মেলানিয়া ছিলেন ‘দায়সারা’ ফার্স্টলেডি
jugantor
মেলানিয়া ছিলেন ‘দায়সারা’ ফার্স্টলেডি
কর্মচারীদের ধন্যবাদ বার্তা লিখিয়েছেন অন্যকে দিয়ে

  যুগান্তর ডেস্ক  

২২ জানুয়ারি ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সদ্য সাবেক মার্কিন ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্প ছিলেন দায়সারা ফার্স্ট লেডি। হোয়াইট হাউজের কর্মচারীদের উদ্দেশে দেওয়া ধন্যবাদ বার্তা তিনি অন্যকে দিয়ে লিখিয়েছেন।

তবে তিনি নিজে স্বাক্ষর করেছেন। ডিজিটাল বার্তায় অবশ্য তার ভয়েসই ছিল। সাধারণত চার বছর (দুই মেয়াদ হলে ৮ বছর) নিজেকে ও পরিবারকে সেবা দেওয়া পরিচারক, দারোয়ান, কর্মচারী ও গৃহকর্মীদের উদ্দেশে ধন্যবাদ বার্তা দিয়ে যান ফার্স্ট লেডিরা। এটি রেওয়াজ।

এতে আন্তরিকতার ছাপ থাকে। কিন্তু মেলানিয়ার বার্তা ছিল দায়সারা। তাকে ‘দায়সারা ফার্স্ট লেডি’ বলছেন সংশ্লিষ্টরা। এমনকি হোয়াইট হাউজ ত্যাগে তিনি ব্যথিতও হননি। কর্মীরা বলছেন, আগে থেকে ব্যাগ-বাক্স গুছিয়ে রেখেছিলেন মেলানিয়া। ডেইলি মেইল।

সোসাইটি পাবলিসিস্ট আর কুরি হেই বলেন, আমার মনে হয় ওয়াশিংটন ছাড়ার পর মেলানিয়াকে জনসমক্ষে খুব বেশি দেখা যাবে না। আগে থেকেই তিনি ছিলেন একজন ‘অনিচ্ছুক বা দায়সারা’ ফার্স্ট লেডি। যুক্তরাষ্ট্রের এক নম্বর নারীর মতো সম্মানের পদটিতে তার তেমন আগ্রহ ছিল না। ২০১৭ সালে হোয়াইট হাউজে ওঠার সময় থেকেই বিষয়টি স্পষ্ট হয়। তারপর থেকে বুধবার হোয়াইট হাউজ

ছেড়ে যাওয়ার সময় পর্যন্ত বিভিন্ন অুনষ্ঠানে মেলানিয়ার ঢিলেঢালা উপস্থিতি থেকে এর প্রমাণ পাওয়া গেছে। সর্বশেষ হোয়াইট হাউজ ছেড়ে যাওয়ার সময়ও তিনি ব্যথিত ছিলেন না। অবশ্য ট্রাম্পের সাবেক কাউন্সেলর কেলিঅ্যান কনওয়ে বলেন, ‘মেলানিয়াকে উষ্ণভাবে স্মরণ করা হবে। তিনি ফার্স্ট লেডির দায়িত্ব ভালোভাবেই পালন করেছেন। তবে লাইমলাইটে আসতেন না। মেলানিয়া এখনও অনেক জনপ্রিয়, ভবিষ্যতেও তাই থাকবেন।’

স্বামী সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কয়েক সপ্তাহ আগেই ঘোষণা দেন, জো বাইডেনের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান ও অভিষেকে উপস্থিত থাকবেন না। তারপর থেকেই মেলানিয়া হোয়াইট হাউজ ছাড়ার প্রস্তুতি নিতে শুরু করেন।

এ সময়ে নিজের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র গোছানো ও পরবর্তী আবাসস্থলের প্রস্তুতি হিসাবে ও হোয়াইট হাউজ ছাড়ার ‘চেক ইন’ চলে তার। নিজেকে ও পরিবারকে চার বছর ধরে সেবা দেওয়া হোয়াইট হাউজের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মচারীর প্রতি ধন্যবাদ বার্তা দেওয়ার ক্ষেত্রেও দায়সারা মনোভাব দেখা গেছে।

