পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা

প্রাথমিক গণিত * প্রাথমিক বিজ্ঞান

প্রাথমিক গণিত

  সৈয়দ কায়েস-উর-রহমান ২০ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সহকারী শিক্ষক, মনিপুর উচ্চবিদ্যালয় ও কলেজ

২৪১. আন্তর্জাতিক মতে কখন থেকে দিন ও তারিখ শুরু হয়? উত্তর : রাত ১২টার পর থেকে

২৪২. ১৫৫০ সালে কোন শতাব্দী ছিল?

উত্তর : ষোড়শ শতাব্দী

২৪৩. কোন সাল থেকে কোন সাল পর্যন্ত একুশ শতাব্দী?

উত্তর : ২০০১ সাল থেকে ২১ সাল পর্যন্ত

২৪৪. আন্তর্জাতিক রীতি অনুযায়ী একটি বিমান ২০টার সময় ঢাকা ছাড়ে। দেশীয় রীতি অনুযায়ী কয়টার সময় বিমান রওনা দেয়? উত্তর : রাত ৮টা

২৪৫. ইংরেজি ক্যালেন্ডারে এক বছরে কত দিন?

উত্তর : ৩৬৫ দিন

২৪৬. উপাত্ত কাকে বলে?

উত্তর : প্রাপ্ত তথ্যগুলোকে সংখ্যার মাধ্যমে প্রকাশ করাকে উপাত্তর বলে।

২৪৭. উপাত্তকে কয় ভাকে ভাগ করা যায়? উত্তর : ২ ভাগে

২৪৮. শ্রেণি ব্যবধান কাকে বলে?

উত্তর : প্রত্যেক শ্রেণির দুটি মানের মধ্যে পার্থক্য বা ব্যবধান হল শ্রেণি ব্যবধান

২৪৯. ৩০-৩৯ শ্রেণির শ্রেণি ব্যবধান কত? উত্তর : ১০

২৫০. জনসংখ্যা ঘনত্ব কাকে বলে?

উত্তর : কোন এলাকায় গড়ে প্রতি বর্গকিলোমিটারে যত লোক বাস করে সেই সংখ্যা কে বলা হয় ওই এলাকার জনসংখ্যার ঘনত্ব।

২৫১. বাংলাদেশের মোট এরিয়া কত?

উত্তর : ১,৪৭.৫৭০ বর্গকিলোমিটার

২৫২. ১৫, ১৭, ১৮, ১৯, ২৫ এগুলো কী ধরনের উপাত্ত?

উত্তর : বিন্যস্ত উপাত্ত

২৫৩. এলোমেলোভাবে সাজানো সংখ্যাগুলোকে কী বলে?

উত্তর : অবিন্যস্ত উপাত্ত

২৫৪. ৮ সংখ্যাটি ট্যালি চিহ্নের মাধ্যমে লিখ।

উত্তর :

২৫৫. উপাত্ত কত প্রকার ও কী কী?

উত্তর : ২ প্রকার। বিন্যস্ত ও অবিন্যস্ত উপাত্ত

২৫৬. কুসুমপুর গ্রামের আয়তন ৫ বর্গ কিলোমিটার সেই গ্রামে ৩৬০০ জন লোক বাস করে। জনসংখ্যার ঘনত্ব কত?

উত্তর : ৭২০

২৫৭. কোন বিভাগের জনসংখ্যার ঘনত্ব সবচেয়ে কম?

উত্তর : বরিশাল

২৫৮. ক্যালকুলেটার কী?

উত্তর : সাধারণ গণনার জন্য হস্তচালিত একটি ইলেট্রনিক যন্ত্র, যা একটি বৈদ্যুতিক ব্যাটারি দ্বারা চলে।

২৫৯. কম্পিউটার কী? উত্তর : ইলেকট্রনিক যন্ত্র

২৬০. কম্পিউটার শব্দের বাংলা অর্থ কী?

উত্তর : হিসাব করা

২৬২. আধুনিক কম্পিউটারের জনক কে?

উত্তর : চার্লস ব্যাবেজ

২৬২. মানুষ কোন উদ্দেশ্যে কম্পিউটার ব্যবহার করে?

উত্তর : সহজ ও দ্রুততম সময়ে কাজ করার জন্য।

২৬৩. ৮৫-৮+১০৩ = কত? হিসাবটি বের করতে একটি সচল ক্যালকুলেটরে কতটি বোতাম চাপতে হবে?

উত্তর : ১৮০, ৯টি

২৬৪. ১৭+৯=২৬ সমস্যাটি সমাধান করতে ক্যালকুলেটরের বোতাম কতবার চাপতে হবে?

উত্তর : ৫ বার

২৬৫. তোমার গণিত বইয়ের ক্যালকুলেটরে কয়টি বোতাম আছে? উত্তর : ২৪টি

প্রাথমিক বিজ্ঞান

আফরোজা বেগম

সিনিয়র শিক্ষক, উত্তরা হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজ উত্তরা, ঢাকা

মহাবিশ্ব

প্রশ্ন : পৃথিবীর দুই ধরনের গতি কী কী?

উত্তর : পৃথিবীর দুই ধরনের গতি আছে।

যথা : * আহ্নিক গতি * বার্ষিক গতি

প্রশ্ন : দিন ও রাত কী কারণে হয়?

উত্তর : দিন ও রাত আহ্নিক গতির কারণে হয়। পৃথিবীর আপন কক্ষে একটি পাক খাওয়ার ফলে আহ্নিক গতির সৃষ্টি হয়। আর এই আহ্নিক গতির ফলেই একই সময় পৃথিবীর এক অংশে আলো পড়ে ও দিন হয় এবং অপর অংশে আলো পড়ে না। তাই সেখানে রাত হয়।

সুতরাং, আহ্নিক গতির জন্যই পৃথিবীতে দিন ও রাত হয়।

প্রশ্ন : চাঁদের বিভিন্ন দশার কারণ কী?

উত্তর : চাঁদ পৃথিবীর একমাত্র উপগ্রহ। ইহার নিজস্ব কোনো আলো নেই। চাঁদ সূর্যের আলো প্রতিফলিত করে। চাঁদের অর্ধাংশ সূর্যের আলোতে সব সময়ই আলোকিত। কিন্তু পৃথিবীকে আর্বতনের সময় পৃথিবীর দিকে মুখ করা চাঁদের আলোকিত অংশের পরিমাণ ভিন্ন ভিন্ন হয়। ফলে চাঁদের বিভিন্ন দশার সৃষ্টি হয়।

প্রশ্ন : গ্রীষ্মকালে তাপমাত্রা বৃদ্ধি পায় কেন?

উত্তর : যখন পৃথিবীর উত্তর গোলার্ধ সূর্যের দিকে হেলে থাকে সে অংশে তখন গ্রীষ্মকাল। গ্রীষ্মকালে তাপমাত্রা বৃদ্ধি পায় কারণ এ সময় সূর্য খাড়াভাবে কিরণ দেয় ফলে দিনের সময়কাল দীর্ঘ হয় ও তাপমাত্রা বৃদ্ধি পায়।

প্রশ্ন : ঋতু পরিবর্তনের কারণ ব্যাখ্যা কর।

উত্তর : পৃথিবীর নিজস্ব কক্ষপথে ঘূর্ণন এবং সূর্যের দিকে এর হেলে থাকা অক্ষের কারণে ঋতু পরিবর্তন হয়। সূর্য কেন্দ্র করে পৃথিবীর আবর্তনের জন্য বিভিন্ন সময়ে পৃথিবীর বিভিন্ন অংশ সূর্যের দিকে বা সূর্যের বিপরীত দিকে সরে গিয়ে যথাক্রমে গ্রীষ্ম বা শীত ঋতু ঘটায়।

গ্রীষ্মকাল

* যখন পৃথিবীর উত্তর গোলার্ধ সূর্যের দিকে হেলে থাকে সে অংশে তখন গ্রীষ্মকাল। * গ্রীষ্মকালে সূর্য আকাশের অপেক্ষাকৃত উঁচুতে অবস্থান করে। * এ সময় উত্তর গোলার্ধে সূর্য খাড়াভাবে কিরণ দেয়। * দিন বড় হয়।

* তাপমাত্রা বাড়ে। * এ সময় দক্ষিণ গোলার্ধে ঘটে উল্টো ব্যাপার। সেখানে তখন শীতকাল। * জুন মাসে উত্তর গোলার্ধে গ্রীষ্মকাল হলেও একই সময়ে দক্ষিণ গোলার্ধে শীতকাল হয়।

* শীতকাল

* যখন পৃথিবীর উত্তর গোলার্ধ সূর্যের বিপরীত দিকে হেলে থাকে সে অংশে তখন শীতকাল। * শীতকালে সূর্য আকাশের অপেক্ষাকৃত নিচে অবস্থান করে। * এ সময় উত্তর গোলার্ধে সূর্য তীর্যকভাবে কিরণ দেয়। * দিনের দৈর্ঘ্য কম হয়। দিনের চেয়ে রাত বড় হয়।

* তাপমাত্রা হ্রাস পায়।

* ডিসেম্বর মাসে উত্তর গোলার্ধে শীতকাল আর দক্ষিণ গোলার্ধে গ্রীষ্মকাল।

শরৎ ও বসন্তকাল

* মার্চ ও সেপ্টেম্বর মাসে উভয় গোলার্ধের দিন ও রাত প্রায় সমান থাকে।

* উত্তর গোলার্ধে মার্চ মাসে বসন্তকাল আর সেপ্টেম্বর মাসে শীতকাল বিরাজ করে। আর দক্ষিণ গোলার্ধে তার বৈপরীত্য বিরাজ করে।

সুতরাং, ঋতু পরিবর্তনের জন্য বার্ষিক গতিই দায়ী।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×