পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন

বিরলে আ’লীগের জয়জয়কার

প্রকাশ : ৩০ ডিসেম্বর ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  দিনাজপুর প্রতিনিধি

দিনাজপুরের বিরল পৌরসভা এবং বিরল উপজেলার ১২নং রাজারামপুর ইউনিয়নের ভোটযুদ্ধে এবার আওয়ামী লীগের প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন আওয়ামী লীগ। দুটি নির্বাচনের ফলাফলেই এবার বিজয়ী আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন নিজ দলের বিদ্রোহী প্রার্থীরা। আর বিএনপি বা অন্যদলের প্রার্থীরা এই নির্বাচনে বিজয়ী ও প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের কাছাকাছিও থাকতে পারেনি।

২৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনের ফলাফলে জানা গেছে, বিরল পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র পদে বিজয়ী হন আওয়ামী লীগের প্রার্থী বিরল উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সবুজার সিদ্দিক সাগর। একই দিন অনুষ্ঠিত বিরল উপজেলার ১২নং রাজারামপুর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ওই ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মুকুল চন্দ্র রায় বিজয়ী হন। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী থাকা সত্ত্বে¡ও বিএনপি নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বীর কাছাকাছি ভোট পায়নি। এ নিয়ে বিরল উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আনম বজলুর রশিদ জানান, বিরল পৌরসভা এবং রাজারামপুর ইউনিয়ন নতুনভাবে গঠন করা হয়েছে। এবারই প্রথম এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হল। ক্ষমতাসীন থাকার সুবাদে উন্নয়নের লোভ দেখিয়ে এবং কালো টাকার প্রভাবে আওয়ামী লীগ ভোটারদের কাছে ভোট আদায় করেছে। তবে স্থানীয় পর্যায়ের এই নির্বাচনে ফলাফল যা-ই হোক জাতীয় নির্বাচনে এর প্রভাব পড়বে না। এ ব্যাপারে বিরল উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সারোয়ারুল ইসলাম বাবলু জানান, বিএনপি যে কালো টাকার অভিযোগ করেছে তার কোনো ভিত্তি নেই। এই এলাকা আওয়ামী লীগের ঘাঁটি হিসেবে দীর্ঘদিন থেকে পরিচিত। আর এ কারণেই বিদ্রোহী প্রার্থী থাকা সত্ত্বেও আওয়ামী লীগকেই নির্বাচিত করেছে ভোটাররা। স্থানীয় পর্যায়ের দুটি নির্বাচনেই আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ার কারণ হিসেবে তিনি জানান, দলের ভেতর কিছু মানুষের অন্তর্™^ন্দ্ব বা ব্যক্তিস্বার্থের কারণেই বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছে। বিদ্রোহী প্রার্থী না থাকলে এখানে আওয়ামী লীগ আরও অনেক বেশি ভোট পেত।