ইসরাইলের যুদ্ধাপরাধ তদন্ত শুরু
jugantor
ইসরাইলের যুদ্ধাপরাধ তদন্ত শুরু

  যুগান্তর ডেস্ক  

০৫ মার্চ ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ফিলিস্তিনিদের কাছ থেকে দখল করা ভূখণ্ডে ইসরাইলের যুদ্ধাপরাধ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক তদন্ত শুরু করেছে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত, আইসিসি। বুধবার এক বিবৃতিতে এ তথ্য নিশ্চিত করেন আদালতের চিফ প্রসিকিউটর ফাতু বেনসৌদা। এই তদন্তে ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরাইল যুদ্ধাপরাধ করেছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হবে। একই সঙ্গে ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ আন্দোলন দল হামাসের যুদ্ধাপরাধের অভিযোগও তদন্ত করা হবে। ফিলিস্তিন আইসিসির এই তদন্ত প্রক্রিয়ার স্বাগত জানালেও তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে ইসরাইল। খবর এএফপির।

বেনসৌদা আগেই জানিয়েছিলেন, ২০১৪ সালের গাজায় সহিংসতা চলাকালীন ইসরাইলি সামরিক বাহিনী, ইসরাইলি কর্তৃপক্ষ, হামাস এবং ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলোর মাধ্যমে অপরাধ সংঘটিত হয়েছে বলে বিশ্বাস করার ‘যুক্তিসংগত ভিত্তি’ রয়েছে। বুধবারের বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘ফিলিস্তিনের পরিস্থিতি বিবেচনায় আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের প্রসিকিউটরের কার্যালয়ের তদন্ত শুরুর বিষয়টি আজ নিশ্চিত করছি।’ তদন্তটি স্বাধীন, নিরপেক্ষ ও প্রভাবমুক্ত, ভয় বা পক্ষপাতহীনভাবে পরিচালিত হবে বলেও প্রতিশ্রুতি দেন আইসিসির এ প্রসিকিউটর।

আন্তর্জাতিক আদালতের এই তদন্ত প্রক্রিয়ার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে ইসরাইল। দেশটির প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু এক বিবৃতিতে বলেছেন, ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী হিসাবে আমি নিশ্চিত করছি, আমরা এই ‘বিকৃত বিচারের’ বিরুদ্ধে সর্বশক্তি দিয়ে লড়াই করব।’ ইসরাইলিদের বিরুদ্ধে ওঠা যুদ্ধাপরাধের অভিযোগকে ‘ভুয়া যুদ্ধাপরাধ’ বলেও মন্তব্য করেন তিনি। ইসরাইলের ঘনিষ্ঠ মিত্র যুক্তরাষ্ট্রও আইসিসির এই পদক্ষেপে উদ্বেগ জানিয়েছে। তাদের দাবি, ইসরাইল আইসিসির সদস্য না হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে তদন্তের এখতিয়ার নেই আদালতের। তবে আইসিসির পদক্ষেপকে ‘ন্যায়বিচার এবং মানবতার জয়’ বলে উল্লেখ করেছেন ফিলিস্তিনি প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ শতায়ে।

যুগের পর যুগ ধরে নিজ ভূখণ্ডে ইসরাইলি বাহিনীর হাতে নিপীড়িত ফিলিস্তিনিরা অবশেষে বিচার চাওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন। ফিলিস্তিনে ভূখণ্ডে সংঘটিত যুদ্ধাপরাধ তদন্তের এখতিয়ার আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের রয়েছে-গত মাসেই সংখ্যাগরিষ্ঠ বিচারকদের মতামতের ভিত্তিতে এক রায় দেন আইসিসি। আইসিসির এই রায়ের ফলে ইসরাইলি সেনাদের বিরুদ্ধে তদন্তের পথ উন্মুক্ত হয়। এই রায়কে স্বাগত জানায় ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ। ‘আইসিসির যুদ্ধাপরাধ তদন্তের এখতিয়ার নেই’ বলে যথারীতি ওই রায় প্রত্যাখ্যান করে ইসরাইল সরকার।

সম্প্রতি গাজার খান ইউনুসের তওফিক আবু জামা নামে এক ফিলিস্তিনি বলেন, ২০১৪ সালে সাত সপ্তাহব্যাপী ওই যুদ্ধে ইসরাইলের বিমান হামলায় তার যৌথ পরিবারের ২৪ সদস্য নিহত হয়। ওই যুদ্ধে মোট ২১শ ফিলিস্তিনির মৃত্যু হয় যাদের অনেকেই ছিল সাধারণ নাগরিক। অন্যদিকে, একই যুদ্ধে ইসরাইলের ৬৭ জন সৈনিক ও ছয়জন বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়।