মেলানিয়া ছিলেন ‘দায়সারা’ ফার্স্টলেডি

কর্মচারীদের ধন্যবাদ বার্তা লিখিয়েছেন অন্যকে দিয়ে
 যুগান্তর ডেস্ক 
২২ জানুয়ারি ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সদ্য সাবেক মার্কিন ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্প ছিলেন দায়সারা ফার্স্ট লেডি। হোয়াইট হাউজের কর্মচারীদের উদ্দেশে দেওয়া ধন্যবাদ বার্তা তিনি অন্যকে দিয়ে লিখিয়েছেন।

তবে তিনি নিজে স্বাক্ষর করেছেন। ডিজিটাল বার্তায় অবশ্য তার ভয়েসই ছিল। সাধারণত চার বছর (দুই মেয়াদ হলে ৮ বছর) নিজেকে ও পরিবারকে সেবা দেওয়া পরিচারক, দারোয়ান, কর্মচারী ও গৃহকর্মীদের উদ্দেশে ধন্যবাদ বার্তা দিয়ে যান ফার্স্ট লেডিরা। এটি রেওয়াজ।

এতে আন্তরিকতার ছাপ থাকে। কিন্তু মেলানিয়ার বার্তা ছিল দায়সারা। তাকে ‘দায়সারা ফার্স্ট লেডি’ বলছেন সংশ্লিষ্টরা। এমনকি হোয়াইট হাউজ ত্যাগে তিনি ব্যথিতও হননি। কর্মীরা বলছেন, আগে থেকে ব্যাগ-বাক্স গুছিয়ে রেখেছিলেন মেলানিয়া। ডেইলি মেইল।

সোসাইটি পাবলিসিস্ট আর কুরি হেই বলেন, আমার মনে হয় ওয়াশিংটন ছাড়ার পর মেলানিয়াকে জনসমক্ষে খুব বেশি দেখা যাবে না। আগে থেকেই তিনি ছিলেন একজন ‘অনিচ্ছুক বা দায়সারা’ ফার্স্ট লেডি। যুক্তরাষ্ট্রের এক নম্বর নারীর মতো সম্মানের পদটিতে তার তেমন আগ্রহ ছিল না। ২০১৭ সালে হোয়াইট হাউজে ওঠার সময় থেকেই বিষয়টি স্পষ্ট হয়। তারপর থেকে বুধবার হোয়াইট হাউজ

ছেড়ে যাওয়ার সময় পর্যন্ত বিভিন্ন অুনষ্ঠানে মেলানিয়ার ঢিলেঢালা উপস্থিতি থেকে এর প্রমাণ পাওয়া গেছে। সর্বশেষ হোয়াইট হাউজ ছেড়ে যাওয়ার সময়ও তিনি ব্যথিত ছিলেন না। অবশ্য ট্রাম্পের সাবেক কাউন্সেলর কেলিঅ্যান কনওয়ে বলেন, ‘মেলানিয়াকে উষ্ণভাবে স্মরণ করা হবে। তিনি ফার্স্ট লেডির দায়িত্ব ভালোভাবেই পালন করেছেন। তবে লাইমলাইটে আসতেন না। মেলানিয়া এখনও অনেক জনপ্রিয়, ভবিষ্যতেও তাই থাকবেন।’

স্বামী সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কয়েক সপ্তাহ আগেই ঘোষণা দেন, জো বাইডেনের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান ও অভিষেকে উপস্থিত থাকবেন না। তারপর থেকেই মেলানিয়া হোয়াইট হাউজ ছাড়ার প্রস্তুতি নিতে শুরু করেন।

এ সময়ে নিজের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র গোছানো ও পরবর্তী আবাসস্থলের প্রস্তুতি হিসাবে ও হোয়াইট হাউজ ছাড়ার ‘চেক ইন’ চলে তার। নিজেকে ও পরিবারকে চার বছর ধরে সেবা দেওয়া হোয়াইট হাউজের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মচারীর প্রতি ধন্যবাদ বার্তা দেওয়ার ক্ষেত্রেও দায়সারা মনোভাব দেখা গেছে।