যুক্তরাষ্ট্রের সব অপকর্ম জাতিসংঘে তুলবে ইরান

প্রকাশ : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  যুগান্তর ডেস্ক

ছবি: সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্রের একের পর এক আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘনের মতো অপকর্ম জাতিসংঘে তুলে ধরবেন বলে জানিয়েছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি।

জাতিসংঘের ৭৩তম সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে যোগ দিতে সোমবার নিউইয়র্কের জন এফ কেনেডি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছে এ কথা বলেন তিনি।

ইরানের আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক নীতি সম্পর্কেও ব্যাখ্যা দেবেন তিনি। রোববার তেহরান ছাড়ার আগে রুহানি বলেন, আঞ্চলিক প্রতিদ্বন্দ্বী ছোট ভাড়াটে রাষ্ট্রের সহায়তায় ইরানের ভেতরে নিরাপত্তাহীনতা সৃষ্টি করতে চায় যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু ইরান এসব পুতুল রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে লড়াই করতে প্রস্তুত। খবর এএফপির।

গত ১৮ সেপ্টেম্বর থেকে জাতিসংঘের ৭৩তম সাধারণ পরিষদের অধিবেশনের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। অধিবেশনে আজ (মঙ্গলবার) বার্ষিক বিতর্ক শুরু হচ্ছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও অধিবেশনে ভাষণ দেবেন। সেখানে ইরানের প্রেসিডেন্ট রুহানিসহ বিশ্ব নেতারা বিভিন্ন ইস্যুতে বক্তব্য দেবেন। ২৭ সেপ্টেম্বর শেষ হবে এ অধিবেশন।

রুহানি সাংবাদিকদের বলেন, সাধারণ পরিষদের চলতি বছরের অধিবেশনের সঙ্গে আগের বছরগুলোর অধিবেশনের কিছুটা পার্থক্য থাকবে।

এর কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ইরানের পরমাণু সমঝোতা ও প্যারিস জলবায়ু চুক্তি থেকে বেরিয়ে গিয়ে যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বে কোণঠাসা হয়ে পড়েছে, যার আলামত এবারের অধিবেশনে প্রকাশ পাবে।

এবারের নিউইয়র্ক সফরে প্রেসিডেন্ট রুহানি জাতিসংঘের অধিবেশনে ভাষণ দেয়া ছাড়াও দক্ষিণ আফ্রিকার বর্ণবাদবিরোধী প্রয়াত নেতা নেলসন ম্যান্ডেলার স্মরণে অনুষ্ঠেয় সম্মেলনেও বক্তব্য রাখবেন।

নিউইয়র্ক সফরে রুহানির সঙ্গে রয়েছেন প্রেসিডেন্ট দফতরের প্রধান মাহমুদ ওয়ায়েজি, পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ, উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্বাস আরাকচিসহ পদস্থ সরকারি কর্মকর্তারা।

জাতিসংঘে নিযুক্ত মার্কিন দূত নিকি হ্যালি বলেছেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প নিরাপত্তা পরিষদের একটি সভায় সভাপতিত্ব করবেন। এই সভায় ইরান ও পরমাণু অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা হবে। বুধবার এ সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

ইরানের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় আহভাজ শহরে সামরিক কুচকাওয়াজে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় তেহরানের সঙ্গে ওয়াশিংটনের বাকযুদ্ধ চলছে। শনিবারের ওই হামলায় নারী ও শিশুসহ অন্তত ২৯ জন নিহত হন।