সিরিয়ায় হঠাৎ ‘বিকল্প’ ভাবছে যুক্তরাষ্ট্র

  যুগান্তর ডেস্ক ১৩ এপ্রিল ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ট্রাম্প

সিরিয়ায় সামরিক হামলার তোড়জোর শুরু করে এখন সুর নরম করেছে যুক্তরাষ্ট্র। বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত দৌমায় কথিত রাসায়নিক হামলার প্রতিক্রিয়ায় সিরিয়ার বিরুদ্ধে সামরিক পদক্ষেপ নেয়ার ‘সব বিকল্প টেবিলের ওপর আছে’ বলে জানিয়েছে ওয়াশিংটন।

হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র সারাহ স্যান্ডার্স জানিয়েছেন, ‘স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার প্রেসিডেন্টের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টারা বৈঠকে বসছেন। মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্টের নেতৃত্বে এ বৈঠকে হামলার সব ধরনের বিকল্প বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে।’

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও আগের অবস্থান থেকে সরে এসে সিরিয়ায় হামলার সময়সীমা নিয়ে ধোঁয়াশা তৈরি করেছেন।

বৃহস্পতিবার এক টুইটার বার্তায় তিনি বলেন, সিরিয়ায় হামলা শিগগিরিই হতেও পারে আবার অতি শিগগির নাও হতে পারে। খবর বিবিসি ও এএফপির।

বুধবার সকালে এক টুইটে ট্রাম্প বলেছিলেন, ‘রাশিয়া তৈরি হও, কারণ ক্ষেপণাস্ত্র আসছে, তারা সুন্দর, নতুন এবং স্মার্ট!’ এদিন সন্ধ্যায় এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে স্যান্ডার্স বলেন, ‘নিষ্পত্তি করার মতো অনেকগুলো বিকল্প প্রেসিডেন্টের কাছে আছে আর টেবিলেও অনেক বিকল্প রয়েছে।

আমরা এখনও কোনো পরিকল্পনা গ্রহণ করিনি।’ এতে রাশিয়াকে সতর্ক করে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সকালের আক্রমণাত্মক মন্তব্য থেকে যুক্তরাষ্ট্র একটু সরে যেতে চাইছে বলে প্রতীয়মান হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে ট্রাম্পের এক টুইট বার্তা বিষয়টি আরও স্পষ্ট করেছে। তিনি লিখেছেন, ‘সিরিয়ায় কখন হামলা হবে তা কখনোই বলিনি। শিগগিরই হতে পারে অথবা অতি শিগগিরই নাও হতে পারে।’

ট্রাম্প অবশ্য তার বার্তায় সিরিয়ায় মার্কিন হামলার পরিকল্পনা সরাসরি নাকচ করে দেননি।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেমস ম্যাটিস জানিয়েছেন, রাসায়নিক হামলার বিষয়টি এখনও পরীক্ষা করে দেখছে যুক্তরাষ্ট্র। তিনি জানিয়েছেন, যদি ট্রাম্প সিদ্ধান্ত নেন তাহলে হামলা চালানোর জন্য সামরিক বাহিনী প্রস্তুত।

এই মুহূর্তে সিরিয়া সংলগ্ন ভূমধ্যসাগরে মার্কিন নৌবাহিনীর নিয়ন্ত্রিত ক্ষেপণাস্ত্রবাহী যুদ্ধজাহাজ ইউএসএস ডোনাল্ড কুক মোতায়েন আছে।

বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত দৌমায় রাসায়নিক হামলার জন্য রাশিয়া ও সিরিয়াকে দায়ী বলে ভাবছে যুক্তরাষ্ট্র। এ হামলায় অন্তত ৮০ জন নিহত হয়েছেন।

সন্দেহভাজন এ রাসায়নিক হামলার প্রতিক্রিয়ায় সামরিক হামলা চালানোর বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্স সমন্বিতভাবে কাজ করতে সম্মত হয়েছে।

দেশগুলো সিরিয়ায় সামরিক হামলা চালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে ধারণা আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের। সিরিয়ায় বাশার আল আসাদ বাহিনী রাসায়নিক হামলা চালিয়েছে তার প্রমাণ রয়েছে বলে জানিয়েছেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাত্রেঁদ্ধা।

বৃহস্পতিবার টিএফ১ টেলিভিশনে এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘আমাদের কাছে প্রমাণ রয়েছে যে, গত সপ্তাহে আসাদ বাহিনী ক্লোরিন গ্যাস ব্যবহার করেছে।’

এর আগে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সমন্বিতভাবে সিরিয়ায় হামলা চালানোর হুমকি দিয়েছিলেন। সিরিয়ায় হামলা চালানো হলে তা সিরীয় সরকারের ‘রাসায়নিক স্থাপনাগুলোতে’ চালানো হবে বলে জানিয়েছেন ম্যাত্রেঁদ্ধা।

সিরিয়ায় সম্ভাব্য হামলা নিয়ে আলোচনার জন্য ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে মন্ত্রিসভার বৈঠক ডেকেছেন। ইস্টার উপলক্ষে ছুটিতে থাকা এমপিরা সোমবার ওয়েস্টমিনিস্টার ফিরবেন বলে জানা গেছে। সেদিনই বৈঠকটি হতে পারে।

পার্লামেন্টের সম্মতি ছাড়াই সামরিক পদক্ষেপে যোগ দিতে তেরেসা মে ‘প্রস্তুত বলে মনে হচ্ছে’। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোগান উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছেন, বিশ্বের পরাশক্তিগুলো সিরিয়ায় কুস্তি লড়াইয়ে নেমেছে।

বৃহস্পতিবার আঙ্কারায় এক সমাবেশে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার মধ্যে সিরিয়া ইস্যুতে উত্তেজনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেন তিনি।

ঘটনাপ্রবাহ : সিরিয়া যুদ্ধ

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×