নওয়াজ পরিবারমুক্ত দলের চক্রান্ত সেনাবাহিনীর

  যুগান্তর ডেস্ক ১৯ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

নওয়াজ
ছবি: সংগৃহীত

পাকিস্তানের বৃহত্তম গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দল পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজের (পিএমএল-এন) বিরুদ্ধে গভীর চক্রান্ত শুরু করেছে দেশটির প্রভাবশালী সেনাবাহিনী। পিএমএল-এনকে নওয়াজমুক্ত নতুন একটি রাজনৈতিক দল হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্য নিয়ে এগোচ্ছে তারা। দলের কাণ্ডারি নওয়াজ ও তার পরিবারের কেউ রাজনীতি করতে পারবে না।

পাকিস্তানের অন্যতম বৃহৎ দল প্রয়াত বেনজির ভুট্টোর পাকিস্তান পিপল’স পার্টির (পিপিপি) বিরুদ্ধে একই চক্রান্ত। পরিণামে পাকিস্তানের প্রধান এ দল দুটিকে একই পরিণতি বরণ করতে হবে। দেশটির প্রভাবশালী পত্রিকা ডনের সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদনে এসব কথা বলা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, পাকিস্তানে সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে যাওয়া কোনো দলের পক্ষে কখনই ভালো ফল বয়ে আনেনি। আর এই জায়গাতে এসেই নওয়াজের দলের বিভাজন ও ভাঙন ক্রমেই স্পষ্ট হয়ে উঠছে। এর পেছনে কলকাঠি নাড়ছে দেশটির সেনাবাহিনী ও বিচার বিভাগ।

নওয়াজকে এরই মধ্যে রাজনীতিতে আজীবনের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে। অবৈধ সম্পদ অর্জন ও দুর্নীতির অভিযোগে ১০ বছরের কারাদণ্ড ভোগ শুরু করেছেন তিনি। নওয়াজের পরে এবার বিদায় নিতে হতে পারে কন্যা মরিয়ম নওয়াজ ও ছোট ভাই পিএমএল-এনের সভাপতি শাহবাজ শরিফকে। দুর্নীতির মামলায় বাবার সঙ্গে তিনিও এখন কারাগারে। অ্যাভেনফিল্ড অ্যাপার্টমেন্ট মামলায় তাকে ৭ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

এছাড়া আদালত অবমাননায় তার বিরুদ্ধে একটি পিটিশন জারি করেছে লাহোর হাইকোর্ট। জেলের ঘানি টেনে সহজেই দলে ফেরা তার জন্য অসম্ভবই হবে। শাহবাজের নামেও অনেক মামলা রয়েছে। এর মধ্যে সাস্তি রোটি প্রকল্প, মুলতান মেট্রো, আশিয়ানা ও মডেল টাউনবিষয়ক প্রভৃতি দুর্নীতির মামলা উল্লেখযোগ্য। এর যেকোনো একটি মামলা তাকে দল থেকে সরিয়ে দেয়ার জন্য যথেষ্ট।

এমতাবস্থায় নওয়াজের নাতি ও মরিয়মের ছেলে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র জুনায়েদ সফদারকে একটি বিকল্প হিসেবে দেখছে দল। তবে পাকিস্তানের রাজনীতি বিশ্লেষকরা মনে করছেন, রাজনীতিতে জুনায়েদকে একটু আগেভাগেই বিবেচনা করা হচ্ছে। এক্ষেত্রে প্রত্যাশিত ফল পাওয়া নিয়ে সন্দেহ রয়েছে পর্যবেক্ষকদের।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, পিএমএল-এনের নওয়াজ পরিবারহীন একটি রাজনৈতিক দল হওয়া এখন সময়ের ব্যাপার। পাকিস্তানি গণতন্ত্রের গতিপথ এখন সে দিকেই। আর তা যদি ঘটেই তাহলে দলের নেতৃত্ব দেবেন কারা? দলের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব নিতে পারেন গুরুত্বপূর্ণ নেতা ও সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চৌধুরী নিসার আলি খান। এক্ষেত্রে অপর দুই নেতা অন্তর্বর্তী প্রধানমন্ত্রী শহিদ খাকান আব্বাসি এবং আহসান ইকবালের সম্ভাবনা রয়েছে। ফলে দলটির প্রতিষ্ঠাতাদের ছাড়াই একটি নতুন হয়ে উঠবে পাকিস্তান মুসলিম লীগ।

নওয়াজের সঙ্গে দেখা করতে দিচ্ছে না : পাকিস্তানের কারাবন্দি সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ ও তার মেয়ে মারিয়াম নওয়াজের সঙ্গে দলের সিনেটর, কর্মী এবং আইনজীবীদের দেখা করতে দেয়া হচ্ছে না। রাওয়ালপিণ্ডির আদিয়ালা কারাগারে বন্দি রয়েছেন বাবা ও মেয়ে। মঙ্গলবার পিএমএল-এনের সিনেটর, আইনজীবী ও নেতাকর্মীরা তাদের সঙ্গে দেখা করতে গেলে অনুমতি দেয়নি কারা কর্তৃপক্ষ। এর প্রতিবাদে তারা কারাগারের বাইরে কারা পরিদর্শকের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করেন।

বুধবার ডনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, নওয়াজ শরিফের সঙ্গে দেখা করার জন্য মুসলিম লীগ-এনের সিনেটর নুজহাত সাদিক আদিয়ালা কারাগারে যান। কিন্তু কারা কর্তৃপক্ষ তাকে জানায় যে, আইন অনুযায়ী শুধু তিনি বৃহস্পতিবার নওয়াজ শরিফ ও তার মেয়ে মারিয়াম নওয়াজের সঙ্গে দেখা করতে পারবেন।

পরে সিনেটর নুজহাত তার দলের নেতাকে না দেখেই চলে যান। এরপর খায়বার-পাখতুনখোয়া থেকে মুসলিম লীগ-এনের নারী নেত্রী ও কর্মীরা কারাগারে নওয়াজকে দেখতে যান। তাদের সঙ্গেও দেখা করতে দেয়া হয়নি নওয়াজকে। এর প্রতিবাদে তারা কারাগারের বাইরে বিক্ষোভ করেন। একইভাবে রাওয়ালপিণ্ডি থেকে নওয়াজ শরিফের দলের সমর্থক বহুসংখ্যক আইনজীবী কারাগারে তাকে দেখতে যান।

কিন্তু তাদেরকেও দেখা করতে দেয়া হয়নি। নওয়াজের সঙ্গে দেখা করতে ব্যর্থ হয়ে তারাও সেখানে বিক্ষোভ করেন।

ঘটনাপ্রবাহ : পাকিস্তানের জাতীয় নির্বাচন ২০১৮

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×