পাকিস্তানে গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো জিন্নাহর ভাস্কর্য
jugantor
পাকিস্তানে গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো জিন্নাহর ভাস্কর্য

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পাকিস্তানের জাতির পিতা মোহাম্মদ আলী জিন্নাহর ভাস্কর্য গুঁড়িয়ে দিয়েছে দেশটির স্বাধীনতাকামী দল বালুচ লিবারেশন আর্মি (বিএলএ)।

দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশ বেলুচিস্তানের বন্দরনগরী গাওদারে নির্মিত ভাস্কর্যটিতে সোমবার ভোরে বিস্ফোরণ ঘটায় বিএলএ। ডন।

গাওদারের ডেপুটি কমিশনার অবসরপ্রাপ্ত মেজর আবদুল কবির খান সংবাদমাধ্যমকে জানান, দুষ্কৃতকারীরা ভাস্কর্যর বিভিন্ন অংশে আগেই বিস্ফোরক স্থাপন করেছিল।

সোমবার ভোরের দিকে সেগুলো বিস্ফোরিত হয়েছে। আর তাতেই পুরো ধ্বংস হয়ে যায়। এদিকে ওই ভাঙার দায় স্বীকার করে বিবৃতি দিয়েছে বালুচ লিবারেশন আর্মি। এ বছরের শুরুর দিকে গাওদারে জিন্নাহর ভাস্কর্য

স্থাপন করা হয়। পুলিশ জানাচ্ছে, এই ঘটনা কারা ঘটিয়েছে তা এখনো শনাক্ত করা যায়নি। সিসিটিভির ফুটেজে কয়েকজন মুখোশধারী ব্যক্তিকে ভাস্কর্যর আশপাশে ঘোরাঘুরি করতে দেখা গেছে, কিন্তু কারোর চেহারা বোঝা যায়নি।

এখন পর্যন্ত এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। তবে আবদুল কবির খান জানিয়েছেন, দ্রুত দুষ্কৃতকারীদের আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে।

বেলুচিস্তানের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী সরফরাজ বুগতি ভাস্কর্য গুঁড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় নিন্দা জানিয়ে বলেন, ‘জিন্নাহর ভাস্কর্য গুঁড়িয়ে দেওয়ার অর্থ পাকিস্তান রাষ্ট্রের মতাদর্শের ওপর আঘাত করা। আমি অপরাধীদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও যথাযথ শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।’

পাকিস্তানে গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো জিন্নাহর ভাস্কর্য

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পাকিস্তানের জাতির পিতা মোহাম্মদ আলী জিন্নাহর ভাস্কর্য গুঁড়িয়ে দিয়েছে দেশটির স্বাধীনতাকামী দল বালুচ লিবারেশন আর্মি (বিএলএ)।

দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশ বেলুচিস্তানের বন্দরনগরী গাওদারে নির্মিত ভাস্কর্যটিতে সোমবার ভোরে বিস্ফোরণ ঘটায় বিএলএ। ডন।

গাওদারের ডেপুটি কমিশনার অবসরপ্রাপ্ত মেজর আবদুল কবির খান সংবাদমাধ্যমকে জানান, দুষ্কৃতকারীরা ভাস্কর্যর বিভিন্ন অংশে আগেই বিস্ফোরক স্থাপন করেছিল।

সোমবার ভোরের দিকে সেগুলো বিস্ফোরিত হয়েছে। আর তাতেই পুরো ধ্বংস হয়ে যায়। এদিকে ওই ভাঙার দায় স্বীকার করে বিবৃতি দিয়েছে বালুচ লিবারেশন আর্মি। এ বছরের শুরুর দিকে গাওদারে জিন্নাহর ভাস্কর্য

স্থাপন করা হয়। পুলিশ জানাচ্ছে, এই ঘটনা কারা ঘটিয়েছে তা এখনো শনাক্ত করা যায়নি। সিসিটিভির ফুটেজে কয়েকজন মুখোশধারী ব্যক্তিকে ভাস্কর্যর আশপাশে ঘোরাঘুরি করতে দেখা গেছে, কিন্তু কারোর চেহারা বোঝা যায়নি।

এখন পর্যন্ত এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। তবে আবদুল কবির খান জানিয়েছেন, দ্রুত দুষ্কৃতকারীদের আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে।

বেলুচিস্তানের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী সরফরাজ বুগতি ভাস্কর্য গুঁড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় নিন্দা জানিয়ে বলেন, ‘জিন্নাহর ভাস্কর্য গুঁড়িয়ে দেওয়ার অর্থ পাকিস্তান রাষ্ট্রের মতাদর্শের ওপর আঘাত করা। আমি অপরাধীদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও যথাযথ শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।’

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন