বাইডেনের তীক্ষ্ণ বুদ্ধি কম
jugantor
পিউ রিসার্চের জরিপ
বাইডেনের তীক্ষ্ণ বুদ্ধি কম

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের বুদ্ধিমত্তা তথা মানসিক তীক্ষ্ণতা এবং পররাষ্ট্রনীতির ওপর ক্রমেই আস্থা হারিয়ে ফেলছেন মার্কিনীরা। ১৩ থেকে ১৯ সেপ্টেম্বরের মধ্যে পিউ রিসার্চ সেন্টার পরিচালিত এক জরিপে এ তথ্য উঠে এসেছে। জরিপে প্রেসিডেন্ট বাইডেনের বিরুদ্ধে ভোটারদের ব্যাপক ক্ষোভ দেখা গেছে। বৃহস্পতিবার প্রকাশিত এ জরিপ অনুযায়ী বর্তমানে বাইডেন সরকারের গ্রহণযোগ্যতা মাত্র ৩০ শতাংশ। রোববার এ খবর দিয়েছে গার্ডিয়ান। জরিপ বলছে, ৫৬ শতাংশ আমেরিকান মনে করেন প্রেসিডেন্ট বাইডেনের মানসিক দক্ষতা ‘মোটেও ভালো না’ বা ‘বেশি ভালো না’। অন্যদিকে ৪৩ শতাংশ মনে করেন, প্রেসিডেন্ট বাইডেনের মানসিক দক্ষতা ‘খুব ভালো’ বা ‘মোটামুটি ভালো’।

মাত্র ৪৩ শতাংশ আমেরিকান বিশ্বাস করেন বাইডেন অভিবাসনের সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে বুদ্ধিমত্তার পরিচয় দিয়েছেন। আর ৫৬ ভাগই এর বিরুদ্ধে অবস্থান নেন। সংখ্যাগরিষ্ঠ ৩৭ শতাংশ জনগণ মনে করেন তার অভিবাসন নীতিতে মোটেও আÍবিশ্বাসী নয়। সম্প্রতি দেশটির দক্ষিণ-পশ্চিম সীমান্তে ক্রমবর্ধমান সংকটের পটভূমি সে কথাই আরেকবার প্রমাণ করছে। হাজার হাজার হাইতিয়ান অভিবাসী বিষয়ে বাইডেনের সিদ্ধান্ত সংশ্লিষ্টদের ক্ষোভ অর্জন করেছে। পিউর জরিপে ভোটারদের মতে, বাইডেন দেশকে একত্রিত করার জন্য তার প্রচারণার প্রতিশ্র“তিতেও ব্যর্থ হয়েছেন। এই মতামতের পক্ষে ভোট দেন ৬৬ শতাংশ। বাকি ৩৪ শতাংশ মনে করেন-না তিনি ব্যর্থ হননি।

তবে কোভিড-১৯ মহামারি মোকাবেলায় তার দক্ষতার পক্ষে ভোট দিয়েছেন ৫০ শতাংশ ভোটার। ৪৯ শতাংশ বলেছেন এক্ষেত্রে তিনি ব্যর্থ হয়েছেন। গত সপ্তাহেও ধন্যবাদ জানাতে গিয়ে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রীর নামই ভুলে গিয়েছিলেন বাইডেন। সম্প্রতি মার্কিন প্রেসিডেন্টের এমন ভুল-ভ্রান্তি নজরে আসছে সবার। ৭৮ বছর বয়সি প্রেসিডেন্ট বাইডেনকে জাতিসংঘের ভাষণেও দিধাদ্বন্দ্বে পড়তে দেখা গেছে। সম্প্রতি আরও একটি সংবাদ সম্মেলনে দেখা যায় যে, প্রেসিডেন্ট বাইডেন মনে করতে পারছিলেন না কি বলতে চেয়েছিলেন।

প্রেসিডেন্ট বাইডেনের এমন কাণ্ডের কঠোর সমালোচনা করছেন রিপাবলিকানদের অনেকে। ধীরে ধীরে আমেরিকার সাধারণ নাগরিকরাও বিষয়টি নজরে আনছেন। তবে এটি প্রথম নয়, সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের এরকম ভুলের বহু তথ্য পাওয়া যায় তার চার বছরের শাসনকালে। এর আগে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাসহ ডোনাল্ড ট্রাম্পেরও এমন ভুলভ্রান্তি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

পিউ রিসার্চের জরিপ

বাইডেনের তীক্ষ্ণ বুদ্ধি কম

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের বুদ্ধিমত্তা তথা মানসিক তীক্ষ্ণতা এবং পররাষ্ট্রনীতির ওপর ক্রমেই আস্থা হারিয়ে ফেলছেন মার্কিনীরা। ১৩ থেকে ১৯ সেপ্টেম্বরের মধ্যে পিউ রিসার্চ সেন্টার পরিচালিত এক জরিপে এ তথ্য উঠে এসেছে। জরিপে প্রেসিডেন্ট বাইডেনের বিরুদ্ধে ভোটারদের ব্যাপক ক্ষোভ দেখা গেছে। বৃহস্পতিবার প্রকাশিত এ জরিপ অনুযায়ী বর্তমানে বাইডেন সরকারের গ্রহণযোগ্যতা মাত্র ৩০ শতাংশ। রোববার এ খবর দিয়েছে গার্ডিয়ান। জরিপ বলছে, ৫৬ শতাংশ আমেরিকান মনে করেন প্রেসিডেন্ট বাইডেনের মানসিক দক্ষতা ‘মোটেও ভালো না’ বা ‘বেশি ভালো না’। অন্যদিকে ৪৩ শতাংশ মনে করেন, প্রেসিডেন্ট বাইডেনের মানসিক দক্ষতা ‘খুব ভালো’ বা ‘মোটামুটি ভালো’।

মাত্র ৪৩ শতাংশ আমেরিকান বিশ্বাস করেন বাইডেন অভিবাসনের সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে বুদ্ধিমত্তার পরিচয় দিয়েছেন। আর ৫৬ ভাগই এর বিরুদ্ধে অবস্থান নেন। সংখ্যাগরিষ্ঠ ৩৭ শতাংশ জনগণ মনে করেন তার অভিবাসন নীতিতে মোটেও আÍবিশ্বাসী নয়। সম্প্রতি দেশটির দক্ষিণ-পশ্চিম সীমান্তে ক্রমবর্ধমান সংকটের পটভূমি সে কথাই আরেকবার প্রমাণ করছে। হাজার হাজার হাইতিয়ান অভিবাসী বিষয়ে বাইডেনের সিদ্ধান্ত সংশ্লিষ্টদের ক্ষোভ অর্জন করেছে। পিউর জরিপে ভোটারদের মতে, বাইডেন দেশকে একত্রিত করার জন্য তার প্রচারণার প্রতিশ্র“তিতেও ব্যর্থ হয়েছেন। এই মতামতের পক্ষে ভোট দেন ৬৬ শতাংশ। বাকি ৩৪ শতাংশ মনে করেন-না তিনি ব্যর্থ হননি।

তবে কোভিড-১৯ মহামারি মোকাবেলায় তার দক্ষতার পক্ষে ভোট দিয়েছেন ৫০ শতাংশ ভোটার। ৪৯ শতাংশ বলেছেন এক্ষেত্রে তিনি ব্যর্থ হয়েছেন। গত সপ্তাহেও ধন্যবাদ জানাতে গিয়ে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রীর নামই ভুলে গিয়েছিলেন বাইডেন। সম্প্রতি মার্কিন প্রেসিডেন্টের এমন ভুল-ভ্রান্তি নজরে আসছে সবার। ৭৮ বছর বয়সি প্রেসিডেন্ট বাইডেনকে জাতিসংঘের ভাষণেও দিধাদ্বন্দ্বে পড়তে দেখা গেছে। সম্প্রতি আরও একটি সংবাদ সম্মেলনে দেখা যায় যে, প্রেসিডেন্ট বাইডেন মনে করতে পারছিলেন না কি বলতে চেয়েছিলেন।

প্রেসিডেন্ট বাইডেনের এমন কাণ্ডের কঠোর সমালোচনা করছেন রিপাবলিকানদের অনেকে। ধীরে ধীরে আমেরিকার সাধারণ নাগরিকরাও বিষয়টি নজরে আনছেন। তবে এটি প্রথম নয়, সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের এরকম ভুলের বহু তথ্য পাওয়া যায় তার চার বছরের শাসনকালে। এর আগে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাসহ ডোনাল্ড ট্রাম্পেরও এমন ভুলভ্রান্তি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন