অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা
jugantor
অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা
ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা

  মো. মুজাম্মেল হক  

০৯ জুন ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সিনিয়র শিক্ষক,

মিরপুর বাংলা উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ঢাকা

অনুধাবনমূলক প্রশ্নোত্তর : ১ম অধ্যায়

[পূর্বে প্রকাশিত অংশের পর]

১২। রিসালাত বলতে কী বোঝায়?

উত্তর : আকাইদের বিষয়গুলোর মধ্যে রিসালাত অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। রিসালাত অর্থ সংবাদ বহন, খবর বা চিঠি পৌঁছানো।

ইসলামী পরিভাষায় আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের পক্ষ থেকে পৃথিবীর মানুষের কাছে তার হেদায়াত বা পথ নির্দেশনা এবং আদেশ-নিষেধ, বিধি-বিধান প্রভৃতি অবিকল পৌঁছে দেয়ার নাম রিসালাত। সংক্ষেপে বলা যায় আল্লাহ পাকের বাণী মানুষের কাছে পৌঁছে দেয়াকে রিসালাত বলে।

১৩। রিসালাতের প্রতি বিশ্বাস থাকা জরুরি কেন?

উত্তর : মহান আল্লাহতায়ালার পবিত্র বাণী মানুষের কাছে পৌঁছে দেয়ার দায়িত্বকে রিসালাত বলা হয়।

রিসালাতের প্রতি বিশ্বাস করা ইমানের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। তাওহিদে বিশ্বাস করা যেমন জরুরি, রিসালাতে বিশ্বাস করাও তেমনি জরুরি। আমরা আল্লাহর পরিচয় জানতাম না। আল্লাহতায়ালা মেহেরবাণি করে আমাদের কাছে নবী-রাসূল পাঠিয়েছেন। তাঁরা আমাদের আল্লাহর পরিচয় জানিয়েছেন। রিসালাতে বিশ্বাস না করলে আল্লাহর বাণীকে অবিশ্বাস করা হয়। আল্লাহর বাণী অবিশ্বাস করলে আল্লাহকে অবিশ্বাস করা হয়। সুতরাং রিসালাতে বিশ্বাস থাকা জরুরি।

১৪। খতমে নবুয়ত বলতে কী বোঝায়?

উত্তর : খতম শব্দের অর্থ শেষ, সমাপ্ত। আর নবুয়ত অর্থ পয়গম্বরি, নবীগণের দায়িত্ব ইত্যাদি। সুতরাং খতমে নবুয়ত অর্থ নবীগণের দায়িত্বের পরিসমাপ্তি বা নবুয়তের সমাপ্তি।

মানবজাতির হেদায়াতের জন্য আল্লাহতায়ালা যুগে যুগে বহু নবী-রাসূল প্রেরণ করেন। এ ক্রমধারা শুরু হয় হজরত আদম (আ.) এর মাধ্যমে আর হজরত মুহাম্মদ (সা.) এর আগমনের মাধ্যমে শেষ হয়। নবুয়ত তথা নবী-রাসূল আগমনের এ ক্রমধারাটির সমাপ্তিকেই খতমে নবুয়ত বলা হয়।

অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা

ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা
 মো. মুজাম্মেল হক 
০৯ জুন ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সিনিয়র শিক্ষক,

মিরপুর বাংলা উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ঢাকা

অনুধাবনমূলক প্রশ্নোত্তর : ১ম অধ্যায়

[পূর্বে প্রকাশিত অংশের পর]

১২। রিসালাত বলতে কী বোঝায়?

উত্তর : আকাইদের বিষয়গুলোর মধ্যে রিসালাত অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। রিসালাত অর্থ সংবাদ বহন, খবর বা চিঠি পৌঁছানো।

ইসলামী পরিভাষায় আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের পক্ষ থেকে পৃথিবীর মানুষের কাছে তার হেদায়াত বা পথ নির্দেশনা এবং আদেশ-নিষেধ, বিধি-বিধান প্রভৃতি অবিকল পৌঁছে দেয়ার নাম রিসালাত। সংক্ষেপে বলা যায় আল্লাহ পাকের বাণী মানুষের কাছে পৌঁছে দেয়াকে রিসালাত বলে।

১৩। রিসালাতের প্রতি বিশ্বাস থাকা জরুরি কেন?

উত্তর : মহান আল্লাহতায়ালার পবিত্র বাণী মানুষের কাছে পৌঁছে দেয়ার দায়িত্বকে রিসালাত বলা হয়।

রিসালাতের প্রতি বিশ্বাস করা ইমানের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। তাওহিদে বিশ্বাস করা যেমন জরুরি, রিসালাতে বিশ্বাস করাও তেমনি জরুরি। আমরা আল্লাহর পরিচয় জানতাম না। আল্লাহতায়ালা মেহেরবাণি করে আমাদের কাছে নবী-রাসূল পাঠিয়েছেন। তাঁরা আমাদের আল্লাহর পরিচয় জানিয়েছেন। রিসালাতে বিশ্বাস না করলে আল্লাহর বাণীকে অবিশ্বাস করা হয়। আল্লাহর বাণী অবিশ্বাস করলে আল্লাহকে অবিশ্বাস করা হয়। সুতরাং রিসালাতে বিশ্বাস থাকা জরুরি।

১৪। খতমে নবুয়ত বলতে কী বোঝায়?

উত্তর : খতম শব্দের অর্থ শেষ, সমাপ্ত। আর নবুয়ত অর্থ পয়গম্বরি, নবীগণের দায়িত্ব ইত্যাদি। সুতরাং খতমে নবুয়ত অর্থ নবীগণের দায়িত্বের পরিসমাপ্তি বা নবুয়তের সমাপ্তি।

মানবজাতির হেদায়াতের জন্য আল্লাহতায়ালা যুগে যুগে বহু নবী-রাসূল প্রেরণ করেন। এ ক্রমধারা শুরু হয় হজরত আদম (আ.) এর মাধ্যমে আর হজরত মুহাম্মদ (সা.) এর আগমনের মাধ্যমে শেষ হয়। নবুয়ত তথা নবী-রাসূল আগমনের এ ক্রমধারাটির সমাপ্তিকেই খতমে নবুয়ত বলা হয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন