ট্রাম্পের ছেঁড়া নথি জোড়া দিচ্ছে হোয়াইট হাউজ
jugantor
ট্রাম্পের ছেঁড়া নথি জোড়া দিচ্ছে হোয়াইট হাউজ

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৯ জানুয়ারি ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিদায়ি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তার ঘনিষ্টদের নষ্ট করে ফেলা অনেক গুরুত্বপূর্ণ নথি ও রেকর্ড জোড়াতালি দেওয়ার কাজ করছেন ইতিহাসবিদ ও রেকর্ড শাখার কর্মীরা। ট্রাম্পের সবচেয়ে বড় বদভ্যাস হচ্ছে কোনো নথি ছিঁড়ে ছুড়ে ফেলে দেওয়া। জরুরি ও রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুর নথির ক্ষেত্রেও তার অভ্যাসের হেরফের হয় না। ট্রাম্পের দেখাদেখি তার ঘনিষ্ট সহযোগীরাও বহু গুরুত্বপূর্ণ নথি নষ্ট করেছেন। সেগুলো জোড়াতালি দিয়ে পুনরুদ্ধার করতে অনেক সময় ব্যয় করতে হচ্ছে হোয়াইট হাউজের কর্মীদের। দ্য গার্ডিয়ান।

নষ্ট করে ফেলা ছাড়াও গুরুত্বপূর্ণ কিছু নথি জব্দ করে রেখেছেন ট্রাম্প প্রশাসনের কর্মীরা। সেগুলো উদ্ধার করে ও জোড়াতালি দিয়ে ন্যাশনাল আর্কাইভে পাঠানোর ক্ষেত্রে নির্ধারিত সময়সীমা রক্ষা করতে পারবেন না সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। নিয়মানুযায়ী, ২০ জানুয়ারি পুরনো প্রেসিডেন্টের বিদায় ও নতুন প্রেসিডেন্টের আগমনের দিনই আগের প্রেসিডেন্টের চার বছরের রেকর্ড পাঠিয়ে দেওয়া হয় ন্যাশনাল আর্কাইভস অ্যান্ড রেকর্ড অ্যাডমিনিস্ট্রেশনে। কিন্তু এবার সেগুলো সময়মতো পাঠানো সম্ভব হবে না।

হোয়াইট হাউজ কর্মীদের ভাষ্য, ট্রাম্প কোনো নথি ছিঁড়ে ফেলে দিয়েছেন দেখামাত্রই এসে সেগুলো সংগ্রহ করে জোড়াতালি দেওয়ার কাজ করতেন তারা। পালাবদলের এই সময়টার কথা ভেবে নিজ থেকেই এটি করতেন তারা। হোয়াইট হাউজের সাবেক রেকর্ড অ্যানালিস্ট সোলোমন লারটেই বলেন, ‘আমার পরিচালক আমার কাছে এসে বললেন তোমাকে এগুলো জোড়া দিতে হবে।’ ট্রাম্পের ছিঁড়ে ফেলার পর জোড়া দেওয়া প্রথম নথি ছিল ডেমোক্রেটিক সিনেট নেতা চাক শুমারের একটি চিঠি। এছাড়া রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে আলোচনার অনুবাদের কপিসহ আরও অনেক নথি ছিঁড়েছেন ট্রাম্প।

ছেঁড়া নথি উদ্ধারের ক্ষেত্রে অটো কম্পিউটারাইজড রেকর্ড পদ্ধতি সহায়ক হবে। হোয়াইট হাউজে সে ব্যবস্থা রয়েছে।

ট্রাম্পের ছেঁড়া নথি জোড়া দিচ্ছে হোয়াইট হাউজ

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৯ জানুয়ারি ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিদায়ি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তার ঘনিষ্টদের নষ্ট করে ফেলা অনেক গুরুত্বপূর্ণ নথি ও রেকর্ড জোড়াতালি দেওয়ার কাজ করছেন ইতিহাসবিদ ও রেকর্ড শাখার কর্মীরা। ট্রাম্পের সবচেয়ে বড় বদভ্যাস হচ্ছে কোনো নথি ছিঁড়ে ছুড়ে ফেলে দেওয়া। জরুরি ও রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুর নথির ক্ষেত্রেও তার অভ্যাসের হেরফের হয় না। ট্রাম্পের দেখাদেখি তার ঘনিষ্ট সহযোগীরাও বহু গুরুত্বপূর্ণ নথি নষ্ট করেছেন। সেগুলো জোড়াতালি দিয়ে পুনরুদ্ধার করতে অনেক সময় ব্যয় করতে হচ্ছে হোয়াইট হাউজের কর্মীদের। দ্য গার্ডিয়ান।

নষ্ট করে ফেলা ছাড়াও গুরুত্বপূর্ণ কিছু নথি জব্দ করে রেখেছেন ট্রাম্প প্রশাসনের কর্মীরা। সেগুলো উদ্ধার করে ও জোড়াতালি দিয়ে ন্যাশনাল আর্কাইভে পাঠানোর ক্ষেত্রে নির্ধারিত সময়সীমা রক্ষা করতে পারবেন না সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। নিয়মানুযায়ী, ২০ জানুয়ারি পুরনো প্রেসিডেন্টের বিদায় ও নতুন প্রেসিডেন্টের আগমনের দিনই আগের প্রেসিডেন্টের চার বছরের রেকর্ড পাঠিয়ে দেওয়া হয় ন্যাশনাল আর্কাইভস অ্যান্ড রেকর্ড অ্যাডমিনিস্ট্রেশনে। কিন্তু এবার সেগুলো সময়মতো পাঠানো সম্ভব হবে না।

হোয়াইট হাউজ কর্মীদের ভাষ্য, ট্রাম্প কোনো নথি ছিঁড়ে ফেলে দিয়েছেন দেখামাত্রই এসে সেগুলো সংগ্রহ করে জোড়াতালি দেওয়ার কাজ করতেন তারা। পালাবদলের এই সময়টার কথা ভেবে নিজ থেকেই এটি করতেন তারা। হোয়াইট হাউজের সাবেক রেকর্ড অ্যানালিস্ট সোলোমন লারটেই বলেন, ‘আমার পরিচালক আমার কাছে এসে বললেন তোমাকে এগুলো জোড়া দিতে হবে।’ ট্রাম্পের ছিঁড়ে ফেলার পর জোড়া দেওয়া প্রথম নথি ছিল ডেমোক্রেটিক সিনেট নেতা চাক শুমারের একটি চিঠি। এছাড়া রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে আলোচনার অনুবাদের কপিসহ আরও অনেক নথি ছিঁড়েছেন ট্রাম্প।

ছেঁড়া নথি উদ্ধারের ক্ষেত্রে অটো কম্পিউটারাইজড রেকর্ড পদ্ধতি সহায়ক হবে। হোয়াইট হাউজে সে ব্যবস্থা রয়েছে।