চীনে লকডাউনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ
jugantor
চীনে লকডাউনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৬ নভেম্বর ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

লোহার ব্যারিকেড উলটে চিৎকার করে বলছেন, ‘আর কোনো পরীক্ষা নয়’। সোমবার রাতে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে চীনের দক্ষিণাঞ্চলের গুয়াংজুর জনগণকে এভাবে বিক্ষোভ করতে দেখা যায়। ‘জিরো কোভিড’ নীতিতে অতিষ্ঠ চীনের জনজীবন। কড়া লকডাউনে আটকে থাকা জনজীবন আর্থিক সংকটসহ খাদ্যাভাব, চিকিৎসার অভাবে ভুগছে। যেতে পারছেন না কর্মক্ষেত্রেও।

শিল্পনগরী গুয়াংজুর মানুষ এবার চটেছেন এ সিদ্ধান্তে। কড়া লকডাউন ভেঙে শত শত মানুষ নেমে এসেছেন রাস্তায়। পুলিশের সঙ্গে লিপ্ত হয়েছেন সংঘর্ষে। উলটে দিয়েছেন নিরাপত্তাকর্মীদের গাড়িও।

করোনা মহামারি শুরুর পর থেকে এ অঞ্চলে বেশ প্রাদুর্ভাব ছিল-ফলে শুরু থেকেই শূন্য কোভিডের অত্যাচারের শিকার হয়ে আসছিলেন নাগরিকরা। এসব নিয়ে শহরের হাইজু ডিস্ট্রিক্টেও উত্তেজনা বৃদ্ধি পাচ্ছিল। ‘বাড়িতে থাকো নির্দেশনার অধীনে ছিল হাইজুও। এলাকাটি দরিদ্র শ্রমিকদের আবাসস্থল। কঠোর লকডাউন নীতির কারণে তারা কর্মক্ষেত্রে যাওয়া এবং বেতন না পাওয়ার অভিযোগ তোলেন। এছাড়াও এ নীতির অধীনে খাদ্য ঘাটতি এবং আকাশছোঁয়া দামের অভিযোগও উঠে। জানা যায়, বেশ কয়েকদিন ধরেই এলাকার বাসিন্দারা সাদা পোশাক পরিহিত কোভিড প্রতিরোধ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বাগবিতণ্ডায় লিপ্ত হচ্ছিলেন। সোমবার তাদের ক্রোধ বিস্ফোরিত হয় ও সবাই রাস্তায় নেমে পড়েন। মানুষের গর্জে উঠার পেছনে অনেকে দায়ী করছেন গুজবকে। অনেকে মনে করছেন, পরীক্ষাকারী সংস্থাগুলো অর্থের জন্য ভুয়া রিপোর্ট দিয়ে থাকে। এবং তারা কৃত্রিমভাবে সংক্রমণ বাড়াতে ‘পিসিআর’ ফলাফল জাল করছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া আরেকটি ভিডিওতে একজনকে চিৎকার করে বলতে দেখা যায়, ‘হুবেইয়ের মানুষ খেতে চায়। হুবেইয়ের মানুষ সিলমুক্ত হতে চায়।’ হুবেই চীনের আরেকটি প্রদেশ যেখানের অধিকাংশ মানুষ শ্রমিক। গত সপ্তাহে করোনার বিস্তার রোধে গুয়াংজুর হাইজুসহ তিনটি ডিস্ট্রিক্টকে লকডাউনের আওতায় আনা হয়েছিল। বাসিন্দাদের চলাফেরা এবং ব্যবসায়িক কার্যকলাপসহ নানা ক্ষেত্রে আরোপিত হয়েছিল বিধিনিষেধ।

‘গুয়াংজু মিউনিসিপ্যাল হেলথ কমিশনের’ ডেপুটি ডিরেক্টর ঝাং ই সোমবার একটি সংবাদ সম্মেলনে বলেন, সমগ্র লিওয়ান এবং পানিউ ডিস্ট্রিক্টের পাশাপাশি হাইজুয়ের কিছু অংশে ‘মহামারি নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা’ বর্ধিত করা হবে।

চীনে লকডাউনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৬ নভেম্বর ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

লোহার ব্যারিকেড উলটে চিৎকার করে বলছেন, ‘আর কোনো পরীক্ষা নয়’। সোমবার রাতে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে চীনের দক্ষিণাঞ্চলের গুয়াংজুর জনগণকে এভাবে বিক্ষোভ করতে দেখা যায়। ‘জিরো কোভিড’ নীতিতে অতিষ্ঠ চীনের জনজীবন। কড়া লকডাউনে আটকে থাকা জনজীবন আর্থিক সংকটসহ খাদ্যাভাব, চিকিৎসার অভাবে ভুগছে। যেতে পারছেন না কর্মক্ষেত্রেও।

শিল্পনগরী গুয়াংজুর মানুষ এবার চটেছেন এ সিদ্ধান্তে। কড়া লকডাউন ভেঙে শত শত মানুষ নেমে এসেছেন রাস্তায়। পুলিশের সঙ্গে লিপ্ত হয়েছেন সংঘর্ষে। উলটে দিয়েছেন নিরাপত্তাকর্মীদের গাড়িও।

করোনা মহামারি শুরুর পর থেকে এ অঞ্চলে বেশ প্রাদুর্ভাব ছিল-ফলে শুরু থেকেই শূন্য কোভিডের অত্যাচারের শিকার হয়ে আসছিলেন নাগরিকরা। এসব নিয়ে শহরের হাইজু ডিস্ট্রিক্টেও উত্তেজনা বৃদ্ধি পাচ্ছিল। ‘বাড়িতে থাকো নির্দেশনার অধীনে ছিল হাইজুও। এলাকাটি দরিদ্র শ্রমিকদের আবাসস্থল। কঠোর লকডাউন নীতির কারণে তারা কর্মক্ষেত্রে যাওয়া এবং বেতন না পাওয়ার অভিযোগ তোলেন। এছাড়াও এ নীতির অধীনে খাদ্য ঘাটতি এবং আকাশছোঁয়া দামের অভিযোগও উঠে। জানা যায়, বেশ কয়েকদিন ধরেই এলাকার বাসিন্দারা সাদা পোশাক পরিহিত কোভিড প্রতিরোধ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বাগবিতণ্ডায় লিপ্ত হচ্ছিলেন। সোমবার তাদের ক্রোধ বিস্ফোরিত হয় ও সবাই রাস্তায় নেমে পড়েন। মানুষের গর্জে উঠার পেছনে অনেকে দায়ী করছেন গুজবকে। অনেকে মনে করছেন, পরীক্ষাকারী সংস্থাগুলো অর্থের জন্য ভুয়া রিপোর্ট দিয়ে থাকে। এবং তারা কৃত্রিমভাবে সংক্রমণ বাড়াতে ‘পিসিআর’ ফলাফল জাল করছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া আরেকটি ভিডিওতে একজনকে চিৎকার করে বলতে দেখা যায়, ‘হুবেইয়ের মানুষ খেতে চায়। হুবেইয়ের মানুষ সিলমুক্ত হতে চায়।’ হুবেই চীনের আরেকটি প্রদেশ যেখানের অধিকাংশ মানুষ শ্রমিক। গত সপ্তাহে করোনার বিস্তার রোধে গুয়াংজুর হাইজুসহ তিনটি ডিস্ট্রিক্টকে লকডাউনের আওতায় আনা হয়েছিল। বাসিন্দাদের চলাফেরা এবং ব্যবসায়িক কার্যকলাপসহ নানা ক্ষেত্রে আরোপিত হয়েছিল বিধিনিষেধ।

‘গুয়াংজু মিউনিসিপ্যাল হেলথ কমিশনের’ ডেপুটি ডিরেক্টর ঝাং ই সোমবার একটি সংবাদ সম্মেলনে বলেন, সমগ্র লিওয়ান এবং পানিউ ডিস্ট্রিক্টের পাশাপাশি হাইজুয়ের কিছু অংশে ‘মহামারি নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা’ বর্ধিত করা হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন