এসএসসি পরীক্ষার্থীদের প্রস্তুতি, বাংলা দ্বিতীয়পত্র * ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা
jugantor
এসএসসি পরীক্ষার্থীদের প্রস্তুতি, বাংলা দ্বিতীয়পত্র * ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা
বাংলা দ্বিতীয়পত্র

  উজ্জ্বল কুমার সাহা  

২৯ জুলাই ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

এসএসসি পরীক্ষার্থীদের প্রস্তুতি, বাংলা দ্বিতীয়পত্র * ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা

প্রভাষক, সেন্ট যোসেফ উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয়, মোহাম্মদপুর, ঢাকা

নৈর্ব্যক্তিক প্রস্তুতি

১. মানুষের কণ্ঠ নিঃসৃত বাক্সংকেতের সংগঠনকে কী বলে?

ক. ধ্বনি খ. শব্দ গ. বাক্য √ঘ. ভাষা

২. বাংলা বর্ণমালায় পূর্ণমাত্রা, অর্ধমাত্রা ও মাত্রাহীন বর্ণের সংখ্যা যথাক্রমে-

√ক. ৩২, ৮, ১০ খ. ৩২, ৭, ১১

গ. ৩০, ৮, ১২ ঘ. ৩২, ৭, ৯

৩. কোন বর্ণগুলোর উচ্চারণস্থান অগ্র দন্ত্যমূল?

√ক. ন, ল, স খ. শ, ষ, ঝ

গ. য, র, ঢ় ঘ. ম, ব, প

৪. কোনটি কম্পনজাত ধ্বনি?

√ক. র খ. ড় গ. গ ঘ. ণ

৫. কোনগুলো দ্বিত্ব ব্যঞ্জন?

ক. পক্ব>পক্ক, পদ্ম>পদ্দ

√খ. পাকা>পাক্কা, সকাল>সক্কাল

গ. জন্ম>জম্ম, কাঁদনা>কান্ন

ঘ. রাধ্না>রান্না, গৃহিণী>গিন্নী

৬. সংস্কৃত ‘সাৎ’ প্রত্যয়যুক্ত পদে-

ক. ‘ষ’ হয় √খ. ‘ষ’ হয় না

গ. ‘ণ’ হয় ঘ. ‘ণ’ হয় না

৭. ‘সঞ্চয়’ শব্দের সঠিক সন্ধি কোনটি?

ক. সন্+চয় √খ. সম্+চয়

গ. সঙ্+চয় ঘ. সং+চয়

৮. কোনটির আগে স্ত্রীবাচক শব্দ যোগ করে লিঙ্গান্তর করতে হয়?

ক. নেতা খ. দাতা √গ. কবি ঘ. বাদশা

৯. কোন স্ত্রীবাচক শব্দের দুটি পুরুষবাচক শব্দ রয়েছে?

√ক. ননদ খ. দাদি গ. আয়া ঘ. ভাবী

১০. কোনটি যুগ্মরীতির দ্বিরুক্ত?

ক. গরম গরম খ. ঝমঝম

গ. মিটির মিটির √ঘ. টুপটাপ

১১. ‘সাহেব’ শব্দের বহুবচন কোনটি?

√ক. সাহেবান খ. সাহেবকুল

গ. সাহেবমণ্ডলী ঘ. সাহেবসমূহ

১২. মৌলিক শব্দ কোনটি?

ক. গায়ক খ. গোলাপি

√গ. গোলাপ ঘ. হরিণ

১৩. “ধিক্ তারে, শত ধিক্ নির্লজ্জ যে জন”- এ বাক্যে ‘নির্লজ্জ’ কোন বিশেষণের উদাহরণ?

ক. ক্রিয়া বিশেষণ খ. বাক্যের বিশেষণ

√গ. অব্যয়ের বিশেষণ ঘ. বিশেষণীয় বিশেষণ

১৪. “ছেলেটি ভেউ ভেউ করে কাঁদছে”- ‘ভেউ ভেউ’ কোন জাতীয় অব্যয়?

ক. প্রশ্নবোধক খ. উপসর্গ

√গ. অনুকার ঘ. সম্বোধনবাচক

১৫. ‘শিক্ষক ছাত্রদেরকে পড়াচ্ছেন’- বাক্যটি কোন ক্রিয়ার উদাহরণ?

ক. ধ্বনাত্মক ক্রিয়া খ. যৌগিক ক্রিয়া

√গ. প্রযোজক ক্রিয়া ঘ. সমধাতুজ ক্রিয়া

১৬. উপমান কর্মধারয় সমাসের উদাহরণ কোনটি?

ক. বৌ-ভাত খ. মুখচন্ত্র

গ. মহানবী √ঘ. কাজলকালো

১৭. ‘চিরসুখী’- এর ব্যাসবাক্য কোনটি?

√ক. চিরকাল ব্যাপিয়া সুখী

খ. চিরকাল ব্যাপিয়া সুখ

গ. চিরদিনের জন্য সুখী

ঘ. চিরদিন ধরে সুখী

১৮. তৎসম বা সংস্কৃত উপসর্গ কয়টি?

ক. ১৯টি খ. ২০টি

গ. ২১টি ঘ. ২২টি

ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা

মো. মুজাম্মেল হক

সিনিয়র শিক্ষক, মিরপুর বাংলা উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ঢাকা

ইবাদত

প্রশ্ন : ইবাদত বলতে কী বোঝায়?

উত্তর : ইবাদত আরবি শব্দ। এর অর্থ হলো চূড়ান্তভাবে দীনতা-হীনতা ও বিনয় প্রকাশ করা এবং নমনীয় হওয়া। ইসলামি পরিভাষায় মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের আশায় জীবনের সব ক্ষেত্রে তার দাসত্ব বা আনুগত্য করাকে ইবাদত বলে। এক কথায় আল্লাহ ও তার রাসূল (সা.)-এর নির্দেশিত পথে যে কোনো কাজ করাই ইবাদত।

প্রশ্ন : ‘মানুষ জাতিকে ইবাদতের জন্য সৃষ্টি করা হয়েছে।’ কথাটি বুঝিয়ে লেখ।

উত্তর : মানুষ আশরাফুল মাখলুকাত বা সৃষ্টির সেরা জীব। মানুষকে আল্লাহ ইবাদতের জন্য সৃষ্টি করেছেন।

মানুষ সৃষ্টির উদ্দেশ্য হলো আল্লাহর ইবাদত করা। দৈনন্দিন জীবনে মানুষ মহান আল্লাহর আদেশ যেমন- সালাত, সাওম, হজ, জাকাত পালন করা এবং নিষেধ যেমন-সুদ, ঘুষ, বেপর্দা, বেহায়াপনা ইত্যাদি পরিহার করে চলাকে ইবাদত বলে। তেমনিভাবে নবী ও রাসূলের দেখানো পথ অনুযায়ী একে অপরের সঙ্গে চলাচল এবং আচার ব্যবহার করাও ইবাদত। মূলত ইবাদতের মাধ্যমে মহান আল্লাহর আনুগত্য ও দাসত্ব প্রকাশ করা হয়। তাই বলা হয় যে, মানবজাতিকে ইবাদতের জন্য সৃষ্টি করা হয়েছে।

প্রশ্ন : হাক্কুল্লাহ বলতে কী বোঝায়?

উত্তর : ইবাদত প্রধানত দুই প্রকার। (ক) হাক্কুল্লাহ ও হাক্কুল ইবাদ। আল্লাহর সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকার কর্তব্যকে হাক্কুল্লাহ বলে।

আমরা আমাদের দৈনন্দিন জীবনে মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জন করার জন্য অনেক ধরনের ইবাদত করি। সেগুলোর মধ্যে কিছু ইবাদত রয়েছে যেগুলো প্রত্যক্ষভাবে তার সঙ্গে সম্পৃক্ত। এগুলোকে হাক্কুল্লাহ বা আল্লাহর হক বলে। সালাত কায়েম করা, সাওম পালন করা, হজ করা ইত্যাদি।

প্রশ্ন : হাক্কুল ইবাদ বলতে কী বোঝায়?

উত্তর : হাক্কুল ইবাদ বলতে বান্দার হক বা অধিকারকে বোঝায়।

মানুষ সামাজিক জীব। সমাজবদ্ধ হয়েই মানুষকে বসবাস করতে হয়। আমরা পিতা-মাতা, ভাই-বোন, আত্মীয়-স্বজন, পাড়া-প্রতিবেশীদের নিয়ে সামাজিকভাবে একসঙ্গে বসবাস করি। একজনের দুঃখে অন্যজন সাড়া দেই। আপদে-বিপদে একে অপরকে সাহায্য সহযোগিতা করি। পরস্পরের এ সহানুভূতি ও দায়িত্বই হাক্কুল ইবাদ তথা বান্দার হক বা অধিকার।

প্রশ্ন : সালাত বলতে কী বোঝায়?

উত্তর : সালাত আরবি শব্দ। এর ফার্সি প্রতিশব্দ হলো নামাজ। এর অর্থ দোয়া, ক্ষমা প্রার্থনা করা ও রহমত (দয়া) কামনা করা। শরিয়তের পরিভাষায় সালাত এমন একটি নির্দিষ্ট ইবাদত যা নির্দিষ্ট সময়ে নির্দিষ্ট পদ্ধতিতে আদায় করা হয়। কারো মতে, কিরাত, রুকু, সিজদা সম্বলিত সুনির্দিষ্ট ইবাদত যা দিনে পাঁচবার আদায় করা ফরজ, তাই সালাত।

প্রশ্ন : ‘সালাত মানুষকে খারাপ কাজ থেকে বিরত রাখে।’ ব্যাখ্যা কর।

উত্তর : সালাত ইসলামের দ্বিতীয় স্তম্ভ। সালাত অন্যায় ও অশালীন কাজ নির্মূলে ভূমিকা পালন করে।

মহান আল্লাহ মুমিনের ওপর দৈনিক পাঁচবার সালাত ফরজ করেছেন। যে ব্যক্তি পাঁচ ওয়াক্ত সালাত যথাযথভাবে আদায় করে সে কোনো খারাপ কাজ করতে পারে না। পাঁচ ওয়াক্ত সালাত আদায় তাকে সব ধরনের খারাপ কাজ থেকে দূরে রাখে। সালাত একজন মুমিনকে মন্দ ও গর্হিত কাজ হতে বিরত রাখে। এ প্রসঙ্গে আল্লাহতায়ালা বলেন, ‘নিশ্চয়ই সালাত মানুষকে অশ্লীল ও খারাপ কাজ থেকে বিরত রাখে।’

এসএসসি পরীক্ষার্থীদের প্রস্তুতি, বাংলা দ্বিতীয়পত্র * ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা

বাংলা দ্বিতীয়পত্র
 উজ্জ্বল কুমার সাহা 
২৯ জুলাই ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
এসএসসি পরীক্ষার্থীদের প্রস্তুতি, বাংলা দ্বিতীয়পত্র * ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা
ছবি: সংগৃহীত

প্রভাষক, সেন্ট যোসেফ উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয়, মোহাম্মদপুর, ঢাকা

নৈর্ব্যক্তিক প্রস্তুতি

১. মানুষের কণ্ঠ নিঃসৃত বাক্সংকেতের সংগঠনকে কী বলে?

ক. ধ্বনি খ. শব্দ গ. বাক্য √ঘ. ভাষা

২. বাংলা বর্ণমালায় পূর্ণমাত্রা, অর্ধমাত্রা ও মাত্রাহীন বর্ণের সংখ্যা যথাক্রমে-

√ক. ৩২, ৮, ১০ খ. ৩২, ৭, ১১

গ. ৩০, ৮, ১২ ঘ. ৩২, ৭, ৯

৩. কোন বর্ণগুলোর উচ্চারণস্থান অগ্র দন্ত্যমূল?

√ক. ন, ল, স খ. শ, ষ, ঝ

গ. য, র, ঢ় ঘ. ম, ব, প

৪. কোনটি কম্পনজাত ধ্বনি?

√ক. র খ. ড় গ. গ ঘ. ণ

৫. কোনগুলো দ্বিত্ব ব্যঞ্জন?

ক. পক্ব>পক্ক, পদ্ম>পদ্দ

√খ. পাকা>পাক্কা, সকাল>সক্কাল

গ. জন্ম>জম্ম, কাঁদনা>কান্ন

ঘ. রাধ্না>রান্না, গৃহিণী>গিন্নী

৬. সংস্কৃত ‘সাৎ’ প্রত্যয়যুক্ত পদে-

ক. ‘ষ’ হয় √খ. ‘ষ’ হয় না

গ. ‘ণ’ হয় ঘ. ‘ণ’ হয় না

৭. ‘সঞ্চয়’ শব্দের সঠিক সন্ধি কোনটি?

ক. সন্+চয় √খ. সম্+চয়

গ. সঙ্+চয় ঘ. সং+চয়

৮. কোনটির আগে স্ত্রীবাচক শব্দ যোগ করে লিঙ্গান্তর করতে হয়?

ক. নেতা খ. দাতা √গ. কবি ঘ. বাদশা

৯. কোন স্ত্রীবাচক শব্দের দুটি পুরুষবাচক শব্দ রয়েছে?

√ক. ননদ খ. দাদি গ. আয়া ঘ. ভাবী

১০. কোনটি যুগ্মরীতির দ্বিরুক্ত?

ক. গরম গরম খ. ঝমঝম

গ. মিটির মিটির √ঘ. টুপটাপ

১১. ‘সাহেব’ শব্দের বহুবচন কোনটি?

√ক. সাহেবান খ. সাহেবকুল

গ. সাহেবমণ্ডলী ঘ. সাহেবসমূহ

১২. মৌলিক শব্দ কোনটি?

ক. গায়ক খ. গোলাপি

√গ. গোলাপ ঘ. হরিণ

১৩. “ধিক্ তারে, শত ধিক্ নির্লজ্জ যে জন”- এ বাক্যে ‘নির্লজ্জ’ কোন বিশেষণের উদাহরণ?

ক. ক্রিয়া বিশেষণ খ. বাক্যের বিশেষণ

√গ. অব্যয়ের বিশেষণ ঘ. বিশেষণীয় বিশেষণ

১৪. “ছেলেটি ভেউ ভেউ করে কাঁদছে”- ‘ভেউ ভেউ’ কোন জাতীয় অব্যয়?

ক. প্রশ্নবোধক খ. উপসর্গ

√গ. অনুকার ঘ. সম্বোধনবাচক

১৫. ‘শিক্ষক ছাত্রদেরকে পড়াচ্ছেন’- বাক্যটি কোন ক্রিয়ার উদাহরণ?

ক. ধ্বনাত্মক ক্রিয়া খ. যৌগিক ক্রিয়া

√গ. প্রযোজক ক্রিয়া ঘ. সমধাতুজ ক্রিয়া

১৬. উপমান কর্মধারয় সমাসের উদাহরণ কোনটি?

ক. বৌ-ভাত খ. মুখচন্ত্র

গ. মহানবী √ঘ. কাজলকালো

১৭. ‘চিরসুখী’- এর ব্যাসবাক্য কোনটি?

√ক. চিরকাল ব্যাপিয়া সুখী

খ. চিরকাল ব্যাপিয়া সুখ

গ. চিরদিনের জন্য সুখী

ঘ. চিরদিন ধরে সুখী

১৮. তৎসম বা সংস্কৃত উপসর্গ কয়টি?

ক. ১৯টি খ. ২০টি

গ. ২১টি ঘ. ২২টি

ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা

মো. মুজাম্মেল হক

সিনিয়র শিক্ষক, মিরপুর বাংলা উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ঢাকা

ইবাদত

প্রশ্ন : ইবাদত বলতে কী বোঝায়?

উত্তর : ইবাদত আরবি শব্দ। এর অর্থ হলো চূড়ান্তভাবে দীনতা-হীনতা ও বিনয় প্রকাশ করা এবং নমনীয় হওয়া। ইসলামি পরিভাষায় মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের আশায় জীবনের সব ক্ষেত্রে তার দাসত্ব বা আনুগত্য করাকে ইবাদত বলে। এক কথায় আল্লাহ ও তার রাসূল (সা.)-এর নির্দেশিত পথে যে কোনো কাজ করাই ইবাদত।

প্রশ্ন : ‘মানুষ জাতিকে ইবাদতের জন্য সৃষ্টি করা হয়েছে।’ কথাটি বুঝিয়ে লেখ।

উত্তর : মানুষ আশরাফুল মাখলুকাত বা সৃষ্টির সেরা জীব। মানুষকে আল্লাহ ইবাদতের জন্য সৃষ্টি করেছেন।

মানুষ সৃষ্টির উদ্দেশ্য হলো আল্লাহর ইবাদত করা। দৈনন্দিন জীবনে মানুষ মহান আল্লাহর আদেশ যেমন- সালাত, সাওম, হজ, জাকাত পালন করা এবং নিষেধ যেমন-সুদ, ঘুষ, বেপর্দা, বেহায়াপনা ইত্যাদি পরিহার করে চলাকে ইবাদত বলে। তেমনিভাবে নবী ও রাসূলের দেখানো পথ অনুযায়ী একে অপরের সঙ্গে চলাচল এবং আচার ব্যবহার করাও ইবাদত। মূলত ইবাদতের মাধ্যমে মহান আল্লাহর আনুগত্য ও দাসত্ব প্রকাশ করা হয়। তাই বলা হয় যে, মানবজাতিকে ইবাদতের জন্য সৃষ্টি করা হয়েছে।

প্রশ্ন : হাক্কুল্লাহ বলতে কী বোঝায়?

উত্তর : ইবাদত প্রধানত দুই প্রকার। (ক) হাক্কুল্লাহ ও হাক্কুল ইবাদ। আল্লাহর সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকার কর্তব্যকে হাক্কুল্লাহ বলে।

আমরা আমাদের দৈনন্দিন জীবনে মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জন করার জন্য অনেক ধরনের ইবাদত করি। সেগুলোর মধ্যে কিছু ইবাদত রয়েছে যেগুলো প্রত্যক্ষভাবে তার সঙ্গে সম্পৃক্ত। এগুলোকে হাক্কুল্লাহ বা আল্লাহর হক বলে। সালাত কায়েম করা, সাওম পালন করা, হজ করা ইত্যাদি।

প্রশ্ন : হাক্কুল ইবাদ বলতে কী বোঝায়?

উত্তর : হাক্কুল ইবাদ বলতে বান্দার হক বা অধিকারকে বোঝায়।

মানুষ সামাজিক জীব। সমাজবদ্ধ হয়েই মানুষকে বসবাস করতে হয়। আমরা পিতা-মাতা, ভাই-বোন, আত্মীয়-স্বজন, পাড়া-প্রতিবেশীদের নিয়ে সামাজিকভাবে একসঙ্গে বসবাস করি। একজনের দুঃখে অন্যজন সাড়া দেই। আপদে-বিপদে একে অপরকে সাহায্য সহযোগিতা করি। পরস্পরের এ সহানুভূতি ও দায়িত্বই হাক্কুল ইবাদ তথা বান্দার হক বা অধিকার।

প্রশ্ন : সালাত বলতে কী বোঝায়?

উত্তর : সালাত আরবি শব্দ। এর ফার্সি প্রতিশব্দ হলো নামাজ। এর অর্থ দোয়া, ক্ষমা প্রার্থনা করা ও রহমত (দয়া) কামনা করা। শরিয়তের পরিভাষায় সালাত এমন একটি নির্দিষ্ট ইবাদত যা নির্দিষ্ট সময়ে নির্দিষ্ট পদ্ধতিতে আদায় করা হয়। কারো মতে, কিরাত, রুকু, সিজদা সম্বলিত সুনির্দিষ্ট ইবাদত যা দিনে পাঁচবার আদায় করা ফরজ, তাই সালাত।

প্রশ্ন : ‘সালাত মানুষকে খারাপ কাজ থেকে বিরত রাখে।’ ব্যাখ্যা কর।

উত্তর : সালাত ইসলামের দ্বিতীয় স্তম্ভ। সালাত অন্যায় ও অশালীন কাজ নির্মূলে ভূমিকা পালন করে।

মহান আল্লাহ মুমিনের ওপর দৈনিক পাঁচবার সালাত ফরজ করেছেন। যে ব্যক্তি পাঁচ ওয়াক্ত সালাত যথাযথভাবে আদায় করে সে কোনো খারাপ কাজ করতে পারে না। পাঁচ ওয়াক্ত সালাত আদায় তাকে সব ধরনের খারাপ কাজ থেকে দূরে রাখে। সালাত একজন মুমিনকে মন্দ ও গর্হিত কাজ হতে বিরত রাখে। এ প্রসঙ্গে আল্লাহতায়ালা বলেন, ‘নিশ্চয়ই সালাত মানুষকে অশ্লীল ও খারাপ কাজ থেকে বিরত রাখে।’

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন