বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় :গোল্ডেন পেতে জেনে নাও

  আফরোজ বেগম ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সহকারী শিক্ষিকা, উত্তরা হাই স্কুল অ্যান্ড কলেজ

সুপ্রিয় এসএসসি-২০১৮-এর পরীক্ষার্থী বন্ধুরা,

নবম, দশম-দুই বছর ধরে প্রচুর পড়াশোনা, প্রচুর পরীক্ষা দেয়া হয়েছে। আশা করি, পরীক্ষার প্রস্তুতিও সুসম্পন্ন হয়েছে। বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয়-এ ভালো নম্বর পাওয়ার জন্য গুরুত্বপূর্ণ কিছু টিপস নিচে দেয়া হল। আশা করি, এসব টিপস্ তোমাদের কাজে আসবে।

* প্রতিটি অধ্যায়ের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সাল, ঘটনা ও শব্দ সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নাও এবং তারপর সাল ও ঘটনাগুলো ক্রমানুসারে সাজিয়ে লিখ ও তা শিখ।

* বোর্ড বই থেকে প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ লাইন মার্কার দিয়ে মার্ক করে লিখ।

* সম্ভব হলে বড়দের কাছে পড়া দাও এবং তা না হলে নিজে নিজেই পড়া ধর।

* নতুন এক অধ্যায়ের গঈছ শিখার আগে পূর্ববর্তী অধ্যায়ের গঈছগুলো প্রথমে রিভিশন দিয়ে তারপর নতুন অধ্যায়ের গঈছ পড়া শুরু করবে।

* ভূগোলের অক্ষাংশ, দ্রাঘিমাংশ ও সময়ের অঙ্গগুলো প্রতিদিন কমপক্ষে ৩টি করে চর্চা করবে। প্রথমে বোর্ড বইয়ের ও পরবর্তীতে বিভিন্ন সালের বোর্ডের অংকগুলো চর্চা কর। সবশেষে টেস্ট পেপারের অংকগুলো করবে।

* বইয়ের বিভিন্ন মানচিত্র ও মানচিত্রের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থান, নদী ইত্যাদির অবস্থান সঠিক করে চিনে মানচিত্রগুলো আঁকবে ও আঁকার চর্চা করবে। মানচিত্রের চারদিকে অবস্থিত দেশগুলো অবশ্যই মানচিত্রে লিখবে।

* কোনো সাজেশনের পেছনে না দৌড়ে বোর্ড বইটিকে গুরুত্ব দিয়ে পড়।

* বোর্ডের প্রশ্নের ধারাবাহিকতা দেখার জন্য তোমরা টেস্ট পেপারের বিভিন্ন সালে বোর্ড প্রশ্নগুলো অনুসরণ করতে পার।

* পরীক্ষার সময় খাতার বাঁদিকে ১ ফুট ও ওপরের দিকে দেড় ফুট জায়গা রেখে ডাবল মার্জিন করবে।

* মার্জিনের বাইরে কিছু লিখবে না। যা কিছুই লিখ না কেন তা মার্জিনের ভেতরে লিখবে।

* প্রশ্নের নং নীল কালি দিয়ে লিখবে।

* প্রতিটি উত্তরের শেষে নীল কালি দিয়ে (-x-) দেবে, এবং দুটি উত্তরের মাঝে অবশ্যই কমপক্ষে দুই আঙুল মধঢ় দেবে।

* প্রত্যেকটি ‘ক’ নং এর উত্তর এক শব্দে বা এক বাক্যে লিখবে।

* ‘খ’ নং প্রতিটি উত্তর details-এ লেখার দরকার নেই। যা তোমার কাছে জানতে চাওয়া হয়েছে তার মূল উত্তরটি ৪-৫ বাক্যে পয়েন্ট করে লিখবে।

* ‘গ’ নং এর উত্তরটি বোর্ড বইয়ের আলোকে ঠিক করে সাজিয়ে সুন্দরভাবে উপস্থান করবে। সম্ভব হলে তিন প্যারায় লিখবে।

* ‘ঘ’ নং এর উত্তরটি চার প্যারায় লিখবে। প্রশ্নের সমস্যাটি সমাধানের উপায় কাজে লাগিয়ে নিজের, সমাজের রাষ্ট্রের নানা সমস্যা সমাধানের উপায় নিয়ে ও আলোচনা করবে অর্থাৎ, বই থেকে অর্জিত জ্ঞানের বাস্তব প্রয়োগ নিয়েও খাতায় আলোচনা করবে।

* প্রতিটি উত্তর হেডিং বা পয়েন্টভিত্তিক হলে ভালো হয়। সে ক্ষেত্রে হেডিং ও পয়েন্টগুলোতে অবশ্যই নীল কালি ব্যবহার করবে।

* সময়ের ব্যাপারটা অবশ্যই মাথায় রাখবে। আড়াই ঘণ্টায় ৭টি সৃজনশীল দিতে হবে। প্রতিটি সৃজনশীলে তুমি ২১ মিনিট করে সময় পাবে। সময় বিভাজনটা পরীক্ষার হলে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

* Question selection is also the most important matter to secure good marks. তাই পরীক্ষার বর্ণনামূলক প্রশ্নের উত্তর পাতার পর পাতা লিখে সময় নষ্ট না করে, চেষ্টা করবে তথ্যমূলক ও পয়েন্টভিত্তিক প্রশ্নের উত্তর করতে। এমন প্রশ্নের উত্তর করলে যেমন নম্বর ভালো আসবে তেমনই সময়ও বাঁচবে। তবে, হ্যাঁ, তথ্যের সঠিক ও নির্ভুল হতে হবে। তথ্যের উৎস দিতে হবে।

* সর্বশেষ, খাতার পরিচ্ছন্নতা, সুন্দর, স্পষ্ট অক্ষর ও নির্ভুল বানানের প্রতিও যত্নশীল হতে হবে।

* পরীক্ষার হলে টেনশন বা দেখাদেখি করে সময় নষ্ট না করে নিজের ওপর আত্মবিশ্বাসী হয়ে লিখতে শুরু করলে দেখবে, তুমিই সবচেয়ে ভালো পরীক্ষা দেবে।

* তোমরা, বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীরা বিজ্ঞান ও গণিত নিয়ে এত বেশি ব্যস্ত থাক যে ইঝে-এ অপেক্ষাকৃত অনেক কম সময় দাও। এই বিষয়টা অনেকটা অবহেলা কর। এই সময়ে যদি ইঝে-এ সময়টা না বাড়াও তবে গোল্ডেন মিস হওয়ার একটা আশঙ্কা দেখা দেয়। গোল্ডেন পেতে হলে এই বিষয়ের খুঁটিনাটির দিকে এখনই মনোযোগ দিতে হবে। মোটকথা, টিপস্ অনুসারে বাকি সময়টা চল। শুভ কামনা রইল।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×