পাকিস্তানে কেবিন ক্রুদের ‘সঠিক’ পোশাক পরার নির্দেশ
jugantor
পাকিস্তানে কেবিন ক্রুদের ‘সঠিক’ পোশাক পরার নির্দেশ

  যুগান্তর ডেস্ক  

০১ অক্টোবর ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কেবিন ক্রুদের দায়িত্ব পালনকালে ‘সঠিক’ পোশাক পরার নির্দেশ দিয়েছে পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্স (পিআইএ)। পোশাক নীতিমালার নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী এখন থেকে পাকিস্তানের কেবিন ক্রুদের বাধ্যতামূলকভাবে অন্তর্বাস পরতে হবে। বৃহস্পতিবার এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে গ্লোবাল ভিলেজ স্পেস।

পিআইএ ফ্লাইট সার্ভিসেসের মহাব্যবস্থাপক আমির বশির বলেন, ‘আমরা অত্যন্ত উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করেছি কেবিন ক্রুরা আন্তঃনগর ভ্রমণের সময়, হোটেলে থাকাকালীন এমনকি বিভিন্ন সময়ে আকস্মিকভাবে পোশাক পরে থাকেন। তখন তাদের ড্রেসকোড অনুসরণ হয় না। এভাবে পোশাক পরা যাত্রী বা দর্শকদের ওপর বিরূপ প্রভাব ফেলে। শুধু তাই নয়, সংস্থারও বদনাম হয়।’

নতুন নির্দেশনায় কেবিন ক্রুদের সঠিকভাবে অন্তর্বাস পরার ওপর জোর দেওয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, ‘সঠিক অন্তর্বাসের ওপর ফর্মাল পোশাক পরতে হবে।’ আরও বলা হয়েছে, ‘পুরুষ ও নারীদের পোশাক পাকিস্তানের সংস্কৃতি ও জাতীয় নীতিনৈতিকতার সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ হওয়া উচিত।’ শুধু তাই নয়, এ নির্দেশ সংশ্লিষ্টরা সঠিকভাবে মানছেন কি-না, কিংবা কোনো ধরনের বিচ্যুতি হচ্ছে কি-না- তা নিরীক্ষণের পর রিপোর্ট জমা দিতে কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ফ্লাইট সার্ভিসেসের মহাব্যবস্থাক জানিয়েছেন, যেসব ফ্লাইট অ্যাটেনডেন্টরা নির্দেশিকা অনুসরণ করতে ব্যর্থ হবেন- তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। অন্যদিকে, পিআইএ পাইলট এবং ফ্লাইট অ্যাটেনডেন্টদের অতিরিক্ত কাজের সময় নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন। বিষয়টি নিয়ে পিআইএ’র সিইও আমির হায়াতকে চিঠি দিয়েছেন ফেডারেশনের নেতারা। চিঠিতে বলা হয়েছে, পিআইএ সাম্প্রতিক সময়ে কেবিন ক্রুদের কাজের সময় একতরফাভাবে পরিবর্তন করেছে। এ পদক্ষেপ নিয়মের পরিপন্থি।

পাকিস্তানে কেবিন ক্রুদের ‘সঠিক’ পোশাক পরার নির্দেশ

 যুগান্তর ডেস্ক 
০১ অক্টোবর ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কেবিন ক্রুদের দায়িত্ব পালনকালে ‘সঠিক’ পোশাক পরার নির্দেশ দিয়েছে পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্স (পিআইএ)। পোশাক নীতিমালার নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী এখন থেকে পাকিস্তানের কেবিন ক্রুদের বাধ্যতামূলকভাবে অন্তর্বাস পরতে হবে। বৃহস্পতিবার এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে গ্লোবাল ভিলেজ স্পেস।

পিআইএ ফ্লাইট সার্ভিসেসের মহাব্যবস্থাপক আমির বশির বলেন, ‘আমরা অত্যন্ত উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করেছি কেবিন ক্রুরা আন্তঃনগর ভ্রমণের সময়, হোটেলে থাকাকালীন এমনকি বিভিন্ন সময়ে আকস্মিকভাবে পোশাক পরে থাকেন। তখন তাদের ড্রেসকোড অনুসরণ হয় না। এভাবে পোশাক পরা যাত্রী বা দর্শকদের ওপর বিরূপ প্রভাব ফেলে। শুধু তাই নয়, সংস্থারও বদনাম হয়।’

নতুন নির্দেশনায় কেবিন ক্রুদের সঠিকভাবে অন্তর্বাস পরার ওপর জোর দেওয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, ‘সঠিক অন্তর্বাসের ওপর ফর্মাল পোশাক পরতে হবে।’ আরও বলা হয়েছে, ‘পুরুষ ও নারীদের পোশাক পাকিস্তানের সংস্কৃতি ও জাতীয় নীতিনৈতিকতার সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ হওয়া উচিত।’ শুধু তাই নয়, এ নির্দেশ সংশ্লিষ্টরা সঠিকভাবে মানছেন কি-না, কিংবা কোনো ধরনের বিচ্যুতি হচ্ছে কি-না- তা নিরীক্ষণের পর রিপোর্ট জমা দিতে কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ফ্লাইট সার্ভিসেসের মহাব্যবস্থাক জানিয়েছেন, যেসব ফ্লাইট অ্যাটেনডেন্টরা নির্দেশিকা অনুসরণ করতে ব্যর্থ হবেন- তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। অন্যদিকে, পিআইএ পাইলট এবং ফ্লাইট অ্যাটেনডেন্টদের অতিরিক্ত কাজের সময় নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন। বিষয়টি নিয়ে পিআইএ’র সিইও আমির হায়াতকে চিঠি দিয়েছেন ফেডারেশনের নেতারা। চিঠিতে বলা হয়েছে, পিআইএ সাম্প্রতিক সময়ে কেবিন ক্রুদের কাজের সময় একতরফাভাবে পরিবর্তন করেছে। এ পদক্ষেপ নিয়মের পরিপন্থি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন