সংসার ভাঙে ধনকুবেরদেরও
jugantor
সংসার ভাঙে ধনকুবেরদেরও

  যুগান্তর ডেস্ক  

০৫ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সংসার টেকাতে টাকাই সব নয়। সম্পর্ক গড়া কিংবা টেকানো, কোনো ক্ষেত্রেই টাকার কোনো মূল্য নেই। জেফ বোজেস ও ইলন মাস্কের মাইক্রোসফট কর্ণধর বিল গেটস আর মেলিন্ডার বিচ্ছেদের মাধ্যমে সেটাই প্রমাণিত হলো আরেকবার। বড় বড় সংক্রামক ব্যাধির প্রতিষেধক আবিষ্কারকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর মালিক এই তিন শীর্ষ প্রযুক্তিবিদের ঘরেও শেষ পর্যন্ত ঢুকে পড়ে সংসারভাঙা ভাইরাস!

বিল গেটসের সম্পদ নিয়ে নতুন করে কিছু বলার নেই। এ অবস্থায় কারণ যা-ই হোক, মেলিন্ডার সঙ্গে ২৭ বছরের সংসারজীবনের ইতি! এটা মেনে নিতে কষ্ট হবে সাধারণ মানুষের। কিন্তু তাদের সম্পর্কটা আরও পুরনো, ৩৪ বছরের। তিন সন্তানের মায়া, আরাম-আয়েশ-বিলাসিতা, বিশাল ধনসম্পদের পাহাড়-কোনো পিছুটানই তাদের শেষ পর্যন্ত কাজে আসেনি। ১৯৯৪ সালে বিল গেটস বিয়ে করেছিলেন তার কোম্পানির কর্মকর্তা মেলিন্ডাকে। তার এক বছর পরই তিনি বিশ্বের সেরা ধনীদের মধ্যে শীর্ষস্থান দখল করেছিলেন।

জেফরি প্রেস্টন জেফ বেজোস একজন মার্কিন ইন্টারনেট উদ্যোক্তা এবং বিনিয়োগকারী। তিনি একজন প্রযুক্তি উদ্যোক্তা যিনি ই-কমার্সের ক্ষেত্রে মুখ্য ভূমিকা পালন করেছেন। বিশ্বব্যাপী ইন্টারনেট ওয়েব ব্যবসায় তার প্রতিষ্ঠিত আমাজন তাকে তুলে এনেছে শীর্ষ ধনীদের কাতারে। ১৯৯৩ সালে তিনি বিয়ে করেছিলেন আমেরিকান ঔপন্যাসিক ও সমাজসেবক ম্যাকেঞ্জি স্কটকে। ২০১৯ সালে তাদের ২৫ বছরের দাম্পত্য সম্পর্কের ইতি ঘটে। ছাড়াছাড়ির পর ৩৫ বিলিয়ন ডলার দিতে হয়েছেল তার সাবেক স্ত্রীকে। বোজেস দম্পতির ওই ডিভোর্সই এখন পর্যন্ত বিশ্বের সবচেয়ে ব্যায়বহুল বিচ্ছেদ।

অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রের স্পেসএক্স ও টেসলার মালিক প্রকৌশলী ইলন রিভ মাস্কও ধনশালী ব্যক্তিত্ব। বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াকালে তার সঙ্গে পরিচয় ও প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল কানাডিয়ান লেখক জাস্টিন উইনসনের। ২০০০ সালে তারা সে সম্পর্ককে বিয়েতে রূপ দেন। কিন্তু সংসার টেকে মাত্র আট বছর। ২০০৮ সালে তাদের মধ্যে বিচ্ছেদ ঘটে।

সংসার ভাঙে ধনকুবেরদেরও

 যুগান্তর ডেস্ক 
০৫ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সংসার টেকাতে টাকাই সব নয়। সম্পর্ক গড়া কিংবা টেকানো, কোনো ক্ষেত্রেই টাকার কোনো মূল্য নেই। জেফ বোজেস ও ইলন মাস্কের মাইক্রোসফট কর্ণধর বিল গেটস আর মেলিন্ডার বিচ্ছেদের মাধ্যমে সেটাই প্রমাণিত হলো আরেকবার। বড় বড় সংক্রামক ব্যাধির প্রতিষেধক আবিষ্কারকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর মালিক এই তিন শীর্ষ প্রযুক্তিবিদের ঘরেও শেষ পর্যন্ত ঢুকে পড়ে সংসারভাঙা ভাইরাস!

বিল গেটসের সম্পদ নিয়ে নতুন করে কিছু বলার নেই। এ অবস্থায় কারণ যা-ই হোক, মেলিন্ডার সঙ্গে ২৭ বছরের সংসারজীবনের ইতি! এটা মেনে নিতে কষ্ট হবে সাধারণ মানুষের। কিন্তু তাদের সম্পর্কটা আরও পুরনো, ৩৪ বছরের। তিন সন্তানের মায়া, আরাম-আয়েশ-বিলাসিতা, বিশাল ধনসম্পদের পাহাড়-কোনো পিছুটানই তাদের শেষ পর্যন্ত কাজে আসেনি। ১৯৯৪ সালে বিল গেটস বিয়ে করেছিলেন তার কোম্পানির কর্মকর্তা মেলিন্ডাকে। তার এক বছর পরই তিনি বিশ্বের সেরা ধনীদের মধ্যে শীর্ষস্থান দখল করেছিলেন।

জেফরি প্রেস্টন জেফ বেজোস একজন মার্কিন ইন্টারনেট উদ্যোক্তা এবং বিনিয়োগকারী। তিনি একজন প্রযুক্তি উদ্যোক্তা যিনি ই-কমার্সের ক্ষেত্রে মুখ্য ভূমিকা পালন করেছেন। বিশ্বব্যাপী ইন্টারনেট ওয়েব ব্যবসায় তার প্রতিষ্ঠিত আমাজন তাকে তুলে এনেছে শীর্ষ ধনীদের কাতারে। ১৯৯৩ সালে তিনি বিয়ে করেছিলেন আমেরিকান ঔপন্যাসিক ও সমাজসেবক ম্যাকেঞ্জি স্কটকে। ২০১৯ সালে তাদের ২৫ বছরের দাম্পত্য সম্পর্কের ইতি ঘটে। ছাড়াছাড়ির পর ৩৫ বিলিয়ন ডলার দিতে হয়েছেল তার সাবেক স্ত্রীকে। বোজেস দম্পতির ওই ডিভোর্সই এখন পর্যন্ত বিশ্বের সবচেয়ে ব্যায়বহুল বিচ্ছেদ।

অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রের স্পেসএক্স ও টেসলার মালিক প্রকৌশলী ইলন রিভ মাস্কও ধনশালী ব্যক্তিত্ব। বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াকালে তার সঙ্গে পরিচয় ও প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল কানাডিয়ান লেখক জাস্টিন উইনসনের। ২০০০ সালে তারা সে সম্পর্ককে বিয়েতে রূপ দেন। কিন্তু সংসার টেকে মাত্র আট বছর। ২০০৮ সালে তাদের মধ্যে বিচ্ছেদ ঘটে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন