যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষপাতিত্বের নিন্দা কংগ্রেস সদস্যদের
jugantor
যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষপাতিত্বের নিন্দা কংগ্রেস সদস্যদের
ইসরাইলকে সমর্থন জানিয়ে বাইডেনের ফোন * মাহমুদ আব্বাসকে বললেন ‘রকেট হামলা থামাও’ * হামলা চলবেই : নেতানিয়াহু

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৭ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ইসরাইলের পক্ষে অবস্থান নেওয়ায় প্রেসিডেন্ট বাইডেনের সমালোচনা করেছেন কয়েকজন কংগ্রেস সদস্য। ফিলিস্তিনকে স্বাধীন করার জন্য প্রয়োজনীয় সমর্থন দিতে দেশের জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন মার্কিন কংগ্রেসে প্রতিনিধি পরিষদের সদস্য কোরি বুশ। ফিলিস্তিনি নিরস্ত্র সাধারণ মানুষের ওপর ইহুদিবাদী ইসরাইলের অব্যাহত আগ্রাসনের মুখে এই আহ্বান জানান তিনি। কোরি বুশ বলেছেন, ‘মার্কিন নাগরিকদের করের টাকা নির্যাতিত ফিলিস্তিনি জনগণের ওপর ইসরাইলি আগ্রাসনের জন্য তহবিল হিসাবে ব্যবহৃত হতে পারে না। আমরা যুদ্ধবিরোধী, আমরা দখলদারিত্বের বিরোধী এবং আমরা বর্ণবাদবিরোধী।’ এক টুইটবার্তায় কোরি বুশ আরও জানিয়েছেন, কৃষ্ণাঙ্গদের জীবনরক্ষার আন্দোলন আর ফিলিস্তিনের স্বাধীনতার আন্দোলন একটি অপরটির সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত। বাইডেনের তীব্র সমালোচনা করেছেন ফিলিস্তিনি বংশোদ্ভূত মার্কিন কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদের ডেমোক্র্যাট দলের সদস্য রাশিদা তৈয়ব। কংগ্রেসে ফিলিস্তিন প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে তিনি চোখের পানি সংবরণ করতে পারেননি। মার্কিন কংগ্রেসে একমাত্র ফিলিস্তিনি-আমেরিকান সদস্য রাশিদা বলেন, ‘প্রেসিডেন্ট বাইডেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ব্লিঙ্কেন, জেনারেল অস্টিন ও উভয় দলের অন্য নেতাদের বিবৃতিগুলো পড়লে মনেই হবে না যে, ফিলিস্তিনিদের অস্তিত্ব আছে। ফিলিস্তিনি পরিবারগুলোকে ঠিক এ মুহূর্তে হামলা চালিয়ে তাদের বাড়িঘর ছিন্নভিন্ন করে দেওয়া হচ্ছে, পরিবারগুলো ছিন্নভিন্ন হয়ে যাচ্ছে।’ যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসওম্যান ইলহান ওমর বলেছেন, গাজায় বিমান হামলা করে সন্ত্রাসবাদী কাজ করেছে ইসরাইল। সোমবার এক টুইটবার্তায় মার্কিন ওই মুসলিম নারী আইনপ্রণেতা এ কথা বলেন। ফিলিস্তিনিদেরও নিজেদের রক্ষা করার অধিকার আছে। তিনি ইসরাইলকে এ কাজে মদদ দেওয়ার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের সরকারেরও কঠোর সমালোচনা করেন। তিনি এখনই ইসরাইলের লাগাম টেনে ধরার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানান। ইসরাইলকে ‘বর্ণবাদী রাষ্ট্র’ আখ্যা দিয়েছেন মার্কিন কংগ্রেসওম্যান আলেকজান্দ্রিয়া ওকাসিও কর্টেজ। প্রেসিডেন্ট বাইডেনের পক্ষপাতমূলক অবস্থানের নিন্দা জানান তিনি। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কীভাবে মানবাধিকারের বিপক্ষে দাঁড়ায়, এটা ভেবে তিনি বিস্মিত হয়েছেন বলে জানান।

ফিলিস্তিনে চলমান পরিস্থিতি নিয়ে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসকে রকেট হামলা থামাতে ও ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুকে সমর্থন জানিয়ে ফোন করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এরপরই গাজায় হামলা অব্যাহত রাখার হুমকি দিয়েছেন নেতানিয়াহু। এর জবাবে হামাস নেতা ইসমাইল হানিয়াও পালটা হামলার কথা জানান। পাশাপাশি মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের পক্ষপাতমূলক অবস্থানের সমালোচনা করে বিবৃতি দিয়েছেন কয়েকজন কংগ্রেস সদস্য। আলজাজিরা, রয়টার্স, এএফপি। শনিবার হোয়াইট হাউজ এক বিবৃতিতে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসকে রকেট হামলা থামাতে ও ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর সঙ্গে পৃথক ফোনালাপের বিষয়টি জানিয়েছে। ইসরাইলকে সমর্থন জানিয়ে ওই বিবৃতিতে বলা হয়, প্রেসিডেন্ট বাইডেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রীকে বলেছেন, গাজা থেকে হামাস ও অন্যান্য সন্ত্রাসী পক্ষের রকেট হামলা ঠেকাতে ইসরাইলের আত্মরক্ষার অধিকার রয়েছে। আর এই অধিকারের প্রতি তার (বাইডেন) একনিষ্ঠ সমর্থন অব্যাহত থাকবে। তবে তিনি দুই দেশের মধ্যে চলমান লড়াইয়ে শিশু ও বেসামরিক নাগরিকদের মৃত্যু এবং গণমাধ্যমের কার্যালয় ধ্বংসের ব্যাপারে উদ্বেগ জানিয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষপাতিত্বের নিন্দা কংগ্রেস সদস্যদের

ইসরাইলকে সমর্থন জানিয়ে বাইডেনের ফোন * মাহমুদ আব্বাসকে বললেন ‘রকেট হামলা থামাও’ * হামলা চলবেই : নেতানিয়াহু
 যুগান্তর ডেস্ক 
১৭ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ইসরাইলের পক্ষে অবস্থান নেওয়ায় প্রেসিডেন্ট বাইডেনের সমালোচনা করেছেন কয়েকজন কংগ্রেস সদস্য। ফিলিস্তিনকে স্বাধীন করার জন্য প্রয়োজনীয় সমর্থন দিতে দেশের জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন মার্কিন কংগ্রেসে প্রতিনিধি পরিষদের সদস্য কোরি বুশ। ফিলিস্তিনি নিরস্ত্র সাধারণ মানুষের ওপর ইহুদিবাদী ইসরাইলের অব্যাহত আগ্রাসনের মুখে এই আহ্বান জানান তিনি। কোরি বুশ বলেছেন, ‘মার্কিন নাগরিকদের করের টাকা নির্যাতিত ফিলিস্তিনি জনগণের ওপর ইসরাইলি আগ্রাসনের জন্য তহবিল হিসাবে ব্যবহৃত হতে পারে না। আমরা যুদ্ধবিরোধী, আমরা দখলদারিত্বের বিরোধী এবং আমরা বর্ণবাদবিরোধী।’ এক টুইটবার্তায় কোরি বুশ আরও জানিয়েছেন, কৃষ্ণাঙ্গদের জীবনরক্ষার আন্দোলন আর ফিলিস্তিনের স্বাধীনতার আন্দোলন একটি অপরটির সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত। বাইডেনের তীব্র সমালোচনা করেছেন ফিলিস্তিনি বংশোদ্ভূত মার্কিন কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদের ডেমোক্র্যাট দলের সদস্য রাশিদা তৈয়ব। কংগ্রেসে ফিলিস্তিন প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে তিনি চোখের পানি সংবরণ করতে পারেননি। মার্কিন কংগ্রেসে একমাত্র ফিলিস্তিনি-আমেরিকান সদস্য রাশিদা বলেন, ‘প্রেসিডেন্ট বাইডেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ব্লিঙ্কেন, জেনারেল অস্টিন ও উভয় দলের অন্য নেতাদের বিবৃতিগুলো পড়লে মনেই হবে না যে, ফিলিস্তিনিদের অস্তিত্ব আছে। ফিলিস্তিনি পরিবারগুলোকে ঠিক এ মুহূর্তে হামলা চালিয়ে তাদের বাড়িঘর ছিন্নভিন্ন করে দেওয়া হচ্ছে, পরিবারগুলো ছিন্নভিন্ন হয়ে যাচ্ছে।’ যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসওম্যান ইলহান ওমর বলেছেন, গাজায় বিমান হামলা করে সন্ত্রাসবাদী কাজ করেছে ইসরাইল। সোমবার এক টুইটবার্তায় মার্কিন ওই মুসলিম নারী আইনপ্রণেতা এ কথা বলেন। ফিলিস্তিনিদেরও নিজেদের রক্ষা করার অধিকার আছে। তিনি ইসরাইলকে এ কাজে মদদ দেওয়ার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের সরকারেরও কঠোর সমালোচনা করেন। তিনি এখনই ইসরাইলের লাগাম টেনে ধরার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানান। ইসরাইলকে ‘বর্ণবাদী রাষ্ট্র’ আখ্যা দিয়েছেন মার্কিন কংগ্রেসওম্যান আলেকজান্দ্রিয়া ওকাসিও কর্টেজ। প্রেসিডেন্ট বাইডেনের পক্ষপাতমূলক অবস্থানের নিন্দা জানান তিনি। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কীভাবে মানবাধিকারের বিপক্ষে দাঁড়ায়, এটা ভেবে তিনি বিস্মিত হয়েছেন বলে জানান।

ফিলিস্তিনে চলমান পরিস্থিতি নিয়ে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসকে রকেট হামলা থামাতে ও ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুকে সমর্থন জানিয়ে ফোন করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এরপরই গাজায় হামলা অব্যাহত রাখার হুমকি দিয়েছেন নেতানিয়াহু। এর জবাবে হামাস নেতা ইসমাইল হানিয়াও পালটা হামলার কথা জানান। পাশাপাশি মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের পক্ষপাতমূলক অবস্থানের সমালোচনা করে বিবৃতি দিয়েছেন কয়েকজন কংগ্রেস সদস্য। আলজাজিরা, রয়টার্স, এএফপি। শনিবার হোয়াইট হাউজ এক বিবৃতিতে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসকে রকেট হামলা থামাতে ও ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর সঙ্গে পৃথক ফোনালাপের বিষয়টি জানিয়েছে। ইসরাইলকে সমর্থন জানিয়ে ওই বিবৃতিতে বলা হয়, প্রেসিডেন্ট বাইডেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রীকে বলেছেন, গাজা থেকে হামাস ও অন্যান্য সন্ত্রাসী পক্ষের রকেট হামলা ঠেকাতে ইসরাইলের আত্মরক্ষার অধিকার রয়েছে। আর এই অধিকারের প্রতি তার (বাইডেন) একনিষ্ঠ সমর্থন অব্যাহত থাকবে। তবে তিনি দুই দেশের মধ্যে চলমান লড়াইয়ে শিশু ও বেসামরিক নাগরিকদের মৃত্যু এবং গণমাধ্যমের কার্যালয় ধ্বংসের ব্যাপারে উদ্বেগ জানিয়েছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন