১৪ দিনে ১২ দেশে ছড়াল মাঙ্কিপক্স!
jugantor
১৪ দিনে ১২ দেশে ছড়াল মাঙ্কিপক্স!
৮০ রোগী শনাক্ত আরও ৫০ জন পর্যবেক্ষণে : ডব্লিউএইচও

  যুগান্তর ডেস্ক  

২২ মে ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

করোনার মতোই এবার দেশে দেশে ছড়িয়ে পড়ছে আরেক ভাইরাস মাঙ্কিপক্স। কোভিড-১৯’র মতো অতিসংক্রামক না হলেও মাত্র ১৪ দিনে ১২ দেশে ছড়িয়ে পড়েছে ভাইরাসটি। আক্রান্ত দেশগুলোর ৯টিই ইউরোপে। মাঙ্কিপক্স প্রথম শনাক্ত হয় ৭ মে, লন্ডনে। এর পরই ছড়াতে শুরু করে সারা বিশ্বে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) বরাতে শনিবার বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, স্পেন, পর্তুগাল, নেদারল্যান্ডস, সুইডেন, ফ্রান্স, বেলজিয়াম, জার্মানি, ইতালিসহ ১২ দেশে আক্রমণ করেছে মাঙ্কিপক্স। ইতোমধ্যে ৮০ জন মাঙ্কিপক্সের রোগী শনাক্ত হয়েছে। আরও ৫০ জন সন্দেহভাজন রোগীকে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। মাঙ্কিপক্সকে করোনা মহামারির মধ্যে আরেক মহামারি হিসাবেও চিহ্নিত করছেন কেউ কেউ।

সাধারণত মধ্য ও পশ্চিম আফ্রিকার দুর্গম অংশে মাঙ্কিপক্স বেশ সাধারণ ঘটনা। বিরল সংক্রমণ মাঙ্কিপক্স সাধারণত মৃদু উপসর্গজনিত রোগ। ব্রিটিশ স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বেশির ভাগ রোগী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে সেরে ওঠে। ভাইরাসটি মানুষের মধ্যে খুব সহজে ছড়ায় না এবং ব্যাপক মানুষের মধ্যে এর সংক্রমণের আশঙ্কা কম। মাঙ্কিপক্সের জন্য নির্দিষ্ট কোনো ভ্যাকসিন নেই, তবে গুটিবসন্তের টিকায় এই ভাইরাস থেকে ৮৫ শতাংশ সুরক্ষা পাওয়া যায়। ডব্লিউএইচও বলেছে, মাঙ্কিপক্সের নতুন প্রাদুর্ভাব অস্বাভাবিক, কারণ এমন কিছু দেশে রোগটি প্রাদুর্ভাব ছড়াচ্ছে যা আগে দেখা যায়নি। সংস্থাটি জানিয়েছে, তারা আক্রান্ত দেশগুলো এবং অন্যদের সঙ্গে কাজ করছে। যেসব মানুষ আক্রান্ত হতে পারে তাদের খোঁজ রাখা এবং সমর্থন দিতে রোগটির ওপর নজরদারি চলছে। একই সঙ্গে আক্রান্তদের সঙ্গে নেতিবাচক আচরণ করার বিরুদ্ধে সতর্ক করেছে ডব্লিউএইচও। সংস্থাটি বলেছে, আক্রান্তদের সেবা পেতে বাধার কারণে রোগটির আরও বিস্তার ছড়াতে পারে। লন্ডন দিয়ে ইউরোপে ঢুকেছিল মাঙ্কিপক্স। নাইজেরিয়ার এক বিমানযাত্রীর মাধ্যমে সংক্রমিত হয় লন্ডন। ৯ জন এই অসুখে আক্রান্ত হয়েছেন। তবে সন্দেহ করা হচ্ছে, সেখানে আরও অনেকে এটিতে আক্রান্ত। মৃদু উপসর্গের কারণে এটি বোঝা যাচ্ছে না। একই অবস্থা ফ্রান্সেরও। রাজধানী প্যারিস (শুক্রবার) সংলগ্ন এলাকাতেই ছড়িয়েছে এই সংক্রমণ। আর সেটিই চিন্তায় ফেলেছে দেশটির স্বাস্থ্যবিভাগকে। বেলজিয়ামেও এই রোগে আক্রান্ত একজনকে পাওয়া গেছে। যদিও তার মধ্যে মৃদু উপসর্গের বেশি কিছু নেই। জার্মানির সেনাবাহিনীর সূত্রে জানা গেছে, একজন সে দেশে এই অসুখে আক্রান্ত হয়েছেন।

১৪ দিনে ১২ দেশে ছড়াল মাঙ্কিপক্স!

৮০ রোগী শনাক্ত আরও ৫০ জন পর্যবেক্ষণে : ডব্লিউএইচও
 যুগান্তর ডেস্ক 
২২ মে ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

করোনার মতোই এবার দেশে দেশে ছড়িয়ে পড়ছে আরেক ভাইরাস মাঙ্কিপক্স। কোভিড-১৯’র মতো অতিসংক্রামক না হলেও মাত্র ১৪ দিনে ১২ দেশে ছড়িয়ে পড়েছে ভাইরাসটি। আক্রান্ত দেশগুলোর ৯টিই ইউরোপে। মাঙ্কিপক্স প্রথম শনাক্ত হয় ৭ মে, লন্ডনে। এর পরই ছড়াতে শুরু করে সারা বিশ্বে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) বরাতে শনিবার বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, স্পেন, পর্তুগাল, নেদারল্যান্ডস, সুইডেন, ফ্রান্স, বেলজিয়াম, জার্মানি, ইতালিসহ ১২ দেশে আক্রমণ করেছে মাঙ্কিপক্স। ইতোমধ্যে ৮০ জন মাঙ্কিপক্সের রোগী শনাক্ত হয়েছে। আরও ৫০ জন সন্দেহভাজন রোগীকে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। মাঙ্কিপক্সকে করোনা মহামারির মধ্যে আরেক মহামারি হিসাবেও চিহ্নিত করছেন কেউ কেউ।

সাধারণত মধ্য ও পশ্চিম আফ্রিকার দুর্গম অংশে মাঙ্কিপক্স বেশ সাধারণ ঘটনা। বিরল সংক্রমণ মাঙ্কিপক্স সাধারণত মৃদু উপসর্গজনিত রোগ। ব্রিটিশ স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বেশির ভাগ রোগী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে সেরে ওঠে। ভাইরাসটি মানুষের মধ্যে খুব সহজে ছড়ায় না এবং ব্যাপক মানুষের মধ্যে এর সংক্রমণের আশঙ্কা কম। মাঙ্কিপক্সের জন্য নির্দিষ্ট কোনো ভ্যাকসিন নেই, তবে গুটিবসন্তের টিকায় এই ভাইরাস থেকে ৮৫ শতাংশ সুরক্ষা পাওয়া যায়। ডব্লিউএইচও বলেছে, মাঙ্কিপক্সের নতুন প্রাদুর্ভাব অস্বাভাবিক, কারণ এমন কিছু দেশে রোগটি প্রাদুর্ভাব ছড়াচ্ছে যা আগে দেখা যায়নি। সংস্থাটি জানিয়েছে, তারা আক্রান্ত দেশগুলো এবং অন্যদের সঙ্গে কাজ করছে। যেসব মানুষ আক্রান্ত হতে পারে তাদের খোঁজ রাখা এবং সমর্থন দিতে রোগটির ওপর নজরদারি চলছে। একই সঙ্গে আক্রান্তদের সঙ্গে নেতিবাচক আচরণ করার বিরুদ্ধে সতর্ক করেছে ডব্লিউএইচও। সংস্থাটি বলেছে, আক্রান্তদের সেবা পেতে বাধার কারণে রোগটির আরও বিস্তার ছড়াতে পারে। লন্ডন দিয়ে ইউরোপে ঢুকেছিল মাঙ্কিপক্স। নাইজেরিয়ার এক বিমানযাত্রীর মাধ্যমে সংক্রমিত হয় লন্ডন। ৯ জন এই অসুখে আক্রান্ত হয়েছেন। তবে সন্দেহ করা হচ্ছে, সেখানে আরও অনেকে এটিতে আক্রান্ত। মৃদু উপসর্গের কারণে এটি বোঝা যাচ্ছে না। একই অবস্থা ফ্রান্সেরও। রাজধানী প্যারিস (শুক্রবার) সংলগ্ন এলাকাতেই ছড়িয়েছে এই সংক্রমণ। আর সেটিই চিন্তায় ফেলেছে দেশটির স্বাস্থ্যবিভাগকে। বেলজিয়ামেও এই রোগে আক্রান্ত একজনকে পাওয়া গেছে। যদিও তার মধ্যে মৃদু উপসর্গের বেশি কিছু নেই। জার্মানির সেনাবাহিনীর সূত্রে জানা গেছে, একজন সে দেশে এই অসুখে আক্রান্ত হয়েছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন