নিষেধাজ্ঞায় ১০০ বছরেও ক্ষতি হবে না : কিম

  যুগান্তর ডেস্ক ১৪ জানুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন বলেছেন, পিয়ংইয়ংয়ের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা ১০০ বছর ধরে বলবৎ থাকলেও তার দেশের কোনো ক্ষতি হবে না। শুক্রবার পিয়ংইয়ংয়ে এক সভায় এ কথা বলেন তিনি। কিম বলেন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিকে গুরুত্ব দেয়ার কারণে তার দেশে সব ক্ষেত্রে ব্যাপক উন্নতি অর্জন করেছে। কাজেই তার ভাষায় শত্রুরা যদি ১০ বছর থেকে শুরু করে ১০০ বছর পর্যন্ত নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে রাখে তারপরও উত্তর কোরিয়ার কোনো ক্ষতি হবে না।

কিম জং উন বলেন, বিদেশের ওপর নির্ভরশীলতা না থাকা এবং প্রযুক্তি ও গবেষণা খাতে দেশীয় গবেষকদের সক্রিয় উপস্থিতির কারণে বিদেশি চাপের বিরুদ্ধে তার দেশ প্রতিরোধ গড়ে তুলতে সক্ষম হয়েছে।

ছোট খবর

পোপকে উড়িয়ে দেয়ার হুমকি

রোমান ক্যাথলিক চার্চের প্রধান ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিসের আসার খবরে চিলিতে বেশ কয়েকটি ক্যাথলিক গির্জা ভাংচুর করেছেন বিক্ষোভকারীরা। এ ছাড়া চিলি সফরে গেলে তাকে বোমা মেরে উড়িয়ে দেয়ারও হুমকি দেয়া হয়েছে। আগামী সপ্তাহে তার চিলি সফরের কথা রয়েছে। খবর আলজাজিরার। জানা গেছে, শুক্রবার চিলি রাজধানীর চারটি গির্জা ভাংচুর করা হয়েছে। ভাংচুর চালানোর সময়ই পোপ ফ্রান্সিসকে হুমকি দিয়ে লেখা ওই নোট রেখে যান বিক্ষোভকারীরা। এ ব্যাপারে স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো সূত্রে জানা গেছে, ওই নোটে লেখা আছে পরের বোমাটি দিয়ে পোপ ফ্রান্সিসের শরীরের জামাকাপড় পোড়ানো হবে। এদিকে এরই মধ্যে এ ব্যাপারে তদন্ত শুরু করেছে দেশটির সরকারি কর্তৃপক্ষ। তবে সহিংসতার ঘটনায় কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। এমনকি কাউকে এখন পর্যন্ত গ্রেফতারের ঘটনাও ঘটেনি।

হিটলারের ভয়ে টিনের বাক্সে

ব্রিটেনের রানীর ব্যবহৃত রাজমুকুটের মূল্যবান পাথরগুলো দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় একটি বিস্কুটের টিনের বাক্সে ভেতর রাখা হয়েছিল। পরে নিরাপত্তার জন্য সেই টিনের বাক্স উইন্ডসর প্রাসাদের মাটির নিচে চাপা দিয়ে রাখা হয়েছিল। রাজকীয় নথিপত্রের সহকারী তদারককারী অলিভার আরকুহার্ট আরভিন সম্প্রতি বিষয়টি প্রকাশ করেছেন। এ নিয়ে একটি তথ্যচিত্র প্রকাশ করেছে বিবিসি।

বিবিসির তথ্যচিত্রে বলা হয়, রাজমুকুটে থাকা মূল্যবান পাথরগুলোর মধ্যে ছিল ব্ল্যাক প্রিন্স রুবি। জরুরি অবস্থায় ব্যবহারের জন্য মধ্যযুগে নির্মিত প্রাসাদটির গোপন বহির্™^ারে এটি লুকানো হয়েছিল। মূল্যবান পাথরগুলো যাতে কোনোভাবেই হিটলারের নাৎসি বাহিনীর হাতে না পড়ে সেজন্য এ নির্দেশ দিয়েছিলেন রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের বাবা রাজা ষষ্ঠ জর্জ। এ রত্মগুলো রক্ষায় এতটাই গোপনীয়তা অবলম্বন করা হয়েছিল যে, ১৯৩৯ থেকে ১৯৪৫ সাল পর্যন্ত উইন্ডসর প্রাসাদে থাকা খোদ রানী এলিজাবেথও বিষয়টি জানতেন না। রাজা জর্জের অভিষেকের জন্য ১৯৩৭ সালে রাজমুকুটটি তৈরি করা হয়। এতে ২ হাজার ৮৬৮টি হীরা রয়েছে। রাজকীয় ভাষ্যকার অ্যালাসটাইর ব্রুস তথ্যচিত্রে বলেন, ‘সবচেয়ে চমৎকার বিষয় হচ্ছে এ বিষয়ে রানীরও কোনো জ্ঞান ছিল না। ব্রুস জানান, রাজা ষষ্ঠ জর্জের মা রানী ম্যারির কাছে লেখা রাজকীয় গ্রন্থাগারিক ওয়েন মোরশেদের চিঠিতে এ রহস্যটি প্রকাশ হয়।

 
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

 

gpstar

 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

E-mail: [email protected], [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter