের মৃত্যু হতে পারে। সিএনএন।

করোনায় এ পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে প্রাণ হারিয়েছেন দুই লাখ ৭০ হাজারের বেশি মানুষ। আক্রান্তও কোটি ছাড়িয়েছে। প্রতিনিয়ত এ তালিকা দীর্ঘতর হচ্ছে। তারপরও বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রকাশ্যে করোনাকে ভুয়া বলেছেন। নিজে আক্রান্ত হওয়ার পরও তার এমন অবস্থান উগ্র অনুসারীদের মনে করোনাকে ভুয়া, ভ্যাকসিন ব্যবসা ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বিশ্বাস করিয়েছে। সাধারণ ও স্বল্পশিক্ষিত আমেরিকানদের মনে ভ্যাকসিনের প্রতি অনীহা এনেছে। এটি অনুধাবন করতে পারছেন দেশটির সচেতন মানুষ থেকে বিশেষজ্ঞরা। এ তালিকা থেকে বাদ যাননি সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা, জর্জ বুশ ও বিল ক্লিনটন। এ কারণে তারা প্রকাশ্যে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন নেবেন এবং পিভি ক্যামেরায় সেটি প্রচার করা হবে। এতে করে ভ্যাকসিন যে নিরাপদ ও এতে কোনো ধরনের জালিয়াতি নেই সে আস্থা তৈরি হবে এবং মানুষ টিকা নিতে উৎসাহী হবে।

২০ জানুয়ারি নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে পরবর্তী চার বছরের জন্য দায়িত্ব নিচ্ছেন জো বাইডেন। তার নির্বাচনী প্রচারণায় করোনা মোকাবেলা ছিল প্রধান প্রতিশ্রুতি। সব আমেরিকানের জন্য টিকা নিশ্চিত করা ও মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করার কথা বলেছিলেন তিনি।

মার্কিনিদের উৎসাহ দিতে প্রকাশ্যে টিকা নেবেন তিন সাবেক প্রেসিডেন্ট

 যুগান্তর ডেস্ক 
০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন নিতে মার্কিনিরা কতটুকু আগ্রহী হবে, তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। ফলে মানুষ যাতে নিরাপদ মনে করে নিশ্চিন্তে ভ্যাকসিন নেয় তাতে উৎসাহ দিতে সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা, জর্জ ডব্লিউ বুশ ও বিল ক্লিনটন প্রকাশ্যে টিকা নেবেন। করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত দেশ যুক্তরাষ্ট্র। মৃত্যু ও আক্রান্ত- উভয় ক্ষেত্রে শীর্ষে রয়েছে দেশটি। একইসঙ্গে করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি গুজব ছড়ানোও হয়েছে দেশটিতে। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে এসেও আক্রান্ত ও মৃত্যুতে উপরের দিকে যুক্তরাষ্ট্রের নাম। এ কারণে নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন, দেশটিতে করোনায় আরও আড়াই লাখ মানুষের মৃত্যু হতে পারে। সিএনএন।

করোনায় এ পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে প্রাণ হারিয়েছেন দুই লাখ ৭০ হাজারের বেশি মানুষ। আক্রান্তও কোটি ছাড়িয়েছে। প্রতিনিয়ত এ তালিকা দীর্ঘতর হচ্ছে। তারপরও বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রকাশ্যে করোনাকে ভুয়া বলেছেন। নিজে আক্রান্ত হওয়ার পরও তার এমন অবস্থান উগ্র অনুসারীদের মনে করোনাকে ভুয়া, ভ্যাকসিন ব্যবসা ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বিশ্বাস করিয়েছে। সাধারণ ও স্বল্পশিক্ষিত আমেরিকানদের মনে ভ্যাকসিনের প্রতি অনীহা এনেছে। এটি অনুধাবন করতে পারছেন দেশটির সচেতন মানুষ থেকে বিশেষজ্ঞরা। এ তালিকা থেকে বাদ যাননি সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা, জর্জ বুশ ও বিল ক্লিনটন। এ কারণে তারা প্রকাশ্যে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন নেবেন এবং পিভি ক্যামেরায় সেটি প্রচার করা হবে। এতে করে ভ্যাকসিন যে নিরাপদ ও এতে কোনো ধরনের জালিয়াতি নেই সে আস্থা তৈরি হবে এবং মানুষ টিকা নিতে উৎসাহী হবে।

২০ জানুয়ারি নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে পরবর্তী চার বছরের জন্য দায়িত্ব নিচ্ছেন জো বাইডেন। তার নির্বাচনী প্রচারণায় করোনা মোকাবেলা ছিল প্রধান প্রতিশ্রুতি। সব আমেরিকানের জন্য টিকা নিশ্চিত করা ও মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করার কথা বলেছিলেন তিনি।