ইসরাইলের যুদ্ধাপরাধ তদন্ত শুরু

 যুগান্তর ডেস্ক 
০৫ মার্চ ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ফিলিস্তিনিদের কাছ থেকে দখল করা ভূখণ্ডে ইসরাইলের যুদ্ধাপরাধ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক তদন্ত শুরু করেছে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত, আইসিসি। বুধবার এক বিবৃতিতে এ তথ্য নিশ্চিত করেন আদালতের চিফ প্রসিকিউটর ফাতু বেনসৌদা। এই তদন্তে ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরাইল যুদ্ধাপরাধ করেছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হবে। একই সঙ্গে ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ আন্দোলন দল হামাসের যুদ্ধাপরাধের অভিযোগও তদন্ত করা হবে। ফিলিস্তিন আইসিসির এই তদন্ত প্রক্রিয়ার স্বাগত জানালেও তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে ইসরাইল। খবর এএফপির।

বেনসৌদা আগেই জানিয়েছিলেন, ২০১৪ সালের গাজায় সহিংসতা চলাকালীন ইসরাইলি সামরিক বাহিনী, ইসরাইলি কর্তৃপক্ষ, হামাস এবং ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলোর মাধ্যমে অপরাধ সংঘটিত হয়েছে বলে বিশ্বাস করার ‘যুক্তিসংগত ভিত্তি’ রয়েছে। বুধবারের বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘ফিলিস্তিনের পরিস্থিতি বিবেচনায় আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের প্রসিকিউটরের কার্যালয়ের তদন্ত শুরুর বিষয়টি আজ নিশ্চিত করছি।’ তদন্তটি স্বাধীন, নিরপেক্ষ ও প্রভাবমুক্ত, ভয় বা পক্ষপাতহীনভাবে পরিচালিত হবে বলেও প্রতিশ্রুতি দেন আইসিসির এ প্রসিকিউটর।

আন্তর্জাতিক আদালতের এই তদন্ত প্রক্রিয়ার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে ইসরাইল। দেশটির প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু এক বিবৃতিতে বলেছেন, ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী হিসাবে আমি নিশ্চিত করছি, আমরা এই ‘বিকৃত বিচারের’ বিরুদ্ধে সর্বশক্তি দিয়ে লড়াই করব।’ ইসরাইলিদের বিরুদ্ধে ওঠা যুদ্ধাপরাধের অভিযোগকে ‘ভুয়া যুদ্ধাপরাধ’ বলেও মন্তব্য করেন তিনি। ইসরাইলের ঘনিষ্ঠ মিত্র যুক্তরাষ্ট্রও আইসিসির এই পদক্ষেপে উদ্বেগ জানিয়েছে। তাদের দাবি, ইসরাইল আইসিসির সদস্য না হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে তদন্তের এখতিয়ার নেই আদালতের। তবে আইসিসির পদক্ষেপকে ‘ন্যায়বিচার এবং মানবতার জয়’ বলে উল্লেখ করেছেন ফিলিস্তিনি প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ শতায়ে।

যুগের পর যুগ ধরে নিজ ভূখণ্ডে ইসরাইলি বাহিনীর হাতে নিপীড়িত ফিলিস্তিনিরা অবশেষে বিচার চাওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন। ফিলিস্তিনে ভূখণ্ডে সংঘটিত যুদ্ধাপরাধ তদন্তের এখতিয়ার আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের রয়েছে-গত মাসেই সংখ্যাগরিষ্ঠ বিচারকদের মতামতের ভিত্তিতে এক রায় দেন আইসিসি। আইসিসির এই রায়ের ফলে ইসরাইলি সেনাদের বিরুদ্ধে তদন্তের পথ উন্মুক্ত হয়। এই রায়কে স্বাগত জানায় ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ। ‘আইসিসির যুদ্ধাপরাধ তদন্তের এখতিয়ার নেই’ বলে যথারীতি ওই রায় প্রত্যাখ্যান করে ইসরাইল সরকার।

সম্প্রতি গাজার খান ইউনুসের তওফিক আবু জামা নামে এক ফিলিস্তিনি বলেন, ২০১৪ সালে সাত সপ্তাহব্যাপী ওই যুদ্ধে ইসরাইলের বিমান হামলায় তার যৌথ পরিবারের ২৪ সদস্য নিহত হয়। ওই যুদ্ধে মোট ২১শ ফিলিস্তিনির মৃত্যু হয় যাদের অনেকেই ছিল সাধারণ নাগরিক। অন্যদিকে, একই যুদ্ধে ইসরাইলের ৬৭ জন সৈনিক ও ছয়জন বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন