বিজ্ঞান * ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা
jugantor
পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা
বিজ্ঞান * ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা
বিজ্ঞান

  আফরোজা বেগম  

১২ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সিনিয়র শিক্ষক, উত্তরা হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজ, উত্তরা, ঢাকা

জীবনের জন্য পানি

প্রশ্ন : পানিচক্র কী?

উত্তর : পানিচক্র : যে প্রক্রিয়ায় পানি বিভিন্ন অবস্থায় পরিবর্তিত হয়ে ভূপৃষ্ঠ ও বায়ুমণ্ডলের সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে তাই পানিচক্র। সূর্যের কারণেই পানিচক্র হয়।

প্রশ্ন : পানি দূষণ প্রতিরোধের ৩টি উদাহরণ দাও।

উত্তর : পানি দূষণ প্রতিরোধের ৩টি উদাহরণ নিচে দেয়া হলো-

* কৃষিতে কীটনাশক ও রাসায়নিক সারের ব্যবহার কমিয়ে সবুজ সার ব্যবহার করে আমরা পানি দূষণ প্রতিরোধ করতে পারি।

* রান্না ঘরের নিষ্কাশন নালায় ও টয়লেটে রাসায়নিক বর্জ্য এবং তেল না ফেলে দূষণ রোধ করতে পারি।

* পুকুর, নদী, হ্রদ কিংবা সাগরে ময়লা-আবর্জনা না ফেলে অথবা সমুদ্র সকৈতে পড়ে থাকা ময়লা এবং হ্রদ কিংবা নদীতে ভাসমান ময়লা-আবর্জনা কুড়িয়ে আমরা পানি পরিষ্কার রাখতে পারি।

সুতরাং, আমরা আমাদের সচেতনতা বাড়িয়ে আমাদের কর্মকাণ্ডের পরিবর্তন করে পানি দূষণ প্রতিরোধ করতে পারি।

প্রশ্ন : অনিরাপদ পানি থেকে নিরাপদ পানি পাওয়ার চারটি উপায় লিখ।

উত্তর : অনিরাপদ পানি থেকে নিরাপদ পানি পাওয়ার চারটি উপায় নিচে দেয়া হলো-

ছাঁকন পদ্ধতি : ছাঁকনি বা পাতলা কাপড় দিয়ে ছেঁকে পানির ভাসমান বা অদ্রবীভূত ময়লা দূর করতে পারি।

থিতানো : নদী বা পুকুরের পানি অনেকক্ষণ রেখে দিলে পাত্রের তলায় তলানি জমে। উপরের পানি পরিষ্কার হয়। এভাবে পানিতে থাকা ময়লা যেমন কাদা বালি ইত্যাদি এ তিথান পদ্ধতিতে নিরাপদ করা যায়।

ফুটানো : ২০ মিনিটের বেশি সময় ধরে পানি ফুটালে তা জীবাণুক্ত হয়।

রাসায়নিক পক্রিয়ায় : অনেক সময় বন্যা বা জলোচ্ছ্বাস ইত্যাদির কারণে পানি ফুটানো সম্ভব না হলে বিভিন্ন ধরনের রাসায়নিক পদার্থ যেমন- ফিটকিরি, ব্লিচিং পাউডার, পানি বিশুদ্ধকরণ হ্যালোজেন ট্যাবলেট ইত্যাদি পরিমাণমতো পানিতে মিশিয়ে পানিকে জীবাণুমুক্ত করা যেতে পারে। তবে আর্সেনিকযুক্ত পানি এ পদ্ধতিতে নিরাপদ করা যাবে না।

প্রশ্ন : বৃষ্টির পর মাটিতে পানি জমা হয়। কিছুক্ষণ পর সেই পানি অদৃশ্য হয়ে যায়। ওই পানি কোথায় যায়

উত্তর : ভূপৃষ্ঠ দানা দানা মাটির কণা দিয়ে তৈরি। বৃষ্টির পর মাটিতে পানি জমা হয়। কিছুক্ষণ পর ভূপৃষ্ঠের মাটির কণার ফাঁক দিয়ে তা থিতান পদ্ধতিতে ভূগর্বে জমা হয়। ভূগর্ভের নিচে অদানাদার মিহি মাটির প্লেট রয়েছে। পানি তা ভেদ করে আর নিচে যেতে পারে না। বৃষ্টির পানি ভূপৃষ্ঠ ভেদ করে ভূগর্বে ভূগর্ভস্থ পানি হিসেবে জমা হয়।

সুতরাং, বৃষ্টির পানি ভূপৃষ্ঠ শোষণ করে ভূগর্ভে পাঠিয়ে দেয়। তাই কিছুক্ষণ পর বৃষ্টির পানি অদৃশ্য হয়ে ভূগর্বে জমা হয়।

প্রশ্ন : পানির তিনটি অবস্থা কী কী?

উত্তর : পানি একটি তরল পদার্থ। এটা পানির স্বাভাবিক অবস্থা। তাপে পানির অবস্থার পরিবর্তন হয়। পানির তিনটি অবস্থা নিুরূপ-

* বরফ- পানির কঠিন অবস্থা।

* পানি- পানির তরল ও স্বাভাবিক অবস্থা।

* জলীয়বাষ্প- এটা পানির বায়বীয় অবস্থা।

পানিকে ঠাণ্ডা করলে তা বরফে অর্থাৎ কঠিন অবস্থায় আর পানিকে তাপ দিলে তা জলীয়বাষ্পে অর্থাৎ বায়বীয় অবস্থায় পরিণত হয়।

ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা

মো. ফোরকান আহমেদ

সহকারী শিক্ষক, মুনলাইট মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ

আকাইদ বিশ্বাস

বহুনির্বাচনী প্রশ্নোত্তর

[পূর্বে প্রকাশিত অংশের পর]

২৩। নবী-রাসূলের কাজ কী ছিল?

ক. কুরআন মাজিদের হেফাজত করা

খ. মানুষকে কুরআন শিক্ষা দেওয়া

গ. মানুষকে আল্লাহর নির্দেশিত পথে পরিচালিত করা

ঘ. শয়তানের প্ররোচনা থেকে মানুষকে রক্ষা করা

২৪। নিচের কোনটি একজন মুমিনের মধ্যে উপস্থিত?

ক. অসৎ পথে চলা

খ. মানুষের ক্ষতি করা

গ. অন্যায়ের পথে না চলা

ঘ. চোখকে কু-দৃষ্টি থেকে হেফাজত না করা

২৫। কারা পৃথিবীতে ইজ্জত ও সম্মানের সহিত জীবন অতিবাহিত করে?

ক. যাদের অধিক সম্পদ আছে

খ. যারা দেখতে সুন্দর

গ. যারা উচ্চপদে অধিষ্ঠিত

ঘ. যারা আল্লাহর বিধান অনুসারে চলে

২৬। ইসলামের লক্ষ্য হলো-

ক. মানুষকে সম্পদশালী করা

খ. মানবজীবনের সুখ-শান্তি প্রতিষ্ঠা করা

গ. মানুষকে ইবাদতে অভ্যস্ত বান্দা হিসেবে তৈরি করা

ঘ. মানুষকে কিয়ামত সম্পর্কে অবহিত করা

২৭। নীরব সাহেব অন্তর থেকে আল্লাহ ও তাঁর রাসূলকে বিশ্বাস করেন। পবিত্র কুরআনের আলোকে জীবন গড়েছেন এবং ইসলামের সবগুলো নিয়ম-কানুন মেনে চলেন। ইসলামের দৃষ্টিতে নীরব সাহেব একজন-

ক. ইমানদার ব্যক্তি খ. আকিদা সম্পন্ন ব্যক্তি

গ. পরহেজগার ব্যক্তি ঘ. তাকওয়া সম্পন্ন ব্যক্তি

২৮। একজন প্রকৃত মুসলিম অন্তরে কি পোষণ করেন?

ক. ইমান খ. আকিদা

গ. তাকওয়া ঘ. আল্লাহ ভীতি

২৯। ধর্মের দৃষ্টিতে বৈধ-অবৈধ বা হালাল-হারাম এবং জায়েজ না জায়েজ শিক্ষা সম্বলিত বিধি-বিধানকে কি বলে?

ক. ইমান খ. বিশুদ্ধ আকিদা গ. তাকওয়া ঘ. শরিয়াত

৩০। আমরা কিভাবে জীবন গড়ব?

ক. নবীদের জীবনীর আলোকে

খ. রাসূলদের আলোকে

গ. হাদিসের আলোকে

ঘ. কুরআনের আলোকে

৩১। মানুষ সৃষ্টির শ্রেষ্ঠ হয়েও ভুল করে কেন?

ক. মাঝে মাঝে বুদ্ধিগুলো কাজ করে না বলে

খ. ভুল কাজের প্রতি মানুষের বেশি আকর্ষণ বলে

গ. ইচ্ছা করে

ঘ. শয়তানের প্ররোচনায় পড়ে

৩২। আল্লাহতায়ালা পবিত্র কোরআন নাজিল করেছেন কেন?

ক. অল্লাহর গৌরব প্রচারের জন্য

খ. সূরা শিক্ষা দেওয়ার জন্য

গ. নামাজ পড়ার জন্য

ঘ. আদর্শ জীবন গঠনের জন্য

উত্তর : ২৩। গ ২৪। গ ২৫। ঘ ২৬। গ ২৭। ক ২৮। খ ২৯। ঘ ৩০। ঘ ৩১। ঘ ৩২। ঘ

পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা

বিজ্ঞান * ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা

বিজ্ঞান
 আফরোজা বেগম 
১২ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সিনিয়র শিক্ষক, উত্তরা হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজ, উত্তরা, ঢাকা

জীবনের জন্য পানি

প্রশ্ন : পানিচক্র কী?

উত্তর : পানিচক্র : যে প্রক্রিয়ায় পানি বিভিন্ন অবস্থায় পরিবর্তিত হয়ে ভূপৃষ্ঠ ও বায়ুমণ্ডলের সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে তাই পানিচক্র। সূর্যের কারণেই পানিচক্র হয়।

প্রশ্ন : পানি দূষণ প্রতিরোধের ৩টি উদাহরণ দাও।

উত্তর : পানি দূষণ প্রতিরোধের ৩টি উদাহরণ নিচে দেয়া হলো-

* কৃষিতে কীটনাশক ও রাসায়নিক সারের ব্যবহার কমিয়ে সবুজ সার ব্যবহার করে আমরা পানি দূষণ প্রতিরোধ করতে পারি।

* রান্না ঘরের নিষ্কাশন নালায় ও টয়লেটে রাসায়নিক বর্জ্য এবং তেল না ফেলে দূষণ রোধ করতে পারি।

* পুকুর, নদী, হ্রদ কিংবা সাগরে ময়লা-আবর্জনা না ফেলে অথবা সমুদ্র সকৈতে পড়ে থাকা ময়লা এবং হ্রদ কিংবা নদীতে ভাসমান ময়লা-আবর্জনা কুড়িয়ে আমরা পানি পরিষ্কার রাখতে পারি।

সুতরাং, আমরা আমাদের সচেতনতা বাড়িয়ে আমাদের কর্মকাণ্ডের পরিবর্তন করে পানি দূষণ প্রতিরোধ করতে পারি।

প্রশ্ন : অনিরাপদ পানি থেকে নিরাপদ পানি পাওয়ার চারটি উপায় লিখ।

উত্তর : অনিরাপদ পানি থেকে নিরাপদ পানি পাওয়ার চারটি উপায় নিচে দেয়া হলো-

ছাঁকন পদ্ধতি : ছাঁকনি বা পাতলা কাপড় দিয়ে ছেঁকে পানির ভাসমান বা অদ্রবীভূত ময়লা দূর করতে পারি।

থিতানো : নদী বা পুকুরের পানি অনেকক্ষণ রেখে দিলে পাত্রের তলায় তলানি জমে। উপরের পানি পরিষ্কার হয়। এভাবে পানিতে থাকা ময়লা যেমন কাদা বালি ইত্যাদি এ তিথান পদ্ধতিতে নিরাপদ করা যায়।

ফুটানো : ২০ মিনিটের বেশি সময় ধরে পানি ফুটালে তা জীবাণুক্ত হয়।

রাসায়নিক পক্রিয়ায় : অনেক সময় বন্যা বা জলোচ্ছ্বাস ইত্যাদির কারণে পানি ফুটানো সম্ভব না হলে বিভিন্ন ধরনের রাসায়নিক পদার্থ যেমন- ফিটকিরি, ব্লিচিং পাউডার, পানি বিশুদ্ধকরণ হ্যালোজেন ট্যাবলেট ইত্যাদি পরিমাণমতো পানিতে মিশিয়ে পানিকে জীবাণুমুক্ত করা যেতে পারে। তবে আর্সেনিকযুক্ত পানি এ পদ্ধতিতে নিরাপদ করা যাবে না।

প্রশ্ন : বৃষ্টির পর মাটিতে পানি জমা হয়। কিছুক্ষণ পর সেই পানি অদৃশ্য হয়ে যায়। ওই পানি কোথায় যায়

উত্তর : ভূপৃষ্ঠ দানা দানা মাটির কণা দিয়ে তৈরি। বৃষ্টির পর মাটিতে পানি জমা হয়। কিছুক্ষণ পর ভূপৃষ্ঠের মাটির কণার ফাঁক দিয়ে তা থিতান পদ্ধতিতে ভূগর্বে জমা হয়। ভূগর্ভের নিচে অদানাদার মিহি মাটির প্লেট রয়েছে। পানি তা ভেদ করে আর নিচে যেতে পারে না। বৃষ্টির পানি ভূপৃষ্ঠ ভেদ করে ভূগর্বে ভূগর্ভস্থ পানি হিসেবে জমা হয়।

সুতরাং, বৃষ্টির পানি ভূপৃষ্ঠ শোষণ করে ভূগর্ভে পাঠিয়ে দেয়। তাই কিছুক্ষণ পর বৃষ্টির পানি অদৃশ্য হয়ে ভূগর্বে জমা হয়।

প্রশ্ন : পানির তিনটি অবস্থা কী কী?

উত্তর : পানি একটি তরল পদার্থ। এটা পানির স্বাভাবিক অবস্থা। তাপে পানির অবস্থার পরিবর্তন হয়। পানির তিনটি অবস্থা নিুরূপ-

* বরফ- পানির কঠিন অবস্থা।

* পানি- পানির তরল ও স্বাভাবিক অবস্থা।

* জলীয়বাষ্প- এটা পানির বায়বীয় অবস্থা।

পানিকে ঠাণ্ডা করলে তা বরফে অর্থাৎ কঠিন অবস্থায় আর পানিকে তাপ দিলে তা জলীয়বাষ্পে অর্থাৎ বায়বীয় অবস্থায় পরিণত হয়।

ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা

মো. ফোরকান আহমেদ

সহকারী শিক্ষক, মুনলাইট মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ

আকাইদ বিশ্বাস

বহুনির্বাচনী প্রশ্নোত্তর

[পূর্বে প্রকাশিত অংশের পর]

২৩। নবী-রাসূলের কাজ কী ছিল?

ক. কুরআন মাজিদের হেফাজত করা

খ. মানুষকে কুরআন শিক্ষা দেওয়া

গ. মানুষকে আল্লাহর নির্দেশিত পথে পরিচালিত করা

ঘ. শয়তানের প্ররোচনা থেকে মানুষকে রক্ষা করা

২৪। নিচের কোনটি একজন মুমিনের মধ্যে উপস্থিত?

ক. অসৎ পথে চলা

খ. মানুষের ক্ষতি করা

গ. অন্যায়ের পথে না চলা

ঘ. চোখকে কু-দৃষ্টি থেকে হেফাজত না করা

২৫। কারা পৃথিবীতে ইজ্জত ও সম্মানের সহিত জীবন অতিবাহিত করে?

ক. যাদের অধিক সম্পদ আছে

খ. যারা দেখতে সুন্দর

গ. যারা উচ্চপদে অধিষ্ঠিত

ঘ. যারা আল্লাহর বিধান অনুসারে চলে

২৬। ইসলামের লক্ষ্য হলো-

ক. মানুষকে সম্পদশালী করা

খ. মানবজীবনের সুখ-শান্তি প্রতিষ্ঠা করা

গ. মানুষকে ইবাদতে অভ্যস্ত বান্দা হিসেবে তৈরি করা

ঘ. মানুষকে কিয়ামত সম্পর্কে অবহিত করা

২৭। নীরব সাহেব অন্তর থেকে আল্লাহ ও তাঁর রাসূলকে বিশ্বাস করেন। পবিত্র কুরআনের আলোকে জীবন গড়েছেন এবং ইসলামের সবগুলো নিয়ম-কানুন মেনে চলেন। ইসলামের দৃষ্টিতে নীরব সাহেব একজন-

ক. ইমানদার ব্যক্তি খ. আকিদা সম্পন্ন ব্যক্তি

গ. পরহেজগার ব্যক্তি ঘ. তাকওয়া সম্পন্ন ব্যক্তি

২৮। একজন প্রকৃত মুসলিম অন্তরে কি পোষণ করেন?

ক. ইমান খ. আকিদা

গ. তাকওয়া ঘ. আল্লাহ ভীতি

২৯। ধর্মের দৃষ্টিতে বৈধ-অবৈধ বা হালাল-হারাম এবং জায়েজ না জায়েজ শিক্ষা সম্বলিত বিধি-বিধানকে কি বলে?

ক. ইমান খ. বিশুদ্ধ আকিদা গ. তাকওয়া ঘ. শরিয়াত

৩০। আমরা কিভাবে জীবন গড়ব?

ক. নবীদের জীবনীর আলোকে

খ. রাসূলদের আলোকে

গ. হাদিসের আলোকে

ঘ. কুরআনের আলোকে

৩১। মানুষ সৃষ্টির শ্রেষ্ঠ হয়েও ভুল করে কেন?

ক. মাঝে মাঝে বুদ্ধিগুলো কাজ করে না বলে

খ. ভুল কাজের প্রতি মানুষের বেশি আকর্ষণ বলে

গ. ইচ্ছা করে

ঘ. শয়তানের প্ররোচনায় পড়ে

৩২। আল্লাহতায়ালা পবিত্র কোরআন নাজিল করেছেন কেন?

ক. অল্লাহর গৌরব প্রচারের জন্য

খ. সূরা শিক্ষা দেওয়ার জন্য

গ. নামাজ পড়ার জন্য

ঘ. আদর্শ জীবন গঠনের জন্য

উত্তর : ২৩। গ ২৪। গ ২৫। ঘ ২৬। গ ২৭। ক ২৮। খ ২৯। ঘ ৩০। ঘ ৩১। ঘ ৩২। ঘ

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন