এই পরীক্ষার ওপর নির্ভর করছে পরবর্তী শ্রেণির পরিকল্পনা

  মো. মাতলুবুর রহমান ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

উপাধ্যক্ষ (বিএম-এমএস) * রাজউক উত্তরা মডেল কলেজ, ঢাকা

জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষা একজন শিক্ষার্থীর জন্য পিইসি পরীক্ষার পর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পাবলিক পরীক্ষা। এ পরীক্ষায় ভালো ফলাফল অর্জন করতে পারলে একজন শিক্ষার্থীর জন্য পরবর্তীতে অর্জিত ফলাফল দিয়েই দেশের শ্রেষ্ঠ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নবম শ্রেণিতে বিজ্ঞান, ব্যবসায় শিক্ষা কিংবা মানবিক বিভাগে ভর্তি হওয়া সম্ভব। একজন পরীক্ষার্থী যেসব বিষয়ে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করবে তা নিম্নরূপ-

পরীক্ষার আগের রাতে : এনসিটিবি কর্তৃক প্রদত্ত বোর্ড বইটি ভালোভাবে রিভিশন দিতে হবে। কারণ এর মাধ্যমে পড়াটা স্থায়ীভাবে স্মৃতিতে সন্নিবেশিত হয়। ঘুমাতে যাওয়ার আগে পরীক্ষার জন্য দরকারি জিনিস যেমন- প্রবেশপত্র, রেজিস্ট্রেশন কার্ড, কালো বলপেন, কাঠপেন্সিল, ইরেজার, শার্পনার, স্কেল, জ্যামিতি বক্স, রয়েল ব্লু সাইনপেন, সাধারণ Non Programable সায়েন্টিফিক ক্যালকুলেটর ইত্যাদি গুছিয়ে রাখবে। পরীক্ষার আগের রাতে বেশি রাত জেগে না পড়াই উত্তম।

পরীক্ষার খাতা হাতে পাওয়ার পর : মূল খাতায় জেএসসি পরীক্ষা ২০১৯ লিখবে। অতঃপর পরীক্ষার নাম জেএসসি লেখার পার্শ্বের বৃত্তটি ভরাট করবে। রোল নম্বর, রেজিস্ট্রেশন নম্বর, বিষয় কোড প্রবেশপত্র দেখে লিখবে ও বৃত্ত ভরাট করবে। সম্পূর্ণ খাতাটির ওপরে ও বাম পার্শ্বে ১ ইঞ্চি জায়গা রেখে মার্জিন করবে। বক্স মার্জিন পরিহার করাই শ্রেয়। পরীক্ষা শেষ হওয়ার ১৫ মিনিট আগে সর্বশেষ অতিরিক্ত উত্তরপত্র নিয়ে অতিরিক্ত উত্তরপত্রের সংখ্যা লিখে তার নিচে বৃত্ত ভরাট করবে।

প্রশ্ন হাতে পাওয়ার পর : প্রশ্নপত্র হাতে পাওয়ার পর প্রথমেই ২০ থেকে ২৫ মিনিটের মধ্যেই বহুনির্বাচনী প্রশ্নের সঠিক উত্তরে টিক (√) চিহ্ন দিবে। অতঃপর সৃজনশীল প্রশ্নগুলো দ্রুত পড়ে নাও এবং জানা প্রশ্নগুলোর উত্তর আগে লিখবে। যেসব প্রশ্ন কঠিন মনে হয় সেগুলোর উত্তর পরে লিখবে। গত বছর থেকে চতুর্থ বিষয় ছাড়া জেএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। কাজেই সাতটি বিষয়ে A+ পেলেই সেক্ষেত্রে তুমি জিপিএ ৫.০০ পাবে অন্যথায় নয়। কক্ষ প্রত্যবেক্ষককে দিয়ে মূল খাতা স্বাক্ষর করিয়ে নিবে এবং স্বাক্ষরলিপিতে নিজেও স্বাক্ষর করবে।

অতিরিক্ত খাতা প্রয়োজন হলে : কক্ষ প্রত্যবেক্ষকের কাছ থেকে অতিরিক্ত খাতা চেয়ে নিয়ে যেসব বিষয় লিখতে বলা হয়েছে তা লিখে তাৎক্ষণিক খাতাটির ওপরে ও বাম পার্শ্বে ১ ইঞ্চি পরিমাণ জায়গা রেখে মার্জিন করে নিয়ে উত্তর লেখা শুরু করবে। অতিরিক্ত খাতার ক্রমিক নম্বর মূল খাতার কাভার পৃষ্ঠার নির্দিষ্ট স্থানে লিখে বৃত্ত ভরাট করতে হবে।

খাতার পরিচ্ছন্নতা : উত্তরপত্রের কোথাও ভুল হলে একটানে কাটতে হবে। সাধু ও চলিত ভাষার মিশ্রণ না করে নির্ভুল বানানসহ চলিত ভাষায় উত্তর লিখতে হবে।

খাতা জমা দেয়ার আগে : পরীক্ষা শেষ হওয়ার দশ মিনিট আগে লেখা শেষ করে অবশ্যই প্রতিটি প্রশ্নের উত্তর মনোযোগ দিয়ে রিভিশন করবে এবং প্রশ্নপত্রের সঙ্গে উত্তরপত্রের প্রশ্নক্রমিক মিলিয়ে নেবে।

অভিভাবকদের দায়িত্ব : সন্তান সুস্থ আছে তা নিশ্চিত করবেন। নিরাপদে ও সময়মতো পরীক্ষার হলে সন্তানকে পৌঁছিয়ে দেবেন এবং পরীক্ষা শেষে বাসায় নিরাপদে নিয়ে যাবেন।

পরীক্ষার হলে : পরীক্ষা শেষে উত্তরপত্র কক্ষ প্রত্যবেক্ষকের কাছে জমা দিবে। প্রবেশপত্র ও রেজিস্ট্রেশন কার্ড ব্যতীত অন্য কোনো কাগজপত্র পরীক্ষাকেন্দ্রের অভ্যন্তরে আনতে পারবে না। কক্ষ পরিদর্শক বা কোনো কর্মকর্তার সঙ্গে অসদাচরণ করা যাবে না। পরীক্ষার খাতার লিথোকোড পরিবর্তন করা যাবে না।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×