ভারতে করোনা সংক্রমণ কমেছে, বেড়েছে মৃত্যু
jugantor
ভারতে করোনা সংক্রমণ কমেছে, বেড়েছে মৃত্যু

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৮ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় দুই লাখ ৮১ হাজার ৩৮৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। গত ২১ এপ্রিলের পর দেশটিতে এই প্রথম ২৪ ঘণ্টায় তিন লাখের নিচে করোনা রোগী শনাক্ত হলো। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় মারা গেছেন চার হাজার ১০৬ জন। এ হিসাব অনুযায়ী ভারতে শনিবারের তুলনায় রোববার করোনা শনাক্তের সংখ্যা কমেছে। তবে করোনায় মৃত্যু বেড়েছে তাদের। সোমবার এনডিটিভি অনলাইনের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। সবশেষ এ তথ্য নিয়ে ভারতে করোনায় সংক্রমিত মোট শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে দুই কোটি ৪৯ লাখ ৬৫ হাজার ৪৬৩। করোনায় দেশটিতে মোট মারা গেছেন দুই লাখ ৭৪ হাজার ৩৯০ জন। দেশটিতে শনিবার তিন লাখ ১১ হাজার ১৭০ জনের করোনা শনাক্ত হয়। এদিন করোনায় মারা যান চার হাজার ৭৭ জন। শুক্রবার শনাক্ত হয় তিন লাখ ২৬ হাজার জন। এদিন মারা যান তিন হাজার ৯৮০ জন। বৃহস্পতিবার শনাক্ত হয় তিন লাখ ৪৩ হাজার। এদিন মারা যান চার হাজার মানুষ। গত ৩০ এপ্রিল ভারতে প্রথম একদিনে চার লাখের বেশি মানুষের করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ে।

তারপর একাধিক দিন দেশটিতে চার লাখের বেশি রোগী শনাক্ত হয়। ৭ মে ভারতে প্রথম একদিনে চার হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়।

বিশ্বের কোনো দেশে একদিনে সর্বোচ্চসংখ্যক করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে ভারতে। গত ২২ এপ্রিলের আগ পর্যন্ত এই রেকর্ডের ঘরে নাম ছিল যুক্তরাষ্ট্রের। সে দেশে গত জানুয়ারিতে একদিনে সর্বোচ্চ দুই লাখ ৯৭ হাজার ৪৩০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল।

বিশ্বে বর্তমানে করোনার সংক্রমণের কেন্দ্র ভারত। ভারতে সংক্রমণের হার বৃদ্ধির কারণ হিসাবে করোনার ভারতীয় ভ্যারিয়্যান্টকে অনেকাংশে দায়ী করা হচ্ছে। করোনার ভারতীয় ধরনকে ‘উদ্বেগজনক’ হিসাবে চিহ্নিত করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, করোনাভাইরাসের ভারতীয় ধরন দাবানলের মতো ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ম্যাট হ্যানকক।

ব্রিটিশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী হ্যানকক রোববার বলেছেন, ‘সবাইকে সতর্ক হতে হবে এবং চোখকান খোলা রাখতে হবে। ভারতীয় ধরন টিকা না নেওয়া মানুষের মধ্যে দাবানলের মতো ছড়িয়ে পড়তে পারে।’ সে কারণে যত বেশিসংখ্যক মানুষকে সম্ভব টিকা দেওয়ার ব্যাপারে জোর দিয়েছেন তিনি।

ভারতে করোনা সংক্রমণ কমেছে, বেড়েছে মৃত্যু

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৮ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় দুই লাখ ৮১ হাজার ৩৮৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। গত ২১ এপ্রিলের পর দেশটিতে এই প্রথম ২৪ ঘণ্টায় তিন লাখের নিচে করোনা রোগী শনাক্ত হলো। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় মারা গেছেন চার হাজার ১০৬ জন। এ হিসাব অনুযায়ী ভারতে শনিবারের তুলনায় রোববার করোনা শনাক্তের সংখ্যা কমেছে। তবে করোনায় মৃত্যু বেড়েছে তাদের। সোমবার এনডিটিভি অনলাইনের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। সবশেষ এ তথ্য নিয়ে ভারতে করোনায় সংক্রমিত মোট শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে দুই কোটি ৪৯ লাখ ৬৫ হাজার ৪৬৩। করোনায় দেশটিতে মোট মারা গেছেন দুই লাখ ৭৪ হাজার ৩৯০ জন। দেশটিতে শনিবার তিন লাখ ১১ হাজার ১৭০ জনের করোনা শনাক্ত হয়। এদিন করোনায় মারা যান চার হাজার ৭৭ জন। শুক্রবার শনাক্ত হয় তিন লাখ ২৬ হাজার জন। এদিন মারা যান তিন হাজার ৯৮০ জন। বৃহস্পতিবার শনাক্ত হয় তিন লাখ ৪৩ হাজার। এদিন মারা যান চার হাজার মানুষ। গত ৩০ এপ্রিল ভারতে প্রথম একদিনে চার লাখের বেশি মানুষের করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ে।

তারপর একাধিক দিন দেশটিতে চার লাখের বেশি রোগী শনাক্ত হয়। ৭ মে ভারতে প্রথম একদিনে চার হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়।

বিশ্বের কোনো দেশে একদিনে সর্বোচ্চসংখ্যক করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে ভারতে। গত ২২ এপ্রিলের আগ পর্যন্ত এই রেকর্ডের ঘরে নাম ছিল যুক্তরাষ্ট্রের। সে দেশে গত জানুয়ারিতে একদিনে সর্বোচ্চ দুই লাখ ৯৭ হাজার ৪৩০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল।

বিশ্বে বর্তমানে করোনার সংক্রমণের কেন্দ্র ভারত। ভারতে সংক্রমণের হার বৃদ্ধির কারণ হিসাবে করোনার ভারতীয় ভ্যারিয়্যান্টকে অনেকাংশে দায়ী করা হচ্ছে। করোনার ভারতীয় ধরনকে ‘উদ্বেগজনক’ হিসাবে চিহ্নিত করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, করোনাভাইরাসের ভারতীয় ধরন দাবানলের মতো ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ম্যাট হ্যানকক।

ব্রিটিশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী হ্যানকক রোববার বলেছেন, ‘সবাইকে সতর্ক হতে হবে এবং চোখকান খোলা রাখতে হবে। ভারতীয় ধরন টিকা না নেওয়া মানুষের মধ্যে দাবানলের মতো ছড়িয়ে পড়তে পারে।’ সে কারণে যত বেশিসংখ্যক মানুষকে সম্ভব টিকা দেওয়ার ব্যাপারে জোর দিয়েছেন তিনি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন