রাজপাট ছেড়ে সহপাঠীকে বিয়ে
jugantor
ছোট খবর
রাজপাট ছেড়ে সহপাঠীকে বিয়ে

   

০২ অক্টোবর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাজকীয় মর্যাদা ত্যাগ করে কলেজের সহপাঠীকে বিয়ে করতে যাচ্ছেন জাপানের সম্রাট নারুহিতোর ২৯ বছর বয়সি ভাতিজা রাজকন্যা মাকো। আগামী ২৬ অক্টোবর তাদের বিয়ের তারিখ ঠিক হয়েছে। শুক্রবার এ খবর দিয়েছে বিবিসি। এই বিয়ে নিয়ে গত কয়েক দিন নানা বিতর্ক চললেও অবশেষে সাধারণ পরিবারের প্রেমিক কেই কোমুরোর সঙ্গেই বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন জাপানের প্রিন্সেস মাকো। বিয়ের পর স্বামীর সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রে চলে যাবেন প্রিন্সেস মাকো। সেখানে আইনজীবী হিসাবে কাজ করেন কোমুরো। টোকিওর ইন্টারন্যাশনাল ক্রিশ্চিয়ান ইউনিভার্সিটিতে পড়ার সময় ২০১২ সালে দুজনের পরিচয়; এর ৫ বছর পর হয় বাগদান।

এর আগে প্রিন্সেস মাকো বাগদানের ঘোষণা দেওয়ার এক বছর পর ২০১৮ সালে তাদের বিয়ের পরিকল্পনা ছিল। কিন্তু কোমুরোর মায়ের তীব্র অসুস্থতার সময় বাগদত্তার কাছ থেকে নেওয়া ঋণ সময়মতো পরিশোধ করতে না পারায় পিছিয়ে যায় বিয়ে। পরে রাজপ্রাসাদ এক বিবৃতিতে জানায়, বিয়ে পেছানোর সঙ্গে কোমুরোর মায়ের অর্থনৈতিক সংকটের কোনো যোগসূত্র নেই। বিয়ে দুই বছর পিছিয়ে যাওয়ার পর অবশেষে তা মেনে নেন জাপানের ক্রাউন প্রিন্স ফুমিহিতো। ২০১২ সালে জাপানের ইন্টারন্যাশনাল ক্রিশ্চিয়ান ইউনিভার্সিটিতে পরিচয় হয় কোমুরো ও মাকোর। এরপরই প্রেম।

ছোট খবর

রাজপাট ছেড়ে সহপাঠীকে বিয়ে

  
০২ অক্টোবর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাজকীয় মর্যাদা ত্যাগ করে কলেজের সহপাঠীকে বিয়ে করতে যাচ্ছেন জাপানের সম্রাট নারুহিতোর ২৯ বছর বয়সি ভাতিজা রাজকন্যা মাকো। আগামী ২৬ অক্টোবর তাদের বিয়ের তারিখ ঠিক হয়েছে। শুক্রবার এ খবর দিয়েছে বিবিসি। এই বিয়ে নিয়ে গত কয়েক দিন নানা বিতর্ক চললেও অবশেষে সাধারণ পরিবারের প্রেমিক কেই কোমুরোর সঙ্গেই বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন জাপানের প্রিন্সেস মাকো। বিয়ের পর স্বামীর সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রে চলে যাবেন প্রিন্সেস মাকো। সেখানে আইনজীবী হিসাবে কাজ করেন কোমুরো। টোকিওর ইন্টারন্যাশনাল ক্রিশ্চিয়ান ইউনিভার্সিটিতে পড়ার সময় ২০১২ সালে দুজনের পরিচয়; এর ৫ বছর পর হয় বাগদান।

এর আগে প্রিন্সেস মাকো বাগদানের ঘোষণা দেওয়ার এক বছর পর ২০১৮ সালে তাদের বিয়ের পরিকল্পনা ছিল। কিন্তু কোমুরোর মায়ের তীব্র অসুস্থতার সময় বাগদত্তার কাছ থেকে নেওয়া ঋণ সময়মতো পরিশোধ করতে না পারায় পিছিয়ে যায় বিয়ে। পরে রাজপ্রাসাদ এক বিবৃতিতে জানায়, বিয়ে পেছানোর সঙ্গে কোমুরোর মায়ের অর্থনৈতিক সংকটের কোনো যোগসূত্র নেই। বিয়ে দুই বছর পিছিয়ে যাওয়ার পর অবশেষে তা মেনে নেন জাপানের ক্রাউন প্রিন্স ফুমিহিতো। ২০১২ সালে জাপানের ইন্টারন্যাশনাল ক্রিশ্চিয়ান ইউনিভার্সিটিতে পরিচয় হয় কোমুরো ও মাকোর। এরপরই প্রেম।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